২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০

মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় ৫ সদস্যের পরিবারের কেউই বেঁচে থাকল না

মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় ৫ সদস্যের পরিবারের কেউই বেঁচে থাকল না - ফাইল ছবি

তিন দিন চিকিৎসাধীন থেকে অবশেষে মারা গেলো ঈদের আগের দিন সিলেটের ওসমানীনগরে মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় আহত সৌরভ দাস। সৌরভের বাবা মা ও দুই ভাই ওই সড়ক দুর্ঘটনায় ঘটনাস্থলেই মারা যায়। সৌরভের বাড়ি সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার শ্যামারচর (বাগহাটি) গ্রামে। তার মৃত্যুতে পাঁচ সদস্যের পরিবারে কেউই আর বেঁচে রইলো না।

শনিবার রাত সাড়ে ১০টায় সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় সৌরভ দাস ।

জানা যায়, ঈদুল আজহার আগের দিন  শুক্রবার ব্রাক কর্মকর্তা স্বপন কুমার দাসের সাথে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ থেকে ঈদের ছুটিতে পরিবার নিয়ে গ্রামের বাড়ি দিরাই উপজেলার শ্যামারচর যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে সকাল সাড়ে ৭টায় ঢাকা- সিলেট মহাসড়কে ওসমানীনগর থানার বড়াইয়া চাঁনপুর নামক স্থানে কুমিল্লা টান্সপোর্টের একটি বাসের সাথে তাদের বহনকারী কারের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। ঘটনাস্থলেই মারা যান বাবা স্বপন কুমার দাস, মা লাভলী রানী দাশ ও সৌরভের দুই জমজ ভাই শৈবাল দাস এবং সৌমিত্র দাস (৮)। দুর্ঘটনায় সৌরভ তৎক্ষণাৎ প্রাণে বেঁচে গেলেও তিনদিন জীবন-মৃত্যুর মুখোমুখি থেকে অবশেষে মারা গেল সৌরভও।

সৌরভের একমাত্র কাকা সমর দাস জানান, আমার একমাত্র ছোট ভাই স্বপন প্রত্যেক ঈদ ও দুর্গাপুজার ছুটিতে পরিবারের সবাইকে নিয়ে বাড়িতে আসতো। পরিবারের সবার মতো সৌরভও একই ঘটনায় মারা গেল।


আরো সংবাদ