৩০ নভেম্বর ২০২১, ১৫ অগ্রহায়ন ১৪২৮, ২৪ রবিউস সানি ১৪৪৩ হিজরি
`

ফিরেই আলোচনায় শান্তা ইসলাম

ফিরেই আলোচনায় শান্তা ইসলাম - ছবি : দীপু খান

শান্তা ইসলাম একাধারে একজন অভিনেত্রী, নাট্যকার, গীতিকার, নাট্যনির্দেশক ও উপস্থাপক। পাশাপাশি তিনি একজন সমাজসেবকও বটে। বেশকিছুদিন বিরতির পর আবারো উপস্থাপনায় ফিরেছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত গুনী এই জনপ্রিয় অভিনেত্রী। শান্তা ইসলামের পরিকল্পনা, পরিচালনা ও উপস্থাপনায় এরইমধ্যে আরটিভিতে প্রচার শুরু হয়েছে ‘লাইফ ইজ বিউটিফুল’ নামের একটি অনুষ্ঠান। এরইমধ্যে অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছেন গুনী অভিনেতা নির্মাতা আফজাল হোসেন, জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত দুই অভিনেত্রী জাকিয়া বারী মম ও তমা মির্জা। আগামী পর্বে দেখা যাবে সঙ্গীতশিল্পী শাফিন আহমেদকে। এরইমধ্যে তিনটি পর্ব প্রচারের পর আবারো আলোচনায় এসেছেন শান্তা ইসলাম।

আরটিভিতে প্রচার চলতি ‘লাইফ ইজ বিউটিফুল’ অনুষ্ঠান প্রসঙ্গে শান্তা ইসলাম বলেন,‘ প্রচারের একটি কথাই আমাকে বারবার শুনতে হচ্ছে- আর সেটি হলো লাইফ ইজ বিউটিফুল একটি ক্ল্যাসিক প্রেজেন্টেসনের অনুষ্ঠান। এখানে যেসব তারকা ব্যক্তিত্বরা আসছেন তারা তাদের জীবনের মনোজগতের কথা, ঘুরে দাঁড়ানোর গল্প শেয়ার করছেন। যা দেখে অনেকেই অনুপ্রাণিত হচ্ছেন নিজেদের জীবন নিয়ে। এটা আমার জন্য আশীর্বাদ বলা চলে। আবার এই অনুষ্ঠান দেখে অনেকেই এতে অংশগ্রহনের জন্যও ইচ্ছে প্রকাশ করছেন, এটাও আসলে ভালোলাগার বিষয়। কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি যারা অনুষ্ঠানে অংশগ্রহন করছেন, আমাকে সহযোগিতা করছেন। আরটিভি কর্তৃপক্ষের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা যে তারা আমার উপর বারবার আস্থা রাখছেন। আমিতো মনেকরি আরটিভি আমার নিজের ঘর বাড়িরই মতো।’
শান্তা ইসলাম জানান প্রতি রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় আরটিভিতে সিটি আলো নারী ব্যাংকিং প্রযোজিত ‘লাইফ ইজ বিউটিফুল’ অনুষ্ঠানটি প্রচার হচ্ছে। অনুষ্ঠানে শান্তা ইসলাম তার নিজের ডিজাইন করা শাড়ি পড়ছেন। অনুষ্ঠানের টাইটেল মিউজিক করেছেন ইমন সাহা। শান্তা ইসলাম সর্বশেষ প্রায় দুই বছর আগে আরটিভিরই ‘ধ্রুপদী কাহিনী’ অনুষ্ঠানের উপস্থাপনা করেন। তারই পরিকল্পনা, পরিচালনা ও উপস্থাপনায় এটিএন বাংলার চেয়ারম্যান মাহফুজুর রহমানের সহযোগিতায় এটিএন বাংলায় প্রথম প্রচার হয় ‘শুভ সকাল’ অনুষ্ঠানটি। এটিই তার উপস্থাপনায় প্রথম অনুষ্ঠান। শান্তা ইসলাম অভিনীত প্রথম নাটক জিয়া আনসারী প্রযোজিত ‘অভিযোগ’। এতে তার বিপরীতে ছিলেন সৈয়দ আহসান আলী সিডনী।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় ১৯৮৫ সালে তিনি এ নাটকে অভিনয় করেন। তার পরিচালিত প্রথম নাটক ‘ওগো বধূ সুন্দরী’। এ নাটকে অভিনয়ের মধ্যদিয়েই নাটকে প্রথম একসঙ্গে অভিনয় করেন রিয়াজ ও পূর্ণিমা। ১৯৮৩ সালে ‘থিয়েটার’ নাট্যদলের হয়ে মঞ্চে তারিক আনাম খানের নির্দেশনায় ‘যুদ্ধ এবং যুদ্ধ’ নাটকে অভিনয় করে বেশ সাড়া ফেলেছিলেন। শেখ নিয়ামত আলীর ‘অন্য জীবন’ সিনেমাতে অভিনয় করে তিনি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে ভূষিত হয়েছিলেন।



আরো সংবাদ