০১ ডিসেম্বর ২০২১, ১৬ অগ্রহায়ন ১৪২৮, ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩ হিজরি
`

এক মন্দির বানাতে রিজার্ভ ব্যাংক থেকে কেনা হচ্ছে ১২৫ কেজি সোনা


একটি মন্দিরের চূড়া বানানো হবে সোনা দিয়ে। সেই সোনা দিবে সরকার। আর এই সোনায় যাতে কোনো ভেজাল না হয়, এ জন্য কেনা হবে রিজার্ভ ব্যাংক থেকে। এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতের তেলঙ্গানা রাজ্যসভার মন্ত্রণালয়। বুধবার ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এ খবর দিয়েছে।

খবরে বলা হয়, তেলঙ্গানার মন্দির শহর ইয়াদ গিরিগুট্টা। সেই শহরে অনেক মন্দির। তার মধ্যে আবার বিখ্যাত শ্রী লক্ষ্মীনারায়ণ স্বামী মন্দির। সেখানেই মন্দিরের চূড়া তৈরি হবে সোনা দিয়ে। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাও ব্যক্তিগতভাবে এই সোনা দেবেন। অন্য মন্ত্রীরাও দেবেন। একইসাথে রাজ্য সরকার দেবে ১২৫ কেজি সোনা। আর সেটা যাতে একেবারে খাঁটি সোনা হয়, এ জন্য রিজার্ভ ব্যাংক অব ইন্ডিয়া থেকে এই সোনা কেনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে চন্দ্রশেখরের মন্ত্রিসভা।

শাসক দল তেলঙ্গানা রাষ্ট্র সমিতির প্রধান তথা মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রশেখরের সোনার প্রতি দুর্বলতা নজির আগেও দেখা গেছে। তবে এভাবে মন্দিরের জন্য সরকারি উদ্যোগে সোনা কেনার উদাহরণ বেশি পাওয়া যাবে না।

চন্দ্রশেখর নিজেই সংবাদ সংস্থাকে জানিয়েছেন, তিনিই হবে প্রথম দাতা। নিজের পরিবারের পক্ষে তিনি ১ দশমিক ১৬ কেজি সোনা দেবেন মন্দিরের ‘গোপূরম’ (চূড়া) নির্মাণের জন্য। একইসাথে চন্দ্রশেখর বলেন, ‘সরকারের ৬০ থেকে ৬৫ কোটি রুপি লাগবে এই পরিমাণ সোনা কেনার জন্য।’

তিরুমাল্লা তিরুপতি মন্দিরের সোনার চূড়া যারা করেছিলেন তাদের সাথে এই মন্দির নির্মাণকারীরাও যোগাযোগ রাখছেন বলে জানিয়েছেন চন্দ্রশেখর। জানা গেছে, দলের সব বিধায়কদেরও সোনা কেনার জন্য টাকা দিতে বলা হয়েছে। সম্প্রতি মন্দির শহর পরিদর্শন করেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রশেখর। তখনই জানিয়েছেন, খুব তাড়াতাড়ি অর্থ সংগ্রহ করে রিজার্ভ ব্যাংকের থেকে খাঁটি সোনা আনা হবে।

সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা



আরো সংবাদ