ঢাকা, শনিবার,২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯

শেষের পাতা

দণ্ডবিধির ৩৭৭ ধারা অনুযায়ী সমকামীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিন : হেফাজতে ইসলাম

চট্টগ্রাম ব্যুরো

১২ সেপ্টেম্বর ২০১৫,শনিবার, ০০:০০


প্রিন্ট

অতিসম্প্রতি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অবস্থিত ব্রিটিশ কাউন্সিলে সমকামীদের নিয়ে একটি অনুষ্ঠান হয়। এই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারীদের ‘অভিশপ্ত কওমে লুতের প্রেতাত্মা’ বলে অভিহিত করে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় মহাসচিব আল্লামা হাফেজ জুনাইদ বাবুনগরী ও সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী গতকাল এক যুক্তবিবৃতিতে বলেছেন, সম্প্রতি দেশে সমকামীদের প্রকাশ্য সংঘবদ্ধ উৎপাতকে আমরা এই সমাজের সুদীর্ঘ সামাজিক ঐতিহ্য ও জীবনাচার এবং ধর্মীয় অনুশাসনের প্রতি তীব্র হুমকিস্বরূপ বলে মনে করি। অদূর ভবিষ্যতে সমকামীদের নিয়ে কোনো ধরনের প্রকাশ্য অবস্থান বা কর্মসূচি রুখে দিতে হেফাজতে ইসলাম এবং এ দেশের তৌহিদি জনতা বদ্ধপরিকর।
হেফাজত নেতৃদ্বয় বলেন, প্রকৃতপক্ষে সাম্রাজ্যবাদের উচ্ছিষ্টভোগী খুশি কবিররা কুরআনে বর্ণিত কদর্য, ঘৃণিত ও অভিশপ্ত কওমে লুতের প্রেতাত্মাদের এই দেশে আবার আবির্ভাব ঘটাতে চাইছেন। অত্যন্ত দুর্ভাগ্যের বিষয় হলো, এই আবহমান ধর্মপ্রাণ তৌহিদি জনসমাজে একজন লেসবিয়ান যখন তথাকথিত সমাজসেবকের রূপ ধারণ করে সমকামীদের নেতৃত্ব দেন, তখন জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে এ দেশের সর্বস্তরের জনগণের ওপর আল্লাহর সীমাহীন গজব যে কালক্রমে অনিবার্য হয়ে উঠবে তা বলার অপেক্ষা রাখে না। কেননা, ইতিহাস সাক্ষী, অবাধে ঘৃণ্য সমকামিতা চর্চার অপরাধে আল্লাহ তায়ালা পুরো লুত সম্প্রদায়কে কঠিন আজাব-গজব দিয়ে সমূলে ধ্বংস করে দিয়েছিলেন। সুতরাং বাংলাদেশের মতো ধর্মপ্রাণ বৃহত্তর মুসলিম সমাজে প্রকাশ্যে সমকামিতার উত্থান ও চর্চার বিস্তার ঘটলে পুরো জাতির জন্যই এটি চরম খোদায়ী অভিশাপ ও অমঙ্গল ডেকে আনবে। তা ছাড়া এইডস রোগ প্রথম আবিষ্কৃত হয় পাঁচজন সমকামীর মধ্যে ১৯৮১ সালে আমেরিকার লস অ্যাঞ্জেলসে। সমকামিতার চর্চা এইডস রোগের বিস্তারের জন্যও অনেকাংশে দায়ী।
হেফাজত নেতৃদ্বয় আরো বলেন, ইসলামী বিধানমতে- সমলিঙ্গের উভয়ের স্বেচ্ছাপ্রণোদিত যৌনাচারের অপরাধের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড। সমকামিতা প্রাকৃতিক নিয়মবিরুদ্ধ এক ধরনের বিকৃত যৌনরুচি এবং এ ক্ষেত্রে সমকামীরা মানসিকভাবে প্রতিবন্ধী ও অসুস্থ বলে আমরা মনে করি। তাদের জন্য সরকারি ও বেসরকারিভাবে বিশেষ চিকিৎসালয়ের ব্যবস্থা করতে হবে। তাদের সঠিক পথে ফিরিয়ে আনার কোনো বিকল্প নেই।
হেফাজত নেতৃদ্বয় বলেন, রাষ্ট্রের উদাসীনতার সুযোগে বহুদিন যাবত প্রগতিশীলতা ও নাস্তিকতার নামে তৌহিদি জনতার ধর্মীয় অনুভূতিতে উপর্যুপরি আঘাত করা হচ্ছে। আলেমসমাজ ও ইসলামি নেতাকর্মীদের জেল-জুলুম ও মামলার ভয় দেখিয়ে কোণঠাসা করে রাখা হয়েছে। এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে সাম্রাজ্যবাদের উচ্ছিষ্টভোগী খুশি কবিররা প্রকাশ্যে সমকামীদের নিয়ে আসার দুঃসাহস দেখাচ্ছেন। হেফাজত নেতৃদ্বয় বাংলাদেশ দণ্ডবিধির ৩৭৭ ধারা অনুযায়ী সমকামীদের বিরুদ্ধে অবিলম্বে যথাযথ ব্যবস্থা নিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান। অন্যথায় তারা বলেন, এ দেশে প্রকাশ্যে সমকামীদের উৎপাত অব্যাহত থাকলে খোদায়ী গজব থেকে বর্তমান সরকারও রেহাই পাবেন না।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