২৫ অক্টোবর ২০২০

লালমোহনে যত্রতত্র বিক্রি হচ্ছে গ্যাস সিলিন্ডার

লালমোহনে যত্রতত্র বিক্রি হচ্ছে গ্যাস সিলিন্ডার - নয়া দিগন্ত

প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা ব্যবস্থা ও ফায়ার সার্ভিসের অনুমোদন ছাড়া ভোলার লালমোহনে যত্রতত্র চরম ঝুকিপূর্ণ ভাবে বিক্রি হচ্ছে সিলিন্ডার গ্যাস ও পেট্রোল। যে কোন সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশংকা করছেন পথচারীরা ও স্থানীয়রা ।

লালমোহনের গজারিয়া, কর্তার হাট, চৌমহনী, রায়ঁচাদ, হাফিজ উদ্দীন বাজার, আজাহার রোড, চতলা বাজার, লর্ডহার্ডিঞ্জ, মঙ্গল সিকদার বাজারসহ বিভিন্ন বাজারে ঘুরে দেখা গেছে, মুদি দোকান হতে শুরু করে চায়ের দোকান, মোবাইলের দোকান, প্লাস্টিক সামগ্রী’র দোকান, টিনের দোকান, স্যানিটারীর দোকানসহ যে কোন দোকানের সামনে রাস্তার পাশে এলপি গ্যাস (সিলিন্ডার গ্যাস) সারিবদ্ধ রেখে বিক্রি করছেন দেদারছে। এর সাথে অনুমোদন ছাড়া পেট্রোলও অবাধে বিক্রি হচ্ছে এসব দোকানে। এসব অধিকাংশ দোকানেরই এলপি গ্যাস ও পেট্রোল বিক্রি করার মত অনুমোদন নেই।

সূত্রমতে জানা গেছে, কোন রকম নিয়ম না মেনে শুধু ট্রেড লাইসেন্স নিয়ে আবার কেউ অনুমোদন ও অগ্নিনির্বাপক ও বিস্ফোরক লাইসেন্স ছাড়াই এ জ্বালানি ও পেট্রোল ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে হরহামেশা । এসব দোকানে নেই আগুন নির্বাপকযন্ত্র। আর সেই যন্ত্র না থাকায় যে কোন মূর্হুতে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটলে তার প্রতিকারও জানা নেই এসব ব্যবসায়ীদের। জনবহুল এলাকায় ঝুকিপূর্ণ ভাবেই এসব ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। গ্রাম-গঞ্জের ছোট বড় বাজারগুলোতে এলপি গ্যাস বিক্রি হচ্ছে দেখার যেন কেউ নেই। এলপি গ্যাসের চাহিদা বাসা বাড়ীতে বৃদ্ধি পাওয়ার কারণেই যত্রতত্র নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করেই প্রকাশ্যে বিক্রি করা হচ্ছে।

লালমোহন ফায়ার সার্ভিস স্টেশন অফিসার মো. মিজানুর রহমান বলেন এলপি গ্যাস (সিলিন্ডার গ্যাস) বিক্রি করতে হলে ব্যবসায়ীদের লাইসেন্স নিতে হবে আর এ লাইসেন্স বিভাগীয় ইন্সপেক্টর বা জেলা কর্মকর্তা দিবেন।


আরো সংবাদ