০৭ মে ২০২১
`

কৃষ্ণাঙ্গ তরুণ হত্যার জেরে যুক্তরাষ্ট্রে অব্যাহত বিক্ষোভ

দান্তে রাইটকে ‘দুর্ঘটনাক্রমে’ গুলির দাবি পুলিশের
মুখোমুখি বিক্ষোভকারী ও পুলিশ - ছবি : সংগৃহীত

যুক্তরাষ্ট্রের মিনেসোটা রাজ্যের মিনেপোলিস শহরে পুলিশের গুলিতে কৃষ্ণাঙ্গ তরুণ নিহতের জেরে দ্বিতীয় রাতের মতো সোমবার শহরটিতে বিক্ষোভ করা হয়েছে। পুলিশ অবশ্য বলছে, দুর্ঘটনাক্রমে ২০ বছর বয়সী ওই তরুণকে গুলি করা হয়।

এর আগে রোববার মিনেপোলিসের শহরতলী ব্রুকলিন সেন্টারে দান্তে রাইট নামের ওই তরুণ তার গাড়িতে অবস্থানের সময় পুলিশ তাকে গুলি করে।

গত বছর ঘটনাস্থলের কাছাকাছি স্থানেই স্থানীয় পুলিশের হাতে জর্জ ফ্লয়েড নিহত হন।

ঘটনার পরপরই শহরটিতে দান্তে রাইটের হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভ শুরু হয়।

ব্রুকলিন সেন্টার পুলিশ বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে ফ্ল্যাশ ব্যাং ও টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ করে। পরে বিক্ষোভ দমনে শহরে সন্ধ্যা থেকে ভোর পর্যন্ত কারফিউ জারি করা হয়।

জর্জ ফ্লয়েডকে হত্যার জন্য দায়ী চার পুলিশ সদস্যের আদালতে বিচার চলাকালেই যুক্তরাষ্ট্রে নতুন করে কৃষ্ণাঙ্গ নাগরিক হত্যার ঘটনা ঘটলো। গত বছর ২৫ মে এই নিরস্ত্র মধ্যবয়সী কৃষ্ণাঙ্গ এই নাগরিককে হত্যার জেরে কয়েক মাস বর্ণবাদ ও পুলিশী নিষ্ঠুরতার বিরুদ্ধে প্রতিবাদে যুক্তরাষ্ট্র উত্তাল ছিল।

এদিকে সোমবার দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যদের পোশাকে সংযুক্ত ক্যামেরায় ধারণ করা ভিডিও প্রকাশ করেছে ব্রুকলিন সেন্টার পুলিশ।

ধারণকৃত ভিডিওর ভিত্তিতে ব্রুকলিন সেন্টার পুলিশ প্রধান টিম গ্যানন বলেন, ‘ভিডিওতে আমি যা দেখেছি এবং পুলিশ কর্মকর্তার প্রতিক্রিয়া ও পরবর্তীতে তার আক্ষেপ থেকে আমার কাছে প্রতীয়মান হয়েছে, এটি দুর্ঘটনামূলক এক ঘটনা যাতে রাইটের করুণ মৃত্যু হয়েছে।’

ওই ভিডিওতে দেখা যায়, পুলিশ কর্মকর্তা দান্তে রাইটকে অবশ করতে টিজারের (অবশ করতে বৈদ্যুতিক শক দেয়া অস্ত্র) শক দেয়ার হুমকি দিতে থাকেন। পরে দান্তে পুলিশের বেষ্টনী থেকে বেরিয়ে গাড়িতে উঠতে গেলে তিনি তার অস্ত্র বের করেন। কিন্তু টিজারের বদলে তার হাতে উঠে আসা পিস্তল থেকে গুলি বের হয়ে দান্তের পিঠে বিদ্ধ হয়।

ভিডিওতে ওই পুলিশ কর্মকর্তাকে আক্ষেপ করে বলতে শোনা যায়, ‘আমি তাকে গুলি করেছি!’

তবে দান্তে রাইটের ভাই ডালাস ব্রাইয়ান্ট সোমবার সন্ধ্যায় প্রায় এক শ’ লোকের অংশগ্রহণে মোমবাতি জ্বালিয়ে দান্তেকে স্মরণ অনুষ্ঠানে এই দাবি প্রত্যাখ্যান করে বলেন, ফোনে তার ভাইকে খুব ভয় পেয়েছে বলে মনে হয়েছে। এছাড়া তিনি প্রশ্ন করেন, কি করে একজন পুলিশ কর্মকর্তা ধাতুর পিস্তল ও প্ল্যাস্টিকের টিজারের মধ্যে পার্থক্য করতে পারেন না।

এদিকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে পুলিশের ভিডিওকে ‘স্পষ্ট বানোয়াট’ হিসেবে মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, ‘এখন প্রশ্ন এটি কি দুর্ঘটনা নাকি ইচ্ছাকৃত? পূর্ণ তদন্তের মাধ্যমেই তা জানা যাবে।’

পরে এক টুইট বার্তায় প্রেসিডেন্ট বাইডেন বলেন, ‘আমি আজ ভাবছি দান্তে রাইট ও তার পরিবার সম্পর্কে- এবং সাথে সাথে কৃষ্ণাঙ্গ আমেরিকা প্রতিদিন যেই দুঃখ, ক্ষোভ ও ভীতির মধ্য দিয়ে যায়, তা সম্পর্কে। পূর্ণ তদন্তের জন্য আমরা যখন অপেক্ষা করছি, আমরা জানি সামনে এগুতে কী করতে হবে : বিশ্বাসের পূর্ণনির্মাণ এবং জবাবদিহিতার নিশ্চয়তা যাতে কেউ আইনের ঊর্ধ্বে নয়।’

মিনেপোলিসের উত্তরে ছোট শহর ব্রুকলিন সেন্টার যার অধিবাসীর সংখ্যা ৩০ হাজার। ২০০০ সালের দিকে অধিবাসীদের ৭০ ভাগের বেশি শেতাঙ্গ হলেও বর্তমানে এই শহরের বেশিরভাগ বাসিন্দা কৃষ্ণাঙ্গ, এশিয়ান বা লাতিন।

সূত্র : আলজাজিরা



আরো সংবাদ