২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৩ আশ্বিন ১৪২৯, ১ রবিউল আওয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

মজুরি বৃদ্ধির দাবিতে সিলেটে চা-শ্রমিকদের মিছিল

মজুরি বৃদ্ধির দাবিতে সিলেটে চা-শ্রমিকদের মিছিল - প্রতীকী ছবি

৩০০ টাকা মজুরির দাবিতে বাংলাদেশ চা-শ্রমিক ইউনিয়নের ডাকে চট্টগ্রাম, সিলেটসহ সারাদেশের ২৩১টি বাগানের চা-শ্রমিকেরা ধর্মঘট পালন করছেন। গত শনিবার থেকে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট শুরু করেছেন তারা। চা-শ্রমিকদের ধর্মঘট নিরসনে মঙ্গলবার মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে শ্রমিক নেতাদের সাথে বৈঠক করেছেন বাংলাদেশ শ্রম অধিদফতরের মহাপরিচালক খালেদ মামুন চৌধুরী। তবে বৈঠকটি ফলপ্রসূ হয়নি।

এদিকে দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন শ্রমিক নেতারা। বুধবার সকাল ১০টার দিকে মালনিছড়া চা বাগানে মন্দিরের পাশে শ্রমিকদের জড়ো হতে দেখা যায়। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে তারা মজুরি বাড়ানোর দাবিতে মিছিল বের করেন। পরে লাক্কাতুরা চা-বাগানের শ্রমিকেরাও ওই মিছিলে যোগ দেন। মিছিলটি সিলেট বিমানবন্দর সড়ক হয়ে লাক্কাতুরা চা-বাগানের কার্যালয়ের সামনে এসে পৌঁছায়। সেখানে কিছু সময় অবস্থানের পর শ্রমিকেরা আবার মিছিল নিয়ে লাক্কাতুরা চা-বাগানের দিকে চলে যান।

কর্মসূচিতে অংশ নেয়া চা-শ্রমিক বিক্রম লোহার বলেন, ‘শ্রমিকেরা কাজ করতে প্রস্তুত। কিন্তু আমাদের প্রাপ্য মজুরি দিতে হবে। দীর্ঘ দিন ধরে চা-শ্রমিকেরা বঞ্চিত হয়ে আসছেন। মজুরি, চিকিৎসা, শিক্ষা, বাসস্থানসহ বিভিন্ন দিকে আমাদের পিছিয়ে রাখা হয়েছে। এখন আমরা আমাদের প্রাপ্য দাবি চাইছি।’

চা-শ্রমিক ইউনিয়ন সিলেট ভ্যালির সভাপতি রাজু গোয়ালা বলেন, মজুরি বাড়ানো না হলে আন্দোলন ও ধর্মঘট চলবে।

এ ব্যাপারে সিলেটের বাগানমালিকপক্ষের বেশ কয়েকজনের সাথে যোগাযোগ করা হলে কেউ বক্তব্য দিতে রাজি হননি।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে চা-বাগানের এক কর্মকর্তা বলেন, পাঁচ দিন ধরে চা উৎপাদন বন্ধ রয়েছে। এতে চা-শিল্পে প্রভাব পড়ছে। এমনিতেই চা-শিল্প বিভিন্ন কারণে বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। এর মধ্যে শ্রমিকদের এমন ধর্মঘটে এই শিল্প খাত আরো ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। বাগানে নতুন পাতা গজিয়েছে। পাতাগুলো এখনই তোলা না হলে সেগুলো মান হারাবে। এজন্য বিষয়টি এখনই সমাধান প্রয়োজন।


আরো সংবাদ


premium cement