২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

পাকিস্তানের নতুন মানচিত্রে পুরো কাশ্মির, যা বলছে ভারত

পাকিস্তানের নতুন মানচিত্রে পুরো কাশ্মিরকে অন্তর্ভুক্ত দেখানো হয়েছে - ছবি : ডন

মঙ্গলবার নতুন রাজনৈতিক মানচিত্র প্রকাশ করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। সেখানে গোটা জম্মু-কাশ্মির ও গুজরাটের জুনাগড়কে পাকিস্তানের ভূখণ্ডের অংশ বলে জুড়ে দেয়া হয়েছে। এসব অঞ্চলকে ‘বিতর্কিত’ বলে দাবি করেছে ইসলামাবাদ।

পাকিস্তান এই মানচিত্র প্রকাশ করার পরেই ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে কড়া প্রতিক্রিয়ায় জানানো হয়, এটা পাকিস্তানের ‘রাজনৈতিক পাগলামি’ ছাড়া আর কিছুই নয়।

জম্মু-কাশ্মিরে ৩৭০ ধারা রদ ও রাজ্যকে দু’টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে পরিণত করার বর্ষপূর্তির আজ বুধবার। অন্যদিকে রামমন্দিরের ভূমিপূজাও হবে আজ। তার আগেই পাকিস্তানের নতুন মানচিত্র প্রকাশ করাকে তাৎপর্যপূর্ণ বলেও মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় সরকারিভাবে বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে, ‘পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান একটি মানচিত্র প্রকাশ করেছেন। যেটা রাজনৈতিক পাগলামি। ওই মানচিত্রে গুজরাটের জুনাগড় ও আমাদের কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল জম্মু-কাশ্মির ও লাদাখকে পাক ভূখণ্ড বলে দাবি করা হয়েছে- যা কোনোমতেই সমর্থনযোগ্য নয়। এইসব হাস্যকর দাবিগুলোর আইনগত বৈধতা বা আন্তর্জাতিক বিশ্বাসযোগ্যতা নেই। এই পদক্ষেপ সীমান্ত সন্ত্রাস দ্বারা পুষ্ট হয়ে ভূখণ্ড বিস্তারে পাকিস্তানের বাস্তবতাকেই নিশ্চিত করে।’

নতুন ম্যাপ প্রকাশ করে ইমরান খানের দাবি, গত বছর ৫ আগস্ট ভারত সরকার জম্মু ও কাশ্মিরকে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে পরিণত করে ‘বেআইনি পদক্ষেপ’ নিয়েছিল। পাক ফেডারেল ক্যাবিনেট এই দাবিকে স্বীকৃতি দিয়েছে। পাকিস্তানের সরকারি পাঠক্রমেও এবার থেকে নতুন মানচিত্র ব্যবহার করা হবে বলে দাবি করেছেন ইমরান।

নতুন মানচিত্রে জম্মু-কাশ্মির, লাদাখ এমনকি গুজরাটের জুনাগড়কে ‘বিতর্কিত অংশ’ বলে নিজেদের দেশের ভূখণ্ডের সাথে যুক্ত করেছে পাকিস্তান। শিয়াচেনও জুড়ে দেয়া হয়েছে। ওই মানচিত্রে পূর্ব কাশ্মিরের কোনো সীমানা দেখা যাচ্ছে না। এই অঞ্চল চীনাদের দখলে রয়েছে।

মানচিত্রে ফেডারেল প্রশাসনশাসিত উপজাতীয় অঞ্চলগুলোকে খাইবার পাখতুনখোয়া প্রদেশের অংশ হিসাবে দেখানো হয়েছে।

ইসলামাবাদের একাধিক গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা শ্রীনগর হাইওয়ে নামকরণে সম্মতি দিয়েছে পাকিস্তান ক্যাবিনেট। এর আগে এই সব সড়ক কাশ্মির হাইওয়ে নামে পরিচিত ছিল।

