০২ অক্টোবর ২০২২, ১৭ আশ্বিন ১৪২৯, ৫ রবিউল আওয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

মিয়ানমারের গ্রামে সেনাবাহিনীর অগ্নিসংযোগ, বিরোধী কমান্ডারের ২ শিশুসন্তান নিহত

মিয়ানমার থেকে মিজোরামে ঢুকছে শরণার্থীরা। - প্রতীকী ছবি

ভারত সীমান্তের কাছে মিয়ানমারের গ্রাম জ্বালিয়ে দেয়ার অভিযোগ উঠেছিল সেখানকার বাহিনীর বিরুদ্ধে। সেই ঘটনায় দুই নাবালক ভাইবোনের মৃত্যুও হয়। এরপরেই হুলস্থূল পড়ে যায় মিজোরাম-মিয়ানমার সীমান্তে। পরিস্থিতি এতটাই ঘোলাটে যে মিয়ানমার থেকে সীমান্ত টপকে অনেকেই আতঙ্কে ভারতের মিজোরামে ঢুকে পড়েছে।

জোখাওয়াতার ভিলেজ কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট লালমুয়ানপুইয়া জানিয়েছেন, মিয়ানমার থেকে শতাধিক লোক ঢুকে পড়েছে মিজোরামে। মিয়ানমারের বাহিনী হাইমায়ুল গ্রামে আগুন ধরিয়ে দিয়েছিল। রোববার সেই ঘটনায় সিভিল ডিফেন্স ফোর্সের এক নেতার দুই সন্তানের মৃত্যুও হয়েছে।

লালমুয়ানপুইয়ার দাবি, মিয়ানমারের বাহিনী অন্তত ১৫টি বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দিয়েছিল। মিয়ানমারের গ্রাম থেকে এমনটাই তথ্য মেলেছে।

লালজিডিঙ্গে নামে লোকাল পিপলস ডিফেন্স ফোর্সের এক কমান্ডারের দুই নাবালক সন্তানের এই ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে। কোনোরকমে পালিয়ে যান ওই কমান্ডার। একটি জঙ্গল থেকে ওই ভাইবোনের লাশ পাওয়া যায়।

এদিকে মিজোরাম সীমান্ত সংলগ্ন ওই গ্রামে সম্প্রতি এনকাউন্টার হয়েছিল। মিয়ানমার আর্মি ক্যাম্পেও হামলা চালানো হয়েছিল বলে অভিযোগ। তবে এই ঘটনার পরে ঠিক কতজন মিজোরামে ঢুকে পড়েছে এনিয়ে সরকারি সূত্রে কোনো খবর মেলেনি।

এদিকে মিয়ানমার থেকে শরণার্থীদের একাংশ মিজোরামের শরণার্থী শিবিরে অংশ নিচ্ছেন। তাদের সরকারি তরফে খাবার ও অন্যান্য সামগ্রী দেয়া হচ্ছে। বাড়ি ভাড়া নিতেও উদ্বাস্তুদের সহায়তা করা হচ্ছে। প্রায় ১৫৬টি শরণার্থী শিবির খোলা হয়েছে মিজোরামে।

সূত্র : হিন্দুস্থান টাইমস


আরো সংবাদ


premium cement