০৯ মে ২০২১
`

লন্ডনে নিশি জাগরণে ধস্তাধস্তি, সমালোচনার মুখে ব্রিটিশ পুলিশ

লন্ডনে পুলিশ ও ভিজিল অংশগ্রহণকারীদের ধস্তাধস্তি - ছবি : সংগৃহীত

করোনা বিধি ভঙ্গ করে ব্রিটেনের রাজধানী লন্ডনজুড়ে গত সপ্তাহে খুন হওয়া এক নারীর স্মরণে নিশি জাগরণে (ভিজিল) অংশ নিয়েছেন হাজার হাজার লোক। তবে শনিবার রাতে সারার এভারার্ড নামের এই নারীর স্মরণে দক্ষিণ লন্ডনে কালফাম কমন পার্কে অনুষ্ঠিত সম্মিলিত নিশি জাগরণে অংশগ্রহণকারীদের সাথে পুলিশের ধস্তাধস্তি ও কয়েক জনকে আটক করায় সমালোচনার মুখে পড়েছে ব্রিটিশ পুলিশ।

এর আগে গত ৩ মার্চ ৩৩ বছর বয়সী মার্কেটিং এক্সিকিউটিভ সারাহ এভারার্ড দক্ষিণ লন্ডনের কালফাম মহল্লায় এক বন্ধুর বাড়ি থেকে নিজের বাড়িতে যাওয়ার পথে নিখোঁজ হন। রাত সাড়ে ৯টায় পয়েনডিয়ার্স রোডের এক সিসি ক্যামেরায় তাকে শেষবারের মতো দেখা যায়।

পরে ১০ মার্চ তার লাশ শেষ দেখা যাওয়ার স্থান থেকে ৫০ মাইলের বেশি দূরের স্থান থেকে উদ্ধার করা হয়। সারাহ এভারার্ডকে অপহরণ ও হত্যার দায়ে পুলিশ কর্মকর্তা ওয়েন কুজনসকে অভিযুক্ত করে নিরাপত্তা হেফাজতে নেয়া হয়েছে। ওয়েস্টমিনিস্টার ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে তার বিরুদ্ধে মামলার শুনানি চলছে।

শনিবার এভারার্ডের স্মরণে ব্রিটেনজুড়ে নিশি জাগরণের আয়োজনের পরিকল্পনা করা হলেও করোনা মহামারীর কারণে তা বাতিল করা হয়।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে দেখা যায়, দক্ষিণ লন্ডনের কালফাম কমন পার্কে পুলিশ প্রথমে নিশি জাগরণে অংশগ্রহণকারীদের সরে যাওয়ার জন্য বলতে থাকে। এক পর্যায়ে জোর করে অংশগ্রহণকারীদের ওই স্থান থেকে সরিয়ে দিতে থাকেন পুলিশ সদস্যরা। এই সময় পুলিশের সাথে অংশগ্রহণকারীদের ধস্তাধস্তি হলে কয়েক জন অংশগ্রহণকারীকে মাটিতে ফেলে হাতকড়া পরিয়ে আটক করা হয়।

পুলিশ জানিয়েছে, এই ঘটনায় চারজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রীতি প্যাটেল পুলিশের কাছে এই ঘটনায় প্রতিবেদন দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। অপরদিকে লন্ডনের মেয়র সাদিক খান জানিয়েছেন, ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে লন্ডন মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার ক্রেসিডা ডিকের কাছে ‘জরুরিভিত্তিতে ব্যাখ্যা’তলব করেছেন।

সূত্র : বিবিসি ও আলজাজিরা



আরো সংবাদ