১০ ডিসেম্বর ২০২২, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ১৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

শত্রুদের ফাঁসাতে মেয়েকে হত্যা করলেন বাবা : আদালতে দায় স্বীকার

শত্রুদের ফাঁসাতে মেয়েকে হত্যা করলেন বাবা : আদালতে দায় স্বীকার - প্রতীকী ছবি

কুলাউড়ায় শত্রুদের ফাঁসাতে বাবা খুন করলেন মেয়েকে। নিজের মেয়েকে খুন করার বিষয়ে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন বাবা।

রোববার দুপুরে কুলাউড়া থানা পুলিশ সংবাদ সম্মলন করে এ তথ্য জানায়।

পুলিশ জানায়, গত ২৭ সেপ্টেম্বর সকালে কুলাউড়া থানাধীন পৃথিমপাশা সাকিনস্থ কামাল মাস্টারের বাড়ির ভাড়াটিয়া দিগিন্দ নম (৩৫), (বাবা-পিরিন্দ্র সরকার, সাং-গুমগুমিয়া, থানা-নবীগঞ্জ, জেলা-হবিগঞ্জ) এর প্রতিবন্ধী মেয়ে পপি সরকারের (১২) লাশ দিগিন্দ নমের ভাড়াটিয়া বসত ঘরের দক্ষিণ পাশের গাছ বাগানে গলায় ওড়না দিয়ে গিট দেয়া অবস্থায় পাওয়া যায়। উক্ত ঘটনার সংবাদ প্রাপ্তি সাপেক্ষে কুলাউড়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে পপির লাশের সুরতহাল রিপোর্ট প্রস্তুত করে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেন।

পুলিশ জানায়, পরে পপির বাবা একই গ্রামের প্রতিবেশী সুরমান মিয়া ও কাজল মিয়াসহ অজ্ঞাতনামা দুই থেকে তিনজনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন। মামলা রুজুর পর পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো: আমিনুল ইসলামের নেতৃত্বে মামলারতদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মো: হারুনুর রশিদসহ কুলাউড়া থানার একটি চৌকস টিম মামলার রহস্য উদঘাটনে মাঠে কাজ শুরু করে।

তারা জানায়, তদন্তের একপর্যায়ে মৃত পপি সরকারের ঘরের দক্ষিণ পাশের জানালার সামনে বারান্দায় ঝুলানো ‘মঞ্জিল মায়া সল্ট’ নামক একটি বিস্কুটের প্যাকেট উদ্ধার করে তদন্তকারী দল। ওই প্যাকেটের সূত্র ধরে তদন্তকারী দল সরেজমিনে অনুসন্ধানে পাশের একটি মুদি দোকানে একই রকম কয়েকটি বিস্কুটের প্যাকেট উদ্ধার করে। মুদি দোকানদারকে জিজ্ঞাসাবাদে তিনি জানান যে, ঘটনার আগের দিন পপির বাবা দিগিন্দ নম তার দোকান থেকে উদ্ধার করা ১০ টাকা মূল্যের একটি মঞ্জিল মায়া সল্ট বিস্কুটসহ ১০ টাকার মিনিট কার্ড ও কয়েকটি সিগারেট ক্রয় করেন। প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে মামলার ঘটনায় বাদি দিগিন্দ নম জড়িত মর্মে জোর সন্দেহ হইলে দিগিন্দ নমকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। পরে তিনি দোকান থেকে বিস্কুট ক্রয় করার কথা স্বীকার করেন।

পুলিশ আরো জানায়, দিগিন্দ নম তার প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে উক্ত বিস্কুটের প্যাকেট তার মেয়ের ঘরের জানালার সামনে বারান্দায় ঝুলাইয়া রেখে মেয়েকে বিস্কুট খাওয়ানোর প্রলোভন দেখানোর নাটক সাজায়। পরে ভিকটিমের বাবাকে পুলিশি হেফাজতে নিয়ে নিবিড়ভাবে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার যে, গত ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ খ্রিস্টাব্দ রাত আনুমানিক ৪টার সময় তার মেয়ে পপি সরকার মৃগী রোগে আক্রান্ত হলে তিনি নিজেই তার মেয়ের গলায় ওড়না পেচিয়া হত্যা করে। আর লাশ ঘরের পাশে গাছ বাগানের নিচে ফেলে দেন। ঘটনার পর দিগিন্দ নম পুনরায় তাহার রুমে এসে শুয়ে থাকে।

পুলিশ জানায়, হত্যার ঘটনা সাজিয়া পরের দিন সকালে তার মেয়ে পপি সরকারের লাশ গাছ বাগানে পাওয়া গেছে বলে দিগিন্দ নম নিজেই বাড়ির মালিক কামাল মাস্টার, স্থানীয় ইউপি সদস্যসহ আশপাশের লোকজনদের জানায়। পূর্ব বিরোধের জেরে প্রতিবেশী সুরমান মিয়া ও কাজল আলীকে হত্যার দায়ে ফাঁসানোর উদ্দেশ্যে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে দিগিন্দ নম তার মেয়ে পপি সরকারকে নিজেই গলায় ওড়না পেচিয়ে হত্যা করে। মামলার বাদি দিগিন্দ নম গত ১ অক্টোবর তার মেয়ে পপি সরকারকে হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে ১৬৪ ধারা মোতাবেক জবানবন্দি প্রদান করে। আদালত তার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি গ্রহণ শেষে জেল হাজতে প্রেরণ করেন।

সংবাদ সম্মেলনে ওসি মো: আব্দুছ ছালেক জানান, মেয়েটি আগে ধর্ষণ হয়েছে কিনা তা ফরেনসিক রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পর জানা যাবে। ইতোপূর্বে আইসক্রিম বিক্রেতাসহ যে দু’জনকে আটক করা হয়েছে সে বিষয়ে তদন্ত সাপেক্ষ ব্যবস্থা নেয়া হবে।


আরো সংবাদ


premium cement