০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৯ মাঘ ১৪২৯, ১০ রজব ১৪৪৪
ads
`

বিএনপির সমাবেশ ঘিরে সিলেটে বাড়তি নিরাপত্তা

-

নয়া পল্টনে পুলিশের সাথে বিএনপি নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষের পর সারাদেশে নিরাপত্তা জোরদার করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এরই ধারাবাহিকতায় সিলেটেও সতর্কাবস্থায় রয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। বাড়ানো হয়েছে পুলিশী টহল ও বাড়তি নিরাপত্তা। নগরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে মোতায়েন করা হয়েছে পুলিশ। প্রবেশ পথে তল্লাশি চৌকি বসিয়ে গাড়ির যাত্রীদের জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।

এদিকে ঢাকায় বিএনপির গণসমাবেশ নিয়ে দেশজুড়ে উদ্বেগ, উত্তেজনা ও আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। এ সমাবেশ ঠেকাতে সরকার গণগ্রেফতার শুরু করেছে বলে অভিযোগ করেছে বিএনপি। তবে এসব অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে পুলিশ বলছে, মামলার আসামি, গ্রেফতারি পরোয়ানা ছাড়া কাউকে গ্রেফতার কিংবা হয়রানি করছে না পুলিশ।

এ তথ্য জানিয়ে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার (উত্তর) আজবাহার আলী শেখ নয়া দিগন্তকে বলেন, উদ্ভূত যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবিলাসহ মানুষের জানমালের নিরাপত্তা দিতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ১০টি টিম মাঠে রয়েছে। এখন পর্যন্ত সিলেট মহানগরী শান্ত রয়েছে। শান্তিপূর্ণভাবে যে কেউ তাদের কার্যক্রম করতে পারবে। তবে সভা-সমাবেশ, বিক্ষোভ ও মিছিলের নামে কোনো অরাজকতার চেষ্টা করলে পুলিশ প্রতিহিত করবে।

বৃহস্পতিবার (৮ ডিসেম্বর) নগর ঘুরে দেখা গেছে, বিভিন্ন পয়েন্টে পুলিশ সদস্যরা ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার নেতৃত্বে স্ট্যান্ডবাই ডিউটিতে রয়েছেন। বিশেষ করে চৌহাট্টা পয়েন্টে এসএমপির উপ-কমিশনার (উত্তর) আজবাহার আলীর নেতৃত্বে সতর্ক অবস্থায় রয়েছে পুলিশ। এছাড়া জিন্দাবাজার, আম্বরখানা, বন্দরবাজার, মেন্দিবাগ, সোবহানীঘাট, জিতু মিয়ার পয়েন্ট, রিকাবীবাজার, হুমায়ুন রশিদ চত্বরসহ নগরের প্রবেশপথগুলোতে কর্মকর্তাদের নেতৃত্বে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা কঠোর অবস্থানে রয়েছেন।

মহানগর পুলিশ সূত্র জানায়, ঢাকায় সংঘর্ষের ঘটনার পর বুধবার সন্ধ্যার পর থেকে মানুষের জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সবকটি ইউনিটকে সতর্কাবস্থায় রাখা হয়েছে। রাতেও পুলিশের টহল জোরদার করা হয়। পাশাপাশি বিএনপির অপতৎপরতা রুখতে গোয়েন্দা নজরদারিতে রয়েছেন সংগঠনের নেতাকর্মীরা। কোথাও বিক্ষোভ সমাবেশের নামে অরাজকতার চেষ্টা চালানো হলে তাৎক্ষণিক অ্যাকশনে যেতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নির্দেশনা দেয়া আছে।

অন্য আরেটি সূত্র জানায়, বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের যেসব নেতাদের ইশারায় নগরে অরাজকতা সৃষ্টি হতে পারে তাদের গতিবিধির ওপর নজরদারি চলছে। পাশাপাশি রাজনৈতিক দুর্বৃত্ত ও বিভিন্ন নাশকতার মামলার আসামিদের গ্রেফতারে বিশেষ অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলেও জানান ঊর্ধ্বতন এক পুলিশ কর্মকর্তা।

সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (মিডিয়া) সুদীপ দাস নয়া দিগন্তকে বলেন, বৃহস্পতিবার সকাল থেকে নগরের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টগুলোতে সাদা পোশাকে পুলিশ মোতায়েন রাখা হয়েছে। সেইসাথে টহল বাড়ানো হয়েছে। তবে কত সংখ্যক পুলিশ মাঠে রয়েছে, এ বিষয়টি কনফিডেন্সিয়াল।

তিনি বলেন, বিএনপি ও অংঙ্গসংগঠনের কাউকে আটক করা হয়নি। কেবল ওয়ারেন্টভুক্ত একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।


আরো সংবাদ


premium cement