০৪ ডিসেম্বর ২০২০

অব্যাহত ভারী বৃষ্টিতে মাছের ঘের ও সবজি ক্ষেতের ব্যাপক ক্ষতি

-

কুয়াকাটাসহ উপকূলীয় এলাকায় গত ক’দিনের অব্যাহত ভারী বর্ষণে মাছের ঘের ও সবজি ক্ষেতের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এছাড়া নিম্নচাপের প্রভাবে নদীতে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় পর্যটন নগরী কুয়াকাটা ও কলাপাড়া উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের খাল-বিল পানিতে টইটম্বুর হয়ে গেছে। এতে শতাধিক পুকুরসহ মাছের ঘের ডুবে ভেসে গেছে বিভিন্ন প্রজাতির কোটি কোটি টাকার মাছ। স্থানীয় আবহাওয়া অফিস বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে শুক্রবার সকাল ৬টা পর্যন্ত ২৫৪ মিলিলিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করেছে। এ বৃষ্টি আরো দুই থেকে তিন দিন অব্যাহত থাকতে পারে বলে কলাপাড়া আবহাওয়া অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে।

উপজেলার নীলগঞ্জ ইউনিয়নের দক্ষিণ নীলগঞ্জ গ্রামের মাছ চাষী মো. জুয়েল সিকদার বলেন, ‘অতি বর্ষণে আমার মাছের ঘেরসহ শীতকালীন সবজি ক্ষেতের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। যা পুষিয়ে উঠতে হিমশিম খেতে হবে।’

একই ইউনিয়নের সলিমপুর গ্রামের ক্ষিতীশ বিশ্বাস বলেন, ‘মাছের ঘের রক্ষার শেষ চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছি। এতে অন্তত তিন লক্ষাধিক টাকার ক্ষতির শিকার হয়েছি।’

একই ইউনিয়নের মাষ্টারবাড়ী এলাকার আরো কয়েকজন জানান, রেকর্ড পরিমাণ বৃষ্টি এ বছর বর্ষা মওসুমেও হয়নি। তাদের ঘেরে বিভিন্ন প্রজাতির অন্তত ১০ লক্ষাধিক টাকার মাছ ছিল। পানিতে টইটুম্বুর হয়ে যাওয়ায় ঘেরের অধিকাংশ মাছ ভেসে গেছে।

এদিকে চাকামইয়া ইউনিয়নের বেতমোর গ্রামের কৃষক মো. ফোরকান মিয়া জানান, তার দু’বিঘা জমিতে লাল শাক, পালং শাক, লাউসহ বিভিন্ন প্রকারের সবজি ছিল, যা বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় নষ্ট হওয়ার উপক্রম হয়েছে।

একই গ্রামের সবজি চাষী মোকলেস মিয়া জানান, এর আগের বৃষ্টিতে যেমন ক্ষতি হয়েছে, এ বৃষ্টিতে তার চেয়েও বেশি ক্ষতি হয়েছে। তিনি স্থানীয় একটি এনজিও থেকে লোন নিয়ে সবজি চাষাবাদ করেন। সবজি বিক্রির টাকায় কিস্তিতে এ লোন পরিশোধ করতেন। বৃষ্টির প্রভাবে আর্থিক লোকসানে পড়বেন বলে তিনি উল্লেখ করেন।

অপরদিকে অতিবর্ষণের প্রভাব পড়েছে ব্যবসাসীদের মধ্যেও। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে শুক্রবার পৌরশহরের বিভিন্ন দোকান-পাট ও উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারের অধিকাংশ দোকান-পাট ছিল বন্ধ। কিছু দোকান-পাট খোলা থাকলেও তাতে কোনো বেচা- কেনা হয়নি। গত ক’দিনের ভারী বর্ষণে জন-জীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে।

অপরদিকে পর্যটন নগরী কুয়াকাটায় সাপ্তাহিক ছুটির দিন শুক্র ও শনিবার দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে হাজার হাজার পর্যটক কুয়াকাটা ভ্রমণে আসেন কিন্তু ভারী বর্ষণের কারণে দূরপাল্লার তেমন কোনো পর্যটক লক্ষ করা যায়নি।


আরো সংবাদ

সৌদি আরবে ইমাম হোসাইন মসজিদটি ভেঙে ফেলার নির্দেশ (১০৭২৭)অপশক্তি মোকাবেলা করে ইসলামের বিজয় নিশ্চিত করতে হবে : মামুনুল হক (৯১৪৮)রাজধানীতে সমাবেশের অনুমতি পায়নি সম্মিলিত ইসলামী দলগুলো (৮৩৫৮)ভাস্কর্যের নামে মূর্তি স্থাপন কোনোক্রমে মেনে নেয়া যায় না : সম্মিলিত ইসলামী দলসমূহ (৫৯৯৭)স্টেডিয়ামগুলোকে জেলে রূপান্তরের অনুমতি না দেয়ায় কেজরিওয়ালের ওপর ক্ষুব্ধ মোদি (৫৬৯৯)দেশের প্রয়োজনে সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকারের নির্দেশ সেনাপ্রধানের (৫৪১৬)আওয়ামী লীগের আপত্তি, মামুনুল হকের মাহফিল বাতিল (৫২৩৭)কোনো মুসলিম হিন্দু নারীকে বিয়ে করতে পারে কিনা (৪৯৫৯)বাবার ডাকে বাড়ি ফিরে বড় ভাইয়ের হাতে খুন (৪৬০৮)পাঠ্যসূচিতে থাকলেও গুরুত্ব হারাচ্ছে ইসলাম শিক্ষা (৪০৩৯)