০১ ডিসেম্বর ২০২১, ১৬ অগ্রহায়ন ১৪২৮, ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩ হিজরি
`

সামরিক বিরোধ ও বিভিন্ন ইস্যুতে তুর্ক-মার্কিন আলোচনা

রাশিয়া থেকে এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কেনার কারণে তুরস্কের সাথে আমেরিকার সামরিক দ্বন্দ্ব প্রকট হয় - ছবি : সংগৃহীত

সামরিক ইস্যুতে মতপার্থক্য দূর করতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ও তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগানের শীর্ষ পর্যায়ের দুই উপদেষ্টা আলোচনা করেছেন। বুধবার এক বিবৃতিতে এই খবর নিশ্চিত করা হয়েছে।

এতে বলা হয়, আমেরিকার জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জেক সুলিভান ও তুর্কি প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র ও উপদেষ্টা ইবরাহিম কালিন আফগানিস্তান, মধ্যপ্রাচ্য ও দক্ষিণ ককেশাসসহ আঞ্চলিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন। এছাড়া পূর্ব ভূমধ্যসাগরীয় এলাকা এবং আমেরিকা ও তুরস্কের মধ্যকার সামরিক সম্পর্ক নিয়ে আলোচনা হয়।

এ সময় দুই উপদেষ্টা একমত হয়েছেন যে, মতপার্থক্য দূর করা ও দু’ দেশের মধ্যে গঠনমূলক সম্পর্ক ধরে রাখার জন্য আলোচনা অব্যাহত রাখা জরুরি।

এদিকে তুরস্কের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন টিআরটি হাবের জানিয়েছে, জেক সুলিভান ও ইবরাহিম কালিন আমেরিকা থেকে এফ-৩৫ জঙ্গিবিমান এবং রাশিয়া থেকে এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কেনার বিষয় নিয়েও আলোচনা করেন।

টিআরটি হাবের আরো জানায়, চলতি মাসের শেষ দিকে গ্লাসগোতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ও তুর্কি প্রেসিডেন্ট এরদোগানের মধ্যকার বৈঠক নিয়েও আলোচনা করেছেন দু’ দেশের উপদেষ্টারা।

তুর্কি বংশোদ্ভূত ফরাসি নাগরিক ও সমাজকর্মী ওসমান কাভালার মুক্তির দাবি জানিয়ে আমেরিকাসহ দশটি দেশের রাষ্ট্রদূত বিবৃতি দেয়ার পর তুরস্ক এসব রাষ্ট্রদূতকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এরপর তুরস্ক ও আমেরিকার উপদেষ্টাদের মধ্যে এ বৈঠক হলো।

২০১৩ সালে হওয়া তুরস্কের সরকারবিরোধী আন্দোলনে জড়িত থাকা ও ২০১৬ সালের জুলাই মাসে সংঘটিত ব্যর্থ সামরিক অভ্যুত্থানে ওসমান কাভালার সংশ্লিষ্ট থাকার অভিযোগে তাকে আটক করে তুর্কি কর্তৃপক্ষ। বর্তমানে তুরস্কের কারাগারে বন্দী আছেন কাভালা। পার্সটুডে



আরো সংবাদ