২২ জুন ২০২১
`

উত্তরপ্রদেশে মোদির সংসদীয় এলাকায় বিজেপির ভরাডুবি!

নরেন্দ্র মোদির সাথে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। - ছবি : সংগৃহীত

ভারতের উত্তরপ্রদেশে বছর ঘুরতেই আসন্ন বিধানসভা নির্বাচন। কথায় বলে, যে উত্তরপ্রদেশ দখল করেছে, সে সংসদের টিকিট পেয়ে গিয়েছে। সেই জায়গা থেকে উত্তরপ্রদেশে বিধানসভা ভোটের আগের বছরের পঞ্চায়েত ভোট যোগীর কাছে প্রেস্টিজ ফাইট ছিল। সেই জায়গা থেকে উত্তরপ্রদেশের বুকে পঞ্চায়েত নির্বাচনে ফলাফলের ট্রেন্ড কোন দিকে গেল দেখা যাক।

হাথরাস, উন্নাও ইস্যু সাথে নিয়ে যোগী রাজ্যের ভোট
উত্তরপ্রদেশের বুকে কয়েক মাস আগেই হাথরাসে এক তরুণীর ধর্ষণ ও তার মৃত্যু এবং প্রশাসনের পক্ষ থেকে লাশ সৎকারের পদক্ষেপ নিয়ে বিপুল সমালোচনার মুখে পড়ে বিজেপি সরকার। এর আগ যোগী রাজ্যে উন্নাওতে ধর্ষণের ঘটনা, সিএএ, এনআরসি এবং অযোধ্যাসহ একাধিক ইস্যু নিয়ে এবার পঞ্চায়েত ভোটের লিটমাস টেস্টে ছিল যোগী সরকার। করোনাকালে রাজ্যসরকারের ব্যবস্থাপনাও এই অগ্নিপরীক্ষার অন্যতম মূল্যায়নের অংশ ছিল। সেই জায়গা থেকে এবারের ভোটে একের পর এক চ্যালেঞ্জ নিয়ে ভোট যুদ্ধে নামে উত্তরপ্রদেশ বিজেপি।

‘কাঁটে কি টক্কর’ ও উত্তরপ্রদেশ
কার্যত সপা ঝড়ে কাঁবু উত্তরপ্রদেশের বুকের মোদি সুনামি। বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডার দায়িত্বকালে এই ফলাফল নিঃসন্দেহে বিজেপির কাছে একটি তাৎপর্যবাহী ঘটনা।

এদিকে পঞ্চায়েত নির্বাচনে দেখা যাচ্ছে, বিজেপির পক্ষে গিয়েছে ৬৯০ আসন এবং সমাজবাদী পার্টি পেয়েছে ৭৪৭ ওয়ার্ড। সেই জায়গা থেকে ২০২২ উত্তরপ্রদেশ নির্বাচনের আগে এই ফলাফল বিজেপির মাথাব্যথা বাড়িয়ে দিচ্ছে।

মোদির সংসদীয় গড়ে কী ফলাফল?
বারাণসী নরেন্দ্র মোদির সংসদীয় এলাকা। উত্তরপ্রদেশের এই এলাকায় কার্যত বিজেপির ভরাডুবি পরিলক্ষিত হয়েছে। বারাণসীর ৪০টি জেলা পরিষদে অখিলেশের নেতৃত্বাধীন সমাজবাদী পার্টি পেয়েছে ১৫টি আসন। সেখানে বিজেপি পেয়েছে ৮টি আসন।

অযোধ্যায় পরাজয়!
বিজেপির পোক্ত গড় হিসাবে পরিচিত উত্তরপ্রদেশের অযোধ্যা ও প্রয়াগরাজ। সেখানেও বিজেপিকে ‘কাঁটে কি টক্কর’ দিয়েছে মমতার শুভানুধ্যায়ী অখিলেশের দল। এছাড়াও সমাজবাদী পার্টি নিজেদের পোক্ত গড় এটাহ, ফিরেজবাদ, আজমগড়, মৈনপুরীতেও নিজেদের দাপট ধরে রেখেছে।

বারাণসী, মথুরা ও অযোধ্যায় যেভাবে বিজেপির হিন্দুত্ব ইস্যু ধাক্কা খেয়েছে পঞ্চায়েত ভোটে, তা যোগীরাজ্যে বিজেপিকে আত্ম অনুসন্ধানের রাস্তায় নিয়ে যাচ্ছে বলে, দাবি বহু রাজনৈতিক বিশ্লেষকের।

সূত্র : ওয়ান ইন্ডিয়া



আরো সংবাদ