১৮ এপ্রিল ২০২১
`

পাকিস্তানে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতায় হাফিজ শেখকে হারালেন ইউসুফ রাজা

আব্দুল হাফিজ শেখের সাথে ইউসুফ রাজা গিলানি। - ছবি : সংগৃহীত

পাকিস্তানে সিনেট নির্বাচনে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতার পর পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) হাফিজ শেখের বিরুদ্ধে জয় পেতে চলেছেন পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি) ইউসুফ রাজা গিলানি।

বুধবার দেশটির সিনেটের ৩৭টি আসনের নির্বাচনে ভোট গ্রহণ শেষ হয় স্থানীয় সময় বিকাল ৫টায়। এ নির্বাচনে সিন্ধ, খাইবার পাখতুনখাওয়া, বেলুচিস্তান ও ইসলামাদের মোট ৭৮ জন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এখন নির্বাচনের ভোট গণনা চলছে।

বেসরকারি ফলাফলে ইসলামাবাদে বিরোধী দলগুলোর সম্মিলিত প্রার্থী সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইউসুফ রাজা গিলানি বর্তমান সরকারের অর্থমন্ত্রী হাফিজ শেখকে পরাজিত করেছেন। গিলানি পেয়েছেন ১৬৯ ভোট আর শেখ পেয়েছেন ১৬৪ ভোট।

বিরোধী দলগুলোর জোট পাকিস্তান ডেমোক্রেটিক মুভমেন্ট (পিডিএম) বলছে, তাদের প্রার্থী গিলানির জয় ইমরান সরকারের বিরুদ্ধে জনঅনাস্থার মূর্ত প্রতীক।

পিপিপি চেয়ারপারসন বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারি এ জয়কে গণতন্ত্রের জয় হিসেবে চিহ্নিত করেছেন। তার অফিসিয়াল টুইটার হ্যান্ডেলে তিনি লিখেন, ‘গণতন্ত্রই সবচেয়ে বড় প্রতিশোধ’।

পাকিস্তান মুসলিম লিগ (নওয়াজ) ভাইস প্রেসিডেন্ট মরিয়ম নওয়াজও গিলানির আজকের জয়ের পরপরই টুইটারে উল্লাস প্রকাশ করেছেন।

অপরদিকে, পিটিআই সিনেটর ফয়সাল জাবেদ খান আজকের নির্বাচনে বিরোধী দলগুলোর চতুরতার অভিযোগ এনেছেন।

সংসদের উচ্চকক্ষ নির্বাচনে জামায়াতে ইসলামী ছাড়া বাকি সব দল অংশ নিয়েছে। নির্বাচনটি কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই শেষ হয়েছে।

তবে প্রাদেশিক সংসদ নির্বাচনের ভোট গ্রহণ এখনো চলছে। দেশটির নির্বাচন কমিশন আইনপ্রণেতাদের আইনসভার ভেতরে ঢুকিয়েছেন তাদের ভোট দেয়ার জন্য।

তবে বুধবার পাঞ্জাবে ভোট হয়নি। কারণ সেখানকার সিনেট প্রার্থীরা আগেই নির্বাচিত হয়ে গিয়েছেন। গত মাসেই এ ফলাফল প্রস্তুত হয়ে যায়, কারণ সেখানকার প্রতিযোগীদের কেউ কেউ নির্বাচনে অযোগ্য হয়েছেন আবার কেউ কেউ তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন।

সূত্র : ডন, এক্সপ্রেস ট্রিবিউন



আরো সংবাদ