০২ অক্টোবর ২০২২, ১৭ আশ্বিন ১৪২৯, ৫ রবিউল আওয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

ট্রাম্পের কট্টর সমালোচক লিজ চেনি হেরে গেছেন


কংগ্রেসে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কট্টর সমালোচক এবং রিপাবলিকান প্রতিপক্ষ লিজ চেনি মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াইমিংয়ের মিডটার্ম ইলেকশনে ট্রাম্প-সমর্থিত প্রতিদ্বন্দ্বী হ্যারিয়েট হেগম্যানের কাছে পরাজিত হয়েছেন।

এই পরাজয়কে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ বিজয় হিসেবে দেখছেন বিশ্লেষকরা।

প্রতিযোগিতার কথা স্বীকার করে চেনি বলেছেন, তিনি প্রাথমিক জয়ের জন্য ‘২০২০ নির্বাচন সম্পর্কে সাবেক প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের মিথ্যাচারের মধ্য দিয়ে যেতে চান না।’

চেনি তার এই পরাজয়কে তার রাজনৈতিক জীবনের একটি নতুন অধ্যায়ের সূচনা হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

নির্বাচনের প্রত্যাশিত ব্যালটের ৫৮ শতাংশ গণনা করা হয়েছে। জানা যায়, হেগম্যান ৬২.৪ শতাংশ ভোট নিয়ে রিপাবলিকানের নেতৃত্ব দিয়েছেন। চেনি ৩৩.৫ শতাংশ এবং রাজ্যের আইনপ্রণেতা অ্যান্থনি বাউচার্ড ২.৪ শতাংশ ভোট পেয়ে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছেন।

এর আগে ট্রাম্প ইঙ্গিত দিয়েছেন তিনি ২০২৪ সালে রাষ্ট্রপতি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। তার অভিশংসনকে সমর্থন করার জন্য যে ১০ জন হাউস রিপাবলিকানের পেছনে ট্রাম্প উঠে পড়ে লেগেছিলেন তার মধ্যে চেনি অন্যতম। তিনি হাউস প্যানেলের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় রিপাবলিকান হয়েও ২০২১ সালের ৬ জানুয়ারি ট্রাম্প সমর্থকদের করা ক্যাপিটল দাঙ্গার ঘটনার তদন্ত দলের সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

পরাজয়ের পর রিপাবলিকান দলের সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং তার বাবা ডিক চেনির উপস্থিতিতে দেয়া এক বক্তৃতায় লিজ চেনি বলেন, ‘আমাদের কাজ শেষ হয়নি।’

তিনি আরো বলেন, ট্রাম্প ক্যাপিটল দাঙ্গাকে কেন্দ্র করে তার কর্মকাণ্ডকে বৈধতা দিতে এবং ২০২০ সালের নির্বাচনে তিনি জয়ী হয়েছেন বলে যে মিথ্যা দাবি করেছিলেন তার প্রতি সমর্থন আদায়ের চেষ্টায় ৬ জানুয়ারি কমিটিতে তার ক্ষমতা কাজে লাগিয়েছিলেন।

তিনি বলেন, ‘আমি ৬ জানুয়ারি থেকে বলেছি যে ডোনাল্ড ট্রাম্প ওভাল অফিসের আশেপাশেও আসতে পারবে না তা নিশ্চিত করার জন্য যা যা করা দরকার আমি তা করব। এবং আমি এখনো এক কথাই বলছি।’

চেনির বক্তৃতার স্থান থেকে চার শ’ মাইল পূর্বে হেগেম্যান সমর্থকরা তার জয়োৎসব পালন করেন।

এসময় হেগেম্যান বলেন, ‘অবশ্যই আমরা সবাই প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের কাছে অত্যন্ত কৃতজ্ঞ। তিনি প্রমাণ করেছেন যে ওয়াইমিংয়ে শুধুমাত্র একজন কংগ্রেসের প্রতিনিধি রয়েছেন।’

ট্রাম্পের ষড়যন্ত্রের তত্ত্বের প্রতিধ্বনি করে তিনিও দাবি করেন, ২০২০ সালের নির্বাচনে ‘কারচুপি’ হয়েছিল।

অন্যদিকে ট্রাম্প এই ফলাফলকে ৬ জানুয়ারি কমিটির ‘সম্পূর্ণ অপমান’ বলে অভিহিত করেছেন।

ট্রাম্প তার সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মে লিখেছেন, ‘তিনি যেভাবে অভিনয় করেছিলেন এবং অন্যদের প্রতি তার বিদ্বেষপূর্ণ মনোভাব, আক্রমণাত্মক ভাষা এবং সামগ্রিক কর্মকাণ্ডের জন্য লিজ চেনির নিজের জন্য লজ্জা হওয়া উচিত।’

তিনি আরো বলেন, ‘অবশেষে তিনি (লিজ চেনি) এখন রাজনৈতিক বিস্মৃতির অন্তরালে অদৃশ্য হয়ে যেতে পারেন। এবং আমি নিশ্চিত সেখানে তিনি এখনকার চেয়ে অনেক বেশি সুখে থাকবেন। ধন্যবাদ ওয়াইওমিং!’


আরো সংবাদ


premium cement