১৩ আগস্ট ২০২২
`
শীর্ষ আদালতে দায়ের পালটা পিটিশন

নূপুরকে নিয়ে করা মন্তব্য ফেরাতে হবে সুপ্রিম কোর্টকে

নূপুরকে নিয়ে করা মন্তব্য ফেরাতে হবে সুপ্রিম কোর্টকে - ছবি: সংগৃহীত

বহিষ্কৃত বিজেপি মুখপাত্র নূপুর শর্মাকে তার বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য তীব্র ভর্ৎসনা করেছে সুপ্রিম কোর্ট। এরপরই একটি নতুন পিটিশন জমা পড়ে সুপ্রিম কোর্টে। সেই পিটিশনে বলা হয়েছে, বিচারপতি কান্ত নূপুরকে নিয়ে যে পর্যবেক্ষণ করেছেন, তা তাকে ফিরিয়ে নিতে হবে।

শীর্ষ আদালতের পর্যবেক্ষণ, ‘নূপুরের মন্তব্যের জন্যই দেশে হিংসাত্মক পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে, দেশে আগুন জ্বলছে। এমনকী উদয়পুরের নৃশংস ঘটনার নেপথ্যেও দায়ী নূপুর শর্মার উসকানিমূলক মন্তব্য। এর জন্য ক্ষমা চাইতেও দেরি করেছেন তিনি। তার উচিত প্রকাশ্যে সকলের কাছে ক্ষমা চাওয়া।’

ঠিক কী দাবি পিটিশন দাখিলকারীদের? তাদের বক্তব্য, নূপুর এখনো অপরাধী সাব্যস্ত হননি। তাকে দায়ী করলে কি দেশে ঘৃণার রাজনীতি ও বৈষম্য কমবে?

উল্লেখ্য, মোহাম্মদ সা:-কে নিয়ে নূপুর শর্মার মন্তব্যের প্রতিবাদে উত্তাল হয়ে উঠেছিল গোটা দেশ। নানা প্রান্তে বিক্ষোভ, অবরোধ শুরু হয়। সেই সাথে পশ্চিমবঙ্গসহ বিভিন্ন রাজ্যের থানাগুলিতে এফআইআর হয় তার বিরুদ্ধে।

সুপ্রিম কোর্টে তার আবেদন ছিল, সব মামলা এক জায়গায় স্থানান্তর করা হোক। তিনি তদন্তে সহযোগিতা করবেন। প্রাণনাশের হুমকি পাচ্ছেন বলেও জানান বিতর্কিত নেত্রী। কিন্তু সেই মামলাতেই তাকে ভর্ৎসনার মুখে পড়তে হয়েছে। এবার তার বিরোধিতা করেও দায়ের হলো পিটিশন।

এদিকে উদয়পুরের নৃশংস হত্যাকাণ্ডের পরে এখনো থমথমে রাজস্থান। ১৩ জুলাই জেল হেফাজতের নির্দেশ দেয়া হয়েছে দুই অভিযুক্তকে। এর মধ্যে জানা গেছে, যে বাইকে করে অভিযুক্তরা পালাতে চেষ্টা করছিল, তার নম্বরের শেষ চারটি সংখ্যা ২৬১১। যা থেকে পরিষ্কার, ২৬/১১ হামলার কথা মাথায় রেখেই ওই নম্বরপ্লেট ব্যবহার করছিল আততায়ীরা।

তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পারে, অন্যতম অভিযুক্ত রিয়াজ আখতারি ২০১৩ সালে এক হাজার টাকা খরচ করে ওই নম্বর নিয়েছিল ওই উগ্রবাদী।

এদিকে শুক্রবার আরো দুই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মহসিন ও আরিফ নামের ওই দু’জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে হত্যাকাণ্ডের পরিকল্পনায় অংশ নেয়ার। বাকি দুই অভিযুক্তের সাথে তাদেরও জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।

সূত্র : সংবাদ প্রতিদিন


আরো সংবাদ


premium cement