২৯ নভেম্বর ২০২০

অষ্টম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের প্রস্তুতি : বিজ্ঞান ষষ্ঠ অধ্যায় : পরমাণুর গঠন

-

সুপ্রিয় অষ্টম শ্রেণীর শিক্ষার্থী বন্ধুরা, শুভেচ্ছা নিয়ো। আজ তোমাদের বিজ্ঞান বিষয়ের ‘ষষ্ঠ অধ্যায় : পরমাণুর গঠন’ থেকে একটি নমুনা সৃজনশীল প্রশ্ন ও তার উত্তর নিয়ে আলোচনা করা হলো।
নিচের উদ্দীপকটি পড়ে প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও।
জিহান চ ও ছ দু’টি গ্যাসজারে দুই ধরনের গ্যাস নিলো। সে চ জারে বায়ু অপেক্ষা হালকা গ্যাস এবং ছ জারে শ্বসনে গৃহীত হয় এমন একটি গ্যাস নিলো। গ্যাসদ্বয় বিক্রিয়া ঘটিয়ে পানি উৎপন্ন করে।
ক. পারমাণবিক সংখ্যা কাকে বলে? ১
খ. পরমাণু কখন চার্জ নিরপেক্ষ হয়Ñ বর্ণনা করো। ২
গ. উদ্দীপকে উল্লিখিত ছ জারের মৌলটির ইলেকট্রন বিন্যাস করে দেখাও। ৩
ঘ. ‘চ জারের গ্যাস মৌলটি নিউট্রন সংখ্যা পরিবর্তনের মাধ্যমে তিনটি স্থায়ী আইসোটোপ গঠন করতে পারে’Ñ উক্তিটির যথার্থতা বিশ্লেষণ করো। ৪
উত্তর : ক. কোনো মৌলের একটি পরমাণুতে প্রোটনের সংখ্যাকে ওই মৌলের পারমাণবিক সংখ্যা বলে।
খ. পরমাণু ইলেকট্রন, প্রোটন ও নিউট্রন দ্বারা গঠিত। ইলেকট্রন ঋণাত্মক আধান বিশিষ্ট, প্রোটন ধনাত্মক আধান বিশিষ্ট এবং নিউট্রন চার্জ নিরপেক্ষ। পরমাণুতে যদি ইলেকট্রনের আধিক্য দেখা দেয়, তখন পরমাণু ঋণাত্মক এবং পরমাণুতে যদি প্রোটনের আধিক্য দেখা দেয়, তখন পরমাণু ধনাত্মক আধান বিশিষ্ট হয়, কিন্তু পরমাণুতে যদি ইলেকট্রন ও প্রোটনের পরিমাণ সমান হয়ে থাকে, তখন পরমাণু আধান নিরপেক্ষ হয়।
গ. ছ জার শ্বসনে গৃহীত হয়। আমরা জানি, অক্সিজেন গ্যাস শ্বসনে গৃহীত হয়। সুতরাং ছ জারের গ্যাসটি হলো অক্সিজেন। ছ জারের মৌলটির ইলেকট্রন বিন্যাস নিচে দেখানো হলোÑ অক্সিজেনের ইলেকট্রন সংখ্যা ৮।
আমরা জানি, মৌলের পরমাণুতে কক্ষপথে ২হ২ সূত্রানুযায়ী ইলেকট্রন বিন্যাস করা হয়। সে অনুযায়ী অক্সিজেন পরমাণুর প্রথম কক্ষপথে ২টি এবং দ্বিতীয় কক্ষপথে ৬টি ইলেকট্রন থাকতে পারবে।
... অক্সিজেনের ইলেকট্রন বিন্যাস হবে ২, ৬।
পাশে ডায়াগ্রামের মাধ্যমে অক্সিজেনের ইলেকট্রন বিন্যাস দেখানো হলোÑ
ঘ. চ জারের গ্যাস মৌলটি বায়ু অপেক্ষা হালকা এবং এটি অক্সিজেনের সাথে বিক্রিয়া ঘটিয়ে পানি উৎপন্ন করে। অর্থাৎ গ্যাসটি হাইড্রোজেন। হাইড্রোজেন মৌলের তিনটি স্থায়ী আইসোটোপ সম্ভব। এগুলো হলো ১১ঐ, ২১ঐ, ৩১ঐ।
আমরা জানি, একটি মৌলের প্রতিটি পরমাণুতে নির্দিষ্ট সংখ্যক প্রোটন ও ইলেকট্রন থাকে, তবে একটি মৌলের পরমাণুতে বিভিন্ন সংখ্যক নিউট্রন থাকতে পারে। হাইড্রোজেনের পরমাণুতে পারমাণবিক সংখ্যা বা প্রোটন সংখ্যা নির্দিষ্ট এবং এর মান ১। তবে হাইড্রোজেনের বেশির ভাগ পরমাণুতে নিউট্রন সংখ্যা ০টি, তাই এদের ভরসংখ্যা ১। এ ছাড়া কিছু হাইড্রোজেন পরমাণুতে নিউট্রন সংখ্যা ১টি এবং আবার কিছুতে ২টি। তাই এদের ভর সংখ্যা হয় ১+১=২ এবং ১+২=৩। অর্থাৎ প্রত্যেক ক্ষেত্রে নিউট্রন সংখ্যার পরিবর্তন হওয়ায় ভর সংখ্যারও পরিবর্তন হয়েছে। এভাবে নিউট্রন সংখ্যার পরিবর্তনের মাধ্যমে হাইড্রোজেনের ৩টি স্থায়ী আইসোটোপ উৎপন্ন হয়েছে।

 


আরো সংবাদ