০৫ এপ্রিল ২০২০
আমিও বলতে চাই  

ধর্ষক নামের পশুদের রুখতে কিছু প্রস্তাবনা

-

রাজধানীর কুর্মিটোলায় রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে ঢাবি ছাত্রীকে গণধর্ষণ, ঝোপের মধ্যে পাওয়া গেল ভিকটিমের বই-ঘড়ি-ইনহেলার। আবারো আন্দোলন। আবারো উত্তাল বিচারপ্রার্থীরা। আবারো আশার বাণী। কিন্তু এভাবে কতদিন? একের পর এক ধর্ষণ! এই ধর্ষণের রেশ কাটতে না কাটতে দেশের আরো কয়েক স্থানে ধর্ষণের খবর পাওয়া গেছে।
প্রতি বছরই বাড়ছে ধর্ষণের ঘটনা। ২০১৮ সালের চেয়ে ২০১৯ সালে ধর্ষণের ঘটনা পত্র-পত্রিকায়ই প্রকাশিত হয়েছে প্রায় দ্বিগুণ। ২০২০ সাল শুরু হতে না হতেই খোদ রাজধানীতেই ঘটে গেল এমন পাশবিক ঘটনা যা পুরো জাতিকে মর্মাহত করেছে।
ধর্ষকের বিচার বিলম্ব না করে খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে বিচার ও সাজা কার্যকর করলে ধর্ষণ কিছুটা হলেও কমবে। অন্য দিকে, এ অপরাধের শাস্তি বাড়িয়ে ফাঁসি করা যেতে পারে!
ধর্ষণ রোধে এখন সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলে কেবল প্রতিহত করা যাবে না। এর শাস্তির ভয়াবহতা বাড়িয়ে পশুদের মনে ভয়ের কম্পন ধরাতে হবে।
প্রস্তাবনাÑ
১. ধর্ষণের শাস্তি খুব দ্রুত দেয়ার আইন চালু করা, এতে পশুরা কিছুটা ভয় পাবে;
২. ধর্ষণের শাস্তি সর্বোচ্চ করা, ফাঁসিসহ মালামাল ক্রোক করার বিধান চালু;
৩. ধর্ষকের শাস্তি ঢাকঢোল পিটিয়ে বা প্রকাশ্যে প্রচার করে দেয়া, এতে পশুদের মনে কিছুটা প্রভাব পড়বে;
৪. ধর্ষক প্রমাণ হওয়ার পর তার ছবির বিজ্ঞাপন সারা দেশে প্রচারের ব্যবস্থা করা;
৫. ধর্ষককে সহায়তাকারীদের একইভাবে শাস্তি এবং সামাজিকভাবে হেয় করার ব্যবস্থা নেয়া;
৬. ধর্ষিতাকে সম্মাননা এবং ক্ষতিপূরণ দেয়া;
৭. ধর্ষকদের সামজিকভাবে বিচ্ছিন্ন করে নাগরিকের সব অধিকার কেড়ে নেয়া।
কাজী সুলতানুল আরেফিন
পূর্ব শিলুয়া, ছাগলনাইয়া, ফেনী।


আরো সংবাদ

আত্মহত্যার আগে মায়ের কাছে স্কুলছাত্রীর আবেগঘন চিঠি (১৩৫৩০)সিসিকের খাদ্য ফান্ডে খালেদা জিয়ার অনুদান (১২৬০৬)করোনা নিয়ে উদ্বিগ্ন খালেদা জিয়া, শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল (৯৩১৫)ভারতে তাবলিগিদের 'মানবতার শত্রু ' অভিহিত করে জাতীয় নিরাপত্তা আইন প্রয়োগ (৮৪৯০)করোনায় নিশ্চিহ্ন হয়ে গেল ইতালির একটি পরিবার (৭৮৬৪)করোনার মধ্যেও ইরান-যুক্তরাষ্ট্র আরেক যুদ্ধ (৭১৪০)করোনায় আটকে গেছে সাড়ে চার লাখ শিক্ষকের বেতন (৬৯৩১)ইসরাইলে গোঁড়া ইহুদির শহরে সবচেয়ে বেশি করোনার সংক্রমণ (৬৮৯০)ঢাকায় টিভি সাংবাদিক আক্রান্ত, একই চ্যানেলের ৪৭ জন কোয়ারান্টাইনে (৬৭৬১)করোনাভাইরাস ভয় : ইতালিতে প্রেমিকাকে হত্যা করল প্রেমিক (৬২৯৬)