২০১২ সালেও অ্যাটলাস অফ ইসলামিক রিপাবলিক অফ পাকিস্তান জুনাগড়কে পৃথক অঞ্চল বলে দাবি করেছিল।

মঙ্গলবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে নয়া মানচিত্রের অনুমোদন শেষে ইমরান খান বলেন, ‘আজ পাকিস্তানের ইতিহাসে সবচেয়ে ঐতিহাসিক দিন। এই প্রথমবার ভারত অধিকৃত কাশ্মিরকে পাকিস্তানের মানচিত্রে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।’

তিনি আরো বলেন, পাকিস্তানের সব রাজনৈতিক দলের এতে সমর্থন রয়েছে। গত বছরের ৫ আগস্ট নেয়া ভারত সরকারের অবৈধ দখলদারি সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে এই মানচিত্র একটি প্রতিবাদ।

রাজনৈতিক ম্যাপ প্রকাশনা উপলক্ষে মঙ্গলবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কোরেশির পাশে রেখে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান এসব কথা বলেন।

ইমরান খান এ সময় জানান, জাতিসঙ্ঘ নিরাপত্তা পরিষদের প্রস্তাবনার অধীনেই কেবল কাশ্মির নিয়ে বিরোধের অবসান হতে পারে। জাতিসঙ্ঘ প্রস্তাবনায় কাশ্মিরি জনতাকে তারা কোন রাষ্ট্রে যোগ দিতে চায় সে সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষমতা দেয়া হয়েছিল। তিনি কাশ্মির নিয়ে জাতিসঙ্ঘের প্রতিশ্রুতির কথাও তুলে ধরেন।

ইমরান খান বলেন, ‘কাশ্মিরের জনতাকে দেয়া বিশ্ব সম্প্রদায়ের প্রতিশ্রুতি এখনো পূরণ হয়নি। আমরা স্পষ্ট করে বিশ্ব সম্প্রদায়কে বলতে চাই যে এটিই (কাশ্মিরি জনতা কোন রাষ্ট্রে যোগ দিতে চায় সে সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষমতা) একমাত্র সমাধান। সরকার এই বিষয়ে প্রচেষ্টা চালিয়ে যাবে।’

নতুন মানচিত্র উন্মোচন করার পর পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, ‘আমরা রাজনৈতিকভাবে আমাদের এই লড়াই করব। কেননা আমরা সামরিক সমাধানে বিশ্বাস করি না। আমরা জাতিসঙ্ঘকে বারবার মনে করিয়ে দেব যে আপনারা (কাশ্মিরের জনগণের কাছে) যে প্রতিশ্রুতি করেছিলেন তা এখনো পূরণ করেননি।’

সূত্র : ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস, ডন


আরো সংবাদ

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি নিয়ে নতুন সিদ্ধান্ত মন্ত্রণালয়ের (১২৯৪২)ড. কামাল ও আসিফ নজরুল ঢাবি এলাকায় অবা‌ঞ্ছিত : সন‌জিত (১১৭২৪)‘সনজিতকে ক্যাম্পাসে দেখতে চায় না ঢাবি শিক্ষার্থীরা’ (১০৩২০)এমসি কলেজে গণধর্ষণ : সাইফুরের যত অপকর্ম (৯০২০)আজারবাইজান ৬টি গ্রাম আর্মেনিয়ার দখল মুক্ত করেছে (৮৩৪১)নতুন বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র সামনে আনলো ইরান (৫৭১১)যে কারণে এই শীতেই ভারত-চীন মারাত্মক যুদ্ধের আশঙ্কা রয়েছে (৫৬৫০)অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমের জানাজা অনুষ্ঠিত (৫২২৯)আজারবাইজান-আর্মেনিয়ার মধ্যে সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৩৯ (৫১৬৭)ছাত্রলীগের ঢাবি সভাপতি বক্তব্য স্পষ্টত সন্ত্রাসবাদের বহিঃপ্রকাশ (৫১৫০)