০২ জুন ২০২০

মেয়ের ‘পাকিস্তান জিন্দাবাদ’ স্লোগান কীভাবে নিয়েছেন তার বাবা?

সেই স্লোগানের পর কয়েকজনকে অমূল্যর দিকে ছুটে আসতে দেখা গিয়েছে। - ছবি : এনডিটিভি

ভারতের সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন-বিরোধী প্রতিবাদ মঞ্চ থেকে ‘পাকিস্তান জিন্দাবাদ’ স্লোগান তুলেছিলেন তরুণী অমূল্য লিওনা। সেদিন সভা শেষের পরেই তাকে গ্রেফতার করে বেঙ্গালুরু পুলিশ। অমূল্যর বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতার মামলা দায়ের হয়েছে। শুক্রবার তাকে আদালতে তোলা হলে ১৪ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

সেই ঘটনার পর পরিস্থিতি সামাল দিতে ছুটে এসেছিলেন সাংসদ আসাউদ্দিন ওয়াইসি ও অন্য এআইএমআইএম নেতৃবৃন্দ। অমূল্যর থেকে মাইক কেড়ে তাকে বকা দিতে দেখা গেছে ভিডিওতে। এমনকি, শত্রু রাষ্ট্র পাকিস্তানকে সমর্থন করা যায় না বলে মন্তব্য করে উত্তেজনা প্রশমনে সক্রিয় হয়েছিলেন হায়দরাবাদের সাংসদ আসাদউদ্দিন ওয়াইসি।

সেই ঘটনার ভিডিও সোশাল সাইটে ভাইরাল হওয়ার পর থেকেই দেশ জুড়ে চলছে সমালোচনা।

অন্যদের সাথে মেয়ের সমালোচনায় সরব হয়েছেন তার বাবাও। বৃহস্পতিবারই তিনি বলেন, ‘আমার মেয়ের অবস্থান ভুল ছিল’।

সেদিনই মেয়ের অবস্থানের সমালোচনা করে ওই তরুণীর বাবা সংবাদসংস্থা এএনআইকে বলেছিলেন, ‘আমার মেয়ে কয়েকদিন ধরেই কয়েকজন মুসলিমের সাথে মিশছে। বললেও শুনত না।’

এদিকে, বৃহস্পতিবার রাতে দক্ষিণপন্থী সংগঠনের কয়েকজন অমূল্যর বাড়ি লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল ছুঁড়েছে বলে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। পাশাপাশি, জেডি (এস)-এর কাউন্সিলর ইমরান পাশা দাবি করেছেন, বিরোধীরাই চক্রান্ত করে ওই তরুণীকে পাঠিয়েছিল। সভা ভণ্ডুল করতে চেয়েছিল তারা। ওই তরুণীর নাম বক্তা তালিকায় ছিল না। তাই বিষয়টি তদন্ত করুক পুলিশ।

ওই তরুণীকে গ্রেফতার প্রসঙ্গে প্রবীণ পুলিশ কর্মকর্তা বি রমেশ বলেন, ‘আমরা ওর বিরুদ্ধে ধারা ১২৪ (এ) (রাষ্ট্রদ্রোহিতা), ১৫৩ (এ) এবং (বি) (বিভিন্ন গোষ্ঠীর মধ্যে উস্কানিমূলক বক্তব্য প্রচার করা) এবং চক্রান্ত করার অভিযোগে একটি মামলা দায়ের করেছি।’

অমূল্যের জামিনের আবেদন খারিজ হয়েছে এবং তাকে তিন দিনের বিচারবিভাগীয় হেফাজতে পাঠানো হয়েছে। তবে আগামী সোমবার একটি স্থানীয় আদালতে তার জামিনের আবেদনের শুনানি হবে বলে জানা গেছে।

সূত্র : এনডিটিভি


আরো সংবাদ