০২ জুন ২০২০

ব্রিটেনে করোনায় এক দিনে মৃত্যুর রেকর্ড

ব্রিটেনে করোনায় এক দিনে মৃত্যুর রেকর্ড - সংগৃহীত

কোভিড-১৯ করোনাভাইরাসের মহামারিতে ব্রিটেনে এক দিনে মৃত্যুর নতুন রেকর্ড তৈরি হয়েছে। শুক্রবার দেশটির স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, বিগত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে ৬৮৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশটিতে মৃতের সংখ্যা দাড়াঁলো তিন হাজার ৬৫০ জনে। ব্রিটেনের স্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে, নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ৪৪৫০ জন। এতে মোট সংখ্যা গিয়ে দাঁড়িয়েছে ৩৮ হাজার ১৬৮ জনে। শতকরা হিসেবে রোগীর সংখ্যা বেড়েছে ১৩.১ শতাংশ।

যুক্তরাজ্যে এখন পর্যন্ত দেড় লক্ষাধিক মানুষের করোনাভাইরাস পরীক্ষা করা হয়েছে। স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার বিকাল পর্যন্ত পরীক্ষা করা হয়েছে ১ লাখ ৫২ হাজার ৯৭৯ জনের। গত সাত দিনে গড়ে প্রতিদিন আট হাজার মানুষের এই পরীক্ষা করা হয়েছে। তার আগের সাত দিনে এই গড় ছিলো পাঁচ হাজার আটশো।

এদিকে করোনাভাইরাসের মহামারি নিয়ে জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ। উইন্ডসর ক্যাসেলে ধারণ করা এই ভাষণটি আগামী রোববার স্থানীয় সময় রাত ১০টায় সব ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ায় প্রচার করা হবে। বাকিংহাম প্যালেসের এক বিবৃতিতে এই তথ্য জানানো হয়েছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, ৬৮ বছরের রাজত্বকালে এই নিয়ে চতুর্থবারের মতো জাতির উদ্দেশে বিশেষ ভাষণ দিতে যাচ্ছেন রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ। করোনায় মৃতের সংখ্যা বাড়ার প্রেক্ষাপটে বিশেষ ভাষণ দিতে যাচ্ছেন ব্রিটিশ রানি।

সাধারণত বড়দিনের সময়ে বছরে একবার জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিয়ে থাকেন ব্রিটিশ রানি। এর বাইরে তার ভাষণের নজির খুবই কম। ১৯৯১ সালে উপসাগরীয় যুদ্ধ, ১৯৯৭ সালে প্রিন্সেস ডায়ানার শেষকৃত্য এবং ২০০২ সালে রানির মায়ের মৃত্যুর পর বিশেষ ভাষণ দিয়েছিলেন রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ। করোনাভাইরাস মহামারিতে তার এবারের ভাষণটি টেলিভিশন, রেডিও ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একযোগে সম্প্রচারিত হবে।

লন্ডনে করোনার জন্য নতুন হাসপাতাল চালু
এদিকে শুক্রবার সকালে লন্ডনের এক্সএল সেন্টারে করোনা রোগীদের জন্য বিশেষ হাসপাতাল আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করা হয়েছে। প্রিন্স চার্লস ভিডিও বার্তার মাধ্যমে নতুন ৪ হাজার শয্যা বিশিষ্ট নাইটিঙ্গেল হাসপাতালটি পূর্ব লন্ডনে উদ্বোধন করেন। এসময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ম্যাট হ্যানকক। তিনি বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে করোনায় যে হারে মারা যাচ্ছে তাতে মনে হচ্ছে আগামী কিছুদিনের মধ্যে প্রতিদিন মৃতের হার এক হাজার ছাড়িয়ে যাবে। ব্রিটিশ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও রকম করুণ পরিস্থিতির জন্য প্রস্তুত আছে ।

রোনাভাইরাস রোগীদের চিকিৎসার জন্য সরকারের প্রথম জরুরি পদক্ষেপের মধ্যে পূর্ব লন্ডনের এক্সেল সেন্টারের মধ্যে নির্মিত এটিই প্রথম কোন হাসপাতাল। অস্থায়ী এনএইচএস নাইটিঙ্গেল হাসপাতালটি প্রায় চার হাজার রোগীকে চিকিৎসা দিতে সক্ষম। সামরিক বাহিনীর সহায়তায় এনএইচএসের চিকিৎসকরা এখানে রোগীদের সেবা দেবেন।
ভিডিও লিঙ্কের মাধ্যমে হাসপাতালটি খোলার সাথে সাথে প্রিন্স চার্লস হাসপাতালের কর্মীদের শ্রদ্ধা জানিয়েছেন। এছাড়া কার্ডিফ, গ্ল্যাসগো, ম্যানচেস্টার, হ্যারোগেট এবং ব্রিস্টলসহ ব্রিটেনের বিভিন্ন শহরে অনুরূপ হাসপাতালের পরিকল্পনা করেছে সরকার।


আরো সংবাদ