০১ ডিসেম্বর ২০২১, ১৬ অগ্রহায়ন ১৪২৮, ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩ হিজরি
`

ভারতে মুসলিম বেড়ে যাওয়ায় মোহন ভগতের দাবি প্রত্যাখ্যান ওয়াইসির

আসাদউদ্দিন ওয়াইসি - ছবি : সংগৃহীত

ভারতের হিন্দুত্ববাদী সংগঠন রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের (আরএসএস) প্রধান মোহন ভগতের ভারতে মুসলমানদের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় দাবি প্রত্যাখ্যান করেছেন দেশটির দক্ষিণাঞ্চলীয় অন্ধ্রপ্রদেশকেন্দ্রীক রাজনৈতিক দল মজলিশে ইত্তেহাদুল মুসলিমিনের (এমআইএম) প্রধান আসাদউদ্দিন ওয়াইসি।

শুক্রবার এক টুইট বার্তায় মোহন ভগতের বক্তব্যের এই প্রতিক্রিয়া জানান তিনি।

টুইট বার্তায় তিনি বলেন, 'বরাবরের মতোই আরএসএসের মোহনের আজকের বক্তব্য ছিলো মিথ্যা ও অর্ধ-সত্যতে পূর্ণ। তিনি জনসংখ্যার নীতির জন্য আহ্বান জানিয়েছেন এবং মুসলমান ও খ্রিস্টান জনসংখ্যা বাড়ার বিষয়ে মিথ্যার পুনরাবৃত্তি করলেন। মুসলিম জনসংখ্যা বাড়ার হার বর্তমানে সকলের মধ্যেই কম রয়েছে। কোনো প্রকার 'জনসংখ্যাগত অসাম্যের' অস্তিত্ব নেই।'

হায়দরাবাদ থেকে নির্বাচিত ভারতীয় লোকসভার এই সদস্য তার টুইটে বাল্যবিবাহ ও লিঙ্গ নির্ধারণভিত্তিক গর্ভপাতের বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, '৮৪ ভাগ বিবাহিত শিশুই হিন্দু। ২০০১ থেকে ২০১১ সালের মধ্যে প্রতি এক হাজার মুসলিম পুরুষের বিপরীতে মুসলিম নারীর সংখ্যা নয় শ' ৩৬ থেকে বেড়ে নয় শ' ৫১ হয়েছে। কিন্তু হিন্দুদের এই হার নয় শ' ৩১ থেকে বেড়ে মাত্র নয় শ' ৩৯ জনে দাঁড়িয়েছে।'

আরএসএস প্রধানের জনসংখ্যা সংক্রান্ত নীতিমালা প্রণয়নের আহ্বানের পরিপ্রেক্ষিতে ওয়াইসি বলেন, ভারতে ইতোমধ্যেই কোনো প্রকার কৃত্রিম জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণ নীতিমালা ছাড়াই গর্ভধারণের হার যথাযথ পরিমাণেই অবস্থান করছে।

তিনি বলেন, কোনো প্রকার তথ্যপ্রমাণ ছাড়াই মোহন ভারতে বয়স্ক লোক বেড়ে যাওয়ার বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।

ওয়াইসি বলেন, 'কোনো লোকই ভারতের জনসংখ্যাগত বিভাজনকে তার (মোহন ভগত) মতো ধ্বংস করেনি। ভারতের বেশিরভাগই তরুণ। তারা শিক্ষা, সরকারি সহায়তা ও কর্মক্ষেত্রের সুযোগ থেকে বঞ্চিত। এই দেশের কি ভবিষ্যত যেখানে প্রধানমন্ত্রী কিছু পাকোড়ার দোকান ছাড়া আর কিছুর প্রতিশ্রুতি দিতে পারেন না। জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণ নীতির অর্থ হচ্ছে কর্মোপযোগী তরুণদের সংখ্যা কমানো। তারা কিভাবে বৃদ্ধ জনগোষ্ঠীকে সহায়তা করবে?'

এর আগে শুক্রবার ভারতের পশ্চিমাঞ্চলীয় মহারাষ্ট্র প্রদেশের নাগপুরে আরএসএসের প্রতিষ্ঠা দিবসের এক অনুষ্ঠানে বক্তব্যে দেশটিতে মুসলমান ও খ্রিস্টান জনসংখ্যা বাড়ার বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন মোহন ভগত। এই প্রসঙ্গে ধর্মের ভিত্তিতে ভারতে জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণ নীতি গ্রহণের প্রস্তাব করেন তিনি।

সূত্র : সিয়াসত ডেইলি



আরো সংবাদ