০৭ জুলাই ২০২২, ২৩ আষাঢ় ১৪২৯, ৭ জিলহজ ১৪৪৩
`

নিবিড় সম্পর্ক ভারত-আমেরিকার : বাইডেন

নিবিড় সম্পর্ক ভারত-আমেরিকার : বাইডেন - ছবি : সংগৃহীত

ইউক্রেন যুদ্ধ আবহে রাশিয়ার থেকে ভারতকে কাছে টানার মরিয়া চেষ্টা চালাচ্ছে আমেরিকা। এবার ভারতের সাথে তাদের ‘বিশ্বে অন্যতম নিবিড়’ সম্পর্ক বলে দাবি করলেন ওই দেশের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। করোনা টিকাকরণে ভারতের ভূমিকার ভূয়সী প্রশংসা করে জানালেন, দু’দেশের একজোট হয়ে আরো অনেক কিছু করে দেখানোর রয়েছে। ‘কোয়াড সম্মেলনে’র মঞ্চে বাইডেনের এই মন্তব্য রাজনৈতিক দিক থেকে অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ। কেননা, ভারত ছাড়া সংগঠনের বাকি তিন সদস্য (আমেরিকা, জাপান ও অস্ট্রেলিয়া) সরাসরি ইউক্রেনের পাশে দাঁড়িয়ে রাশিয়ার আক্রমণের তীব্র নিন্দা করেছে।

সোমবার শুরু হয় দ্বিতীয় কোয়াড সম্মেলন। সেইমতো টোকিওতে হাজির হন আন্তর্জাতিক ফোরামের সদস্য রাষ্ট্রনেতারা। সম্মেলনের ফাঁকে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করেন মোদি-বাইডেন। বৈঠকে ভারতের কোভিড টিকাকরণের ভূয়সী প্রশংসা করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। তিনি বলেন, টিকা উৎপাদন, ক্লিন এনার্জির মতো ক্ষেত্রকে এগিয়ে নিয়ে যেতে ইউএস ডেভেলপমেন্ট ফিনান্স কর্পোরেশনের সাথে চুক্তি করেছে ভারত। এরপরেই বাইডেন জানান, আমেরিকা-ভারত সম্পর্ক বিশ্বের নিবিড় সম্পর্কগুলির মধ্যে অন্যতম। ভারত-আমেরিকা ভ্যাকসিন অ্যাকসন প্রোগ্রাম পুনর্নবীকরণ করা হচ্ছে। একজোট হয়ে দুই দেশের আরও অনেক কিছু করার রয়েছে। অস্ট্রেলিয়ার নয়া প্রধানমন্ত্রী অ্যান্তোনি আলবানেসকে ভারতীয় আদিবাসীদের বিখ্যাত ‘গন্ড পেন্টিংস’ উপহার দেন মোদি।

একইসাথে নরেন্দ্র মোদিও ভারত-মার্কিন সম্পর্ককে ‘বিশ্বাসের অংশীদারিত্ব’ বলে আখ্যা দেন। তিনি বলেন, সুরক্ষিত, সমৃদ্ধ ও মুক্ত পৃথিবী গড়তে বাইডেনের সাথে একজোটে কাজ করতে দায়বদ্ধ। প্রতিরক্ষা ও আর্থিক অগ্রগতিতে দু’দেশের সম্পর্ক নয়া উচ্চতায় পৌঁছবে। পরে টুইটারে মোদি লেখেন, জো বাইডেনের সঙ্গে বাণিজ্য, লগ্নি, প্রতিরক্ষা ও পারস্পরিক সম্পর্ক নিয়ে গঠনমূলক আলোচনা হয়েছে। বিদেশমন্ত্রকও জানিয়েছে, দুই দেশ আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স, কোয়ান্টাম কম্পিউটিং, ফাইভ-জি, সিক্স-জি, বায়োটেক, স্পেস ও সেমিকনডাক্টর তৈরিতে সহযোগিতা করবে।

এছাড়া, ইউক্রেনের বিরুদ্ধে রাশিয়ার আক্রমণ নিয়েও আলোচনা করেন বাইডেন-মোদি। বিশ্বের উপর এই যুদ্ধ কতটা প্রভাব ফেলেছে, সেই বিষয়টি দুই রাষ্ট্রনেতার বৈঠকে উঠে আসে। বাইডেনের কথায়, কীভাবে যুদ্ধের নেতিবাচক প্রভাব কাটিয়ে ওঠা যায়, আমেরিকা ও ভারত তার উপর নজর রাখছে।

গত বছরের মার্চে প্রথম ভার্চুয়াল কোয়াড সম্মেলনে বসেছিলেন সদস্য রাষ্ট্রনেতারা। তারপর ওয়াশিংটনে সেপ্টেম্বরে অনুষ্ঠিত হয় ফিজিক্যাল সামিট। একইভাবে গত মার্চেও হয়েছিল কোয়াডের ভার্চুয়াল সম্মেলন।
সূত্র : বর্তমান


আরো সংবাদ


premium cement