ঢাকায় এয়ার এশিয়ার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন

নিজস্ব প্রতিবেদক

সর্বোচ্চ সেবার মান ও কম মূল্যে ভ্রমণে ‘এভরি ওয়ান ক্যান ফাই’ স্লোগানকে সামনে রেখে গত ১০ জুলাই থেকেই বাংলাদেশে ফাইট চলাচল শুরু করেছে এশিয়ার অন্যতম বাজেট এয়ারলাইন এয়ার এশিয়া।
গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সোনারগাঁও হোটেলে এয়ার এশিয়ার ফাইট লঞ্চিং আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করা হয়।
অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু তার বক্তব্যে বলেন, পৃথিবীর তৃতীয় বৃহত্তম এই বাজেট এয়ার বাংলাদেশের যাত্রীদের কম খরচে ভ্রমণের ব্যবস্থা করবে। মালয়েশিয়ার এই কোম্পানিটির বাংলাদেশে বিমানসেবা বৃদ্ধির মাধ্যমে দুই দেশের সম্পর্ক আরো দৃঢ় হবে বলে তিনি মতামত প্রকাশ করেন।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বিমান ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেন, যাত্রীদের মানসম্মত সেবা প্রদানের বিষয়ে এয়ার এশিয়াকে দৃষ্টি রাখতে হবে। বর্তমানে মালয়েশিয়াতে বিপুল বাংলাদেশী শ্রমিক কর্মরত রয়েছেন। তারা যেন এই বিমানে কম খরচে ভালো সেবা পান সে দিকটি বিবেচনায় রাখতে হবে।
অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে এয়ার এশিয়ার প্রধান নির্বাহী আইরিন ওমর বলেন, বাংলাদেশে এয়ার এশিয়ার যাত্রা শুধু একটি বিমানের চলাচল নয়, বরং দুই দেশের বন্ধুত্বের মাইলফলক।
অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন বাংলাদেশে নিযুক্ত মালয়েশিয়ার হাইকমিশনার মাদাম নরলিন ওখমেন ও টোটাল এয়ার সার্ভিসের (তাস) প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সাদি আবদুল্লাহ।
বর্তমানে ঢাকা-কুয়ালালামপুর-ঢাকা রুটে সপ্তাহে সাতটি ফাইট পরিচালনা করছে এয়ার এশিয়া। বিশেষ অফারের মাধ্যমে বাংলাদেশ থেকে যাত্রীদের কুয়ালালামপুর হয়ে সংযোগ ফাইটে বিশ্বের ১২৯টিরও বেশি গন্তব্যে সাশ্রয়ী ভাড়ায় ভ্রমণ করার সুযোগ দিচ্ছে এয়ার এশিয়া।
এয়ার এশিয়ার জেনারেল সেলস এজেন্ট টোটাল এয়ার সার্ভিস লিমিটেডের চেয়ারম্যান মুজিবুল হক জানান, মালয়েশিয়াগামী বাংলাদেশী ব্যবসায়ী, শ্রমিক, ছাত্র, পর্যটকসহ সর্বস্তরের মানুষের জন্য কম খরচে আরামদায়ক ভ্রমণ নিশ্চিত করতেই এয়ার এশিয়ার পথচলা।
অনুষ্ঠান শেষে র‌্যাফেল ড্র অনুষ্ঠিত হয়। এতে ব্যবসায়ী ক্যাটাগরিতে পাঁচটি ও সাংবাদিকদের জন্য ১৫টি ঢাকা-কুয়ালালামপুর-ঢাকা বিমান টিকিট দেয়া হয়।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.