২৭ জানুয়ারি ২০২১
`

‘বউ ফেরত চাই’ দাবিতে 'শ্বশুরবাড়ি'র বাড়ির সামনে যুবকের অবস্থান


ফিরিয়ে দিন আমার বউকে! কলকার 'সবার উপরে' সিনেমায় ছবি বিশ্বাসের একটি বিখ্যাত সংলাপ ছিল। আদালতকে উদ্দেশ্য করে এক বঞ্চিত নিপীড়িতের চরিত্রে তিনি বলে উঠেছিলেন, ফিরিয়ে দাও আমার বারোটি বছর!

সিনেমা সত্যি হল। এবার ভারতের পশ্চিমবঙ্গের উত্তর ২৪ পরগনার অশোকনগরের এক যুবক অনেকটা তেমন সুরেই যেন বলছেন, ফিরিয়ে দাও আমার সাতটা বছর!

বউ ফেরত চাই! এই দাবিতে আজ শনিবার 'শ্বশুরবাড়ি'র সামনে অবস্থান করছেন প্রেমিক-স্বামী সৌমেন দত্ত। তার দাবি, তার বউকে ফেরত দিতে হবে, তা না হলে তিনি অবস্থান চালিয়ে যাবেন। ঘটনাটি ঘটেছে অশোকনগর-কল্যাণগড় পুরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের দেবীনগরে। তার অবস্থানের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়েছে অশোকনগর থানার পুলিশ। পুলিশের আশ্বাসে তিনি অবস্থান থেকে বিরতও হয়েছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, অশোকনগরের মানিকতলার সৌমেনের সঙ্গে দেবীনগরের গার্গী দাসের সাত বছরের সম্পর্ক। সম্পর্ক ক্রমশ পরিণতি পায় প্রায় সাড়ে তিন বছর আগে। এবং তখনই তাদের রেজিস্ট্রি বিয়েও হয়। আইনি বিয়ে করলেও উভয়েই উভয়ের বাড়িতেই থাকতেন। গার্গী পড়াশোনা চালিয়ে যাচ্ছিলেন। সৌমেন অবশ্য উচ্চ মাধ্যমিকের পরে আর পড়েননি। এই সময়-পর্বে সৌমেনের দাবি, গার্গীর পড়া-সহ অন্যান্য খরচও নিয়মিত দিয়ে গিয়েছেন তিনি।

কিন্তু গত কয়েকমাসে এই মসৃণ সম্পর্কে বাধা আসে। জানা যায়, গার্গীর বাড়ির লোকজন তাকে সৌমেনের সঙ্গে সম্পর্ক রাখতে নিষেধ করেছেন। আর তারপর থেকেই সৌমেন গার্গীর সঙ্গে কোনোভাবে যোগাযোগ করে উঠতে পারছেন না।

তার দাবি, ফোনেও তার সঙ্গে গার্গীকে কথা বলতে দেওয়া হচ্ছে না। তাকে গার্গীর মা ও ভাই টেলিফোনে হুমকিও দিচ্ছেন বলে তার অভিযোগ। তারা গার্গীর সঙ্গে তার বছর সাতেকের সম্পর্ক এবং রেজিস্ট্রি বিয়ে সব কিছুই অস্বীকার করছেন।

এরই প্রতিবাদে প্রেমিকা তথা স্ত্রীর বাড়ির সামনে অবস্থান করছেন প্রেমিক-স্বামী সৌমেন।

কী বলছেন, গার্গীর অভিভাবক?
সূত্র মারফত জানা যাচ্ছে, সৌমেনের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন গার্গির মা গোপা দাস। তার দাবি, তার মেয়েকে ভুলিয়ে-ভালিয়ে রেজেস্ট্রি বিয়ে করেছেন সৌমেন। তারা এই সম্পর্ক মানেন না। তারা মেয়ের বিয়ে অন্যত্র ঠিকও করে রেখেছেন।

মেয়ে এখন পড়াশোনা করছেন। উচ্চশিক্ষিত হয়ে পরবর্তীতে চাকরি করবেন। শুধু তাই নয়, সৌমেনকে উদ্দেশ্য করে তার বক্তব্য, সৌমেন উচ্চ মাধ্যমিক পাশ। কাজও কিছু করেন না। তার সঙ্গে মেয়ের বিয়ে দেবেন না।

সৌমেন কিন্তু বিষয়টি নিয়ে নাছোড়বান্দা। তার সাফ কথা, আমার সাত বছর ফিরিয়ে দিতে হবে। আমার সঙ্গে যা হচ্ছে, একজন নারীর সঙ্গে এমন ঘটলে আইনত যেমন ব্যবস্থা নেওয়া হয়, এ ক্ষেত্রেও তেমনই ব্যবস্থা করতে হবে।

আর সৌমেনের বাড়ির লোকজনের প্রতিক্রিয়া?
সৌমেনের দাদা সৌভিক জানান, তার ভাইয়ের বউ যাতে নির্বিঘ্নে তাদের বাড়ি আসতে পারেন সেটা তারা চান। তারা ভাইয়ের পাশেই আছেন।

আগামীকাল পুলিশ দুপক্ষকেই থানায় ডেকে পাঠিয়েছে। আপাতত অবস্থান তুলেও নিয়েছেন সৌমেন।

সূত্র : জিনিউজ



আরো সংবাদ