০৭ জুলাই ২০২২, ২৩ আষাঢ় ১৪২৯, ৭ জিলহজ ১৪৪৩
`

অন্ধ্রপ্রদেশে মন্ত্রীর বাড়িতে উত্তেজিত জনতার আগুন

রাস্তায় বিক্ষোভ। - ছবি : সংগৃহীত

জেলার নাম বদলের প্রতিবাদে ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশের পরিবহনমন্ত্রীর বাড়িতে আগুন লাগিয়ে দিয়েছে বিক্ষুব্ধ জনতা। মঙ্গলবার (২৪ মে) সন্ধ্যায় অন্ধ্রের এই ঘটনায় মন্ত্রী ও তার পরিবারকে নিরাপদ জায়গায় সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হলেও তাদের বাঁচাতে গিয়ে গুরুতর আহত হয়েছেন ২০ জন পুলিশকর্মী।

ঘটনাটির নিন্দা করে অন্ধ্রের স্বরাষ্ট্রসচিব জানিয়েছেন, মূল দোষীদের গ্রেফতার করে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেয়ার ব্যবস্থা করছে সরকার।

অন্ধ্রের একটি নতুন জেলার নাম বদল নিয়ে মঙ্গলবার সকাল থেকেই বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেছিলেন ওই জেলার সদর অমলাপুরমের বাসিন্দারা। বিক্ষোভ চলাকালে হঠাৎই পরিবহনমন্ত্রীর বাড়িতে আগুন লাগিয়ে দেয় তারা।

অন্ধ্রের ওই মন্ত্রীর নাম পিনিপি বিশ্বরুপু। তিনি মুখ্যমন্ত্রী জগনমোহন রেড্ডির দলেরই নেতা। জগনের বাবা রাজশেখর রেড্ডির সময় থেকেই অন্ধ্রপ্রদেশের বিভিন্ন দফতরের মন্ত্রিত্ব সামলেছেন ৬০ বছর বয়সী পিনিপি।

গত ৪ এপ্রিল অন্ধ্রের একটি নতুন জেলার নাম ঘোষণা করা হয়। পূর্ব গোদাবরী জেলা ভেঙে তৈরি হয় কোনাসীমা জেলা। এই কোনাসীমার নাম বদল নিয়েই বিতর্কের সূত্রপাত। প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোনাসীমার নাম বি আর আম্বেদকর কোনাসীমা বলে ঘোষণা করা হলে তার বিরোধিতা শুরু করেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

গত সপ্তাহেই এ ব্যাপারে একটি প্রাথমিক নির্দেশিকা এনেছিল অন্ধ্রের জগনমোহন সরকার। একইসাথে নামবদল নিয়ে কোনোরকম আপত্তি থাকলে তা-ও জানাতে বলা হয়েছিল সরকারকে। কিন্তু নামবদল নিয়ে আপত্তি তুলে সরাসরি পথেই নামে কোনাসীমার মানুষ।

অপর একটি সূত্র জানিয়েছে, মঙ্গলবার অমলাপুরমে শাসকদলের বিধায়ক পোন্নাডা সতীশের বাড়িতেও আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়েছে।

সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা


আরো সংবাদ


premium cement