২২ মে ২০২২
`

গণধর্ষণের পর বর্বর নির্যাতন, ভিডিও ছড়ানো হলো সামাজিক মাধ্যমে

ভিডিওতে ওই নারীকে নির্যাতনের চিত্র তুলে রাখা হয়েছে। - ছবি : সংগৃহীত

ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবসে বুধবার দুপুরে ভয়াবহ এ ঘটনা ঘটানো হয়েছে দেশটির রাজধানীতে। এক নারীকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণের পর করা হয় বর্বর নির্যাতন। এখানেই শেষ নয়, সে নির্যাতনের ভিডিও ধারণ করে তুলে দেয়া হয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে।

অভিযোগে জানা যায়, ২১ বছর বয়সী এক নারীকে কয়েকজন তুলে নিয়ে যায়। এরপর অন্তত দুজন তার উপর যৌন নির্যাতন করে। তাকে গণধর্ষণ করা হয় বলেও অভিযোগ। তার চুল কেটে, মুখে কালো রঙ মাখিয়ে, গলায় জুতার মালা পরিয়ে পাড়ায় ঘোরানো হয়।

পূর্ব দিল্লির এই ঘটনাকে ঘিরে আবারো দেশটিতে নারী সুরক্ষা নিয়ে বড় প্রশ্ন উঠেছে। এমনকী যখন ওই নারীকে প্রকাশ্যে হেনস্থা করা হচ্ছে তখন তাকে বাঁচানো তো দূরের কথা, গোটা ঘটনার ভিডিও তোলা হয়। এরপর তা সোস্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দেয়া হয়।

কিন্তু কেন ওই নারীকে এভাবে হেনস্থা করার কারণ হিসেবে জানা যায়, গত নভেম্বর মাসে স্থানীয় ১৬ বছর বয়সী এক কিশোর রেললাইনে আত্মহত্যা করেছিল। তার সাথে ওই নারীর সম্পর্ক ছিল বলে দাবি করা হচ্ছে। সেই সম্পর্কের টানাপোড়েনেই কিশোরটি আত্মহত্যা করে বলে তার পরিবারের দাবি। আর সেই আক্রোশেই ওই নারীকে এভাবে প্রকাশ্যে হেনস্থা করা হয়েছে বলে অভিযোগ। যারা এই ঘটনার সাথে জড়িত তারা সবাই ওই কিশোরের আত্মীয়।

পুলিশ জানিয়েছে, মৃত কিশোরের আত্মীয় পাঁচ নারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের মধ্যে তিনজন আবগারি আইনে আগেই অভিযুক্ত ছিলেন। যে দুজন ওই নারীকে যৌন হেনস্থা করেছে তাদের খোঁজ চলছে।

পুলিশের দাবি, বুধবার বেলা ১টা ১৮ মিনিট নাগাদ খবর এসেছিল ওখানে এক নারীকে হেনস্থা করা হচ্ছে। তবে কয়েক মিনিটের মধ্যে পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে।

এদিকে ওই নারী বিবাহিতা। তার স্বামী একজন সাফাইকর্মী। নির্যাতিতাকে পুলিশি সুরক্ষায় রাখা হয়েছে।

সূত্র : হিন্দুস্থান টাইমস, টাইমস অফ ইন্ডিয়া


আরো সংবাদ


premium cement