০৮ আগস্ট ২০২০

রিভিউ পিটিশন নয়, প্রাণভিক্ষার আর্জি কুলভূষণের

কুলভূষণ যাদব - ছবি : সংগৃহীত
24tkt

সাজা পর্যালোচনা করতে চান না অন্তর্ঘাত চালানোর অভিযোগে পাকিস্তানে আটক ভারতীয় গোয়েন্দা কর্মকর্তা কুলভূষণ যাদব। বরং ঝুলে থাকা প্রাণভিক্ষার আবেদন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে চান তিনি। বুধবার একথা জানালো পাকিস্তান।

এদিন সে দেশের অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল আহমেদ ইরফান বলেছেন, "পাকিস্তান কুলভূষণকে দ্বিতীয়বার কনসুলার সহযোগিতার প্রস্তাব দিয়েছিল। কিন্তু উনি প্রাণভিক্ষার ঝুলে থাকা আবেদন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে চান।" ১৭ জুন কুলভূষণ যাদবকে সাজা পুনর্বিবেচনার জন্য প্রস্তাব পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু সেই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছিলেন কুলভূষণ যাদব। কুলভূষণ যাদবকে গ্রেফতারি নিয়ে একসময় চরমে উঠেছিল ইন্দো-পাক উত্তেজনা।

পাকিস্তানের অভিযোগ, "বালুচিস্তান থেকে চরবৃত্তির অভিযোগে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। ইরান থেকে অবৈধভাবে পাকিস্তানে অনুপ্রবেশ করেছিলেন কুলভূষণ যাদব।" ভারতের তরফে সেই অভিযোগ নস্যাৎ করে বলা হয়েছে, ইরানের চাবাহার বন্দরে ব্যবসা করতেন কুলভূষণ। সেখান থেকেই তাকে গ্রেফতার করে পাকিস্তান। ইতিমধ্যে পাকিস্তানের সামরিক আদালত ২০১৭ সালে এই ভারতীয় নাগরিককে মৃত্যুদণ্ডের নির্দেশ দেয়া হয়েছিল।

সেই নির্দেশের বিরোধিতা করে আন্তর্জাতিক ন্যায় আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিল নয়াদিল্লি। আদালতে বলা হয়েছি, বিষয়টি সুরাহা না হওয়া পর্যন্ত যাতে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা না হয়।

ভারতের বক্তব্য
ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, “বিচারের নামে প্রসহন করে কুলভূষণ যাদবকে ফাঁসির সাজা দেয়া হয়েছে। তিনি পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর হেফাজতে রয়েছেন। তার মামলার পুনর্বিবেচনার আর্জি না জানানোর জন্য কুলভূষণ যাদবকে জোর করা হয়েছে”।

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তরফে আরো বলা হয়েছে, “তরিঘরি নির্লজ্জভাবে তার অধ্যাদেশের আওতায় যথাযথ সুরক্ষা আটকানোর চেষ্টা করা হয়েছে, পাকিস্তান আবশ্যিকভাবেই কুলভূষণ যাদবকে আন্তর্জাতিক আদালতের রায় কার্যকর করার অধিকার থেকে বঞ্ছিত করার চেষ্টা করেছে”।
সূত্র : এনডিটিভি


আরো সংবাদ

পৃথিবী থেকে ১৫ লাখ কিলোমিটার দূরে বসছে ‘জেমস ওয়েব টেলিস্কোপ’ বঙ্গোপসাগরে ট্রলারডুবি, ৪ দিনেও সন্ধান মেলেনি ২ জেলের ধনীদের শীর্ষ তিনে জাকারবার্গ, চারে আম্বানি সংক্রমিত ধূমপায়ীরা করোনার ড্রপলেট ছড়াতে পারেন বাবরি মসজিদের স্থানে মন্দির নির্মাণে জামায়াতের উদ্বেগ প্রকাশ বাগাতিপাড়ায় পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু নবায়নযোগ্য জ্বালানির ব্যবহার বৃদ্ধির আহবান রাষ্ট্রপতির কুমিল্লায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত ৪৯ দিনাজপুরে শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের জন্মদিনে সেলাইমেশিন বিতরণ ভারতের কেরালায় বিমান দুর্ঘটনায় মৃতের পরিবার পাবে ১০ লক্ষ টাকা নোয়াখালীতে নতুন করে করোনায় ১ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত ৫৭

সকল

প্রদীপের অপকর্ম জেনে যাওয়ায় জীবন দিতে হয়েছে সিনহাকে? (৩১১৭৪)মেজর সিনহা হত্যা : ওসি প্রদীপ, ইন্সপেক্টর লিয়াকত আলীসহ ৭ পুলিশ বরখাস্ত (৯৭৪৪)আয়া সোফিয়ায় জুমার নমাজ শেষে যা বললেন এরদোগান (৭০৬৭)জাহাজ ভর্তি ভয়াবহ বিস্ফোরক বৈরুতে পৌঁছল যেভাবে (৬৯২১)পাকিস্তানের বোলিং তোপে লন্ডভন্ড ইংল্যান্ড (৬৭৩২)নতুন রাজনৈতিক দলের ঘোষণা দিলেন মাহাথির (৬৫১৯)অযোধ্যায় রামমন্দির নির্মাণ নিয়ে কড়া বিবৃতি পাকিস্তানের, যা বলছে ভারত (৬৪০১)সাগরের ইলিশে সয়লাব খুলনার বাজার (৫৪৮৮)এসএসসির স্কোরের ভিত্তিতে কলেজে ভর্তি হবে শিক্ষার্থীরা (৫৪৭৩)কানাডায়ও ঘাতক বাহিনী পাঠিয়েছিলেন মোহাম্মাদ বিন সালমান! (৫৩৮৫)