২৮ জানুয়ারি ২০২২, ১৪ মাঘ ১৪২৮, ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৪৩
`

রুশ অস্ত্র কিনলে নিষেধাজ্ঞা, ভারতকে বার্তা যুক্তরাষ্ট্রের

রাশিয়ার তৈরি অস্ত্র-রুশ অস্ত্র কিনলে নিষেধাজ্ঞা-ভারত-যুক্তরাষ্ট্র
রুশ অস্ত্র কিনলে নিষেধাজ্ঞা, ভারতকে বার্তা যুক্তরাষ্ট্রের - ফাইল ছবি

রাশিয়ার তৈরি অস্ত্র কিনলে নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়তে হবে। শুক্রবার মিত্র দেশগুলোকে এমনটাই হুঁশিয়ারি দিল যুক্তরাষ্ট্র। মস্কো থেকে হাতিয়ার আমদানি করলে মার্কিন কাটসা আইনে (কাউন্টারিং আমেরিকাস অ্যাডভারসারিস থ্রু স্যাংশনস অ্যাক্ট) ভারতকেও যে অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়তে হবে পরোক্ষে সেই ইঙ্গিতও দিল ওয়াশিংটন।

সংবাদ সংস্থা এএনআইকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র বলেন, আমরা সকল বন্ধু দেশের কাছে আবেদন করছি তারা যেন রাশিয়ার তৈরি এমন কোনো অস্ত্র আমদানি না করে যার ফলে তাদের কাটসা আইনে নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়তে হতে পারে। রাশিয়ার সাথে অস্ত্রচুক্তি নিয়ে ভারতকে ছাড় দেয়ার বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্তই হয়নি। কাটসা আইনে কোনো এক বিশেষ দেশকে ছাড় দেয়ার কোনো বিধান নেই।

এদিকে, প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী অজয় ভাট লোকসভায় স্পষ্ট জানিয়েছেন, রুশ এস-৪০০ মিসাইল ডিফেন্স সিস্টেম কেনার বিষয়টি একটি সার্বভৌম দেশের সিদ্ধান্ত। নিরাপত্তা পরিস্থিতি ও ফৌজের চাহিদার কথা মাথায় রেখে সরকার হাতিয়ার ক্রয় করে। নির্দিষ্ট সময়েই এস-৪০০ ভারতের হাতে আসবে।

উল্লেখ্য, রুশ মিসাইল সিস্টেম নিয়ে তুঙ্গে পৌঁছেছে ভারত-আমেরিকার টানাপোড়েন। সম্প্রতি ভূমি থেকে আকাশ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরোধ ব্যবস্থা বা মিসাইল সিস্টেম ‘এস- ৪০০ ট্রায়াম্ফ’ ভারতে পাঠানো শুরু করেছে রাশিয়া। সামরিক বিষয়ে ওয়াকিবহাল মহলের দাবি, এর ফলে এক ধাক্কায় অনেকটাই শক্তি বেড়ে গেল ভারতীয় সেনার।

শত্রুপক্ষের যুদ্ধবিমান ও দূরপাল্লার ক্রুজ মিসাইল মোকাবেলায় ‘এস- ৪০০’ মিসাইলের বিকল্প নেই। ভারত এমন একটি সময় এই ক্ষেপণাস্ত্র হাতে পাচ্ছে, যখন প্রতিবেশী চীনের সাথে সীমান্ত নিয়ে গোলমাল চলছে। তা নিয়ে লাদাখ, অরুণাচলে এখনো উত্তপ্ত পরিস্থিতি।

প্রসঙ্গত, ভারত প্রথম দেশ নয় যার বিরুদ্ধে এই এস-৪০০ (S-400) কেনার জন্য নিষেধাজ্ঞার হুঁশিয়ারি দিয়েছে আমেরিকা। ভারতের আগে রাশিয়ার কাছ থেকে এই অস্ত্র কেনে তুরস্ক। যার ফলে ইতোমধ্যে আমেরিকার নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়তে হয়েছে ন্যাটো সদস্যে এই দেশকে। এদিকে, এই বিষয়কে খুব বেশি আমল দিতে নারাজ বিশেষজ্ঞ মহল।

তাদের দাবি, রাশিয়ার সাথে সামরিক চুক্তি বাতিল করবে না ভারত। মস্কোর সাথে পরীক্ষিত বন্ধুত্ব বজায় রেখেই আমেরিকার সাথে সম্পর্ক মজবুত করেছে নয়াদিল্লি। বাইডেন প্রশাসনকেও সেই কথা মাথায় রাখতে হবে। তাছাড়া, কৌশলগত কারণে এশিয়া মহাদেশে চীনকে রুখতে ভারতের উপরই ভরসা রাখতে হবে ওয়াশিংটনকে।
সূত্র : সংবাদ প্রতিদিন


আরো সংবাদ


premium cement
আইসিবি এএমসিএল পেনশন হোল্ডারসথ ইউনিট ফান্ডের ১০ টাকা লভ্যাংশ ঘোষণা জুমার নামাজ শেষে মসজিদে দোয়ার আহ্বান হেফাজতের সাংবাদিক এমদাদুল হক খানের ওপর সন্ত্রাসী হামলা ইউক্রেন নিয়ে অবস্থান ব্যাখ্যা করল রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র দুবাইয়ে খেলবেন জোকোভিচ জাতীয় উশুতে এসএ গেমস স্কোয়াড বাছাই ইরাককে হারিয়ে বিশ্বকাপের চূড়ান্ত পর্বে খেলার সুযোগ পেল ইরান পোশাক শিল্পে নারী শ্রমিকদের হার কমে যাওয়ার কারণ কী? কোটি ডলার ব্যয়ের উৎস বিএনপিকে ব্যাখ্যা করতে হবে : প্রধানমন্ত্রী বিটকয়েন : ক্রিপ্টোকারেন্সি তৈরিতে যেভাবে খনি হয়ে উঠেছে কাজাখস্তান দেশের অধস্তন আদালত তদারকিতে ৮ বিচারপতির মনিটরিং কমিটি

সকল