০৬ এপ্রিল ২০২০

ঘরে ঘুমিয়ে স্বামী, প্রেমিককে সঙ্গে নিয়ে চুপিসারে ঢুকে স্ত্রীর ‘কুকীর্তি’!

বিবাহ বর্হিভূত সম্পর্কের জেরে স্বামীর গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে পুড়িয়ে মারার চেষ্টার অভিযোগ উঠল স্ত্রী ও প্রেমিকের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মালদার মানিকচক থানার শিবনটোলা গ্রামে। অগ্নিদগ্ধ স্বামী আশঙ্কাজনক অবস্থায় মালদা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ঘটনার পর থেকেই পলাতক স্ত্রী ও প্রেমিক। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

জানা গেছে, অগ্নিদগ্ধ স্বামীর নাম জগন্নাথ মন্ডল। বয়স ৪০ বছর। জগন্নাথ মণ্ডলের মা জানিয়েছেন, ছেলে ভিন রাজ্যে শ্রমিকের কাজ করে। সেই সুযোগে স্থানীয় যুবক মনোজ মণ্ডলের সঙ্গে বিবাহ বর্হিভূত সম্পর্ক গড়ে ওঠে স্ত্রী অর্চনা মণ্ডলের। বাড়িতে শুরু হয় অবাধ যাতায়াত। সম্প্রতি বাড়ি ফিরে বিষয়টি জগন্নাথের নজরে আসে। শুরু হয় অশান্তি। পরকীয়া সম্পর্ক থেকে স্ত্রীকে বেরিয়ে আসতে বলেন জগন্নাথ। এই নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর বিবাদ চরম আকার নেয়। বাপের বাড়ি চলে যান স্ত্রী অর্চনা মণ্ডল।

অভিযোগ, এরপর বুধবার রাতের অন্ধকারে প্রেমিককে সঙ্গে নিয়ে চুপিসারে ঘরে ঢুকেন স্ত্রী অর্চনা। প্রেমিক মনোজের সঙ্গে শলাপরামর্শ করে ঘুমন্ত জগন্নাথের শরীরে কেরোসিন তেল ঢেলে দেন। কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন। স্বামী জগন্নাথের মৃত্যু নিশ্চিত করতে তারপর ঘরেও আগুন লাগিয়ে দেন অর্চনা ও মনোজ। ঘুমন্ত অবস্থায় জগন্নাথ চিৎকার করতে শুরু করতেই এলাকা ছেড়ে চম্পট দেয় অভিযুক্ত যুগল।

এদিকে জগন্নাথের চিৎকারে ছুটে আসেন প্রতিবেশীরা। গুরুতর জখম অবস্থায় জগন্নাথকে উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যান। পরে সেখানে থেকে তাকে মালদা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, জগন্নাথের শরীরের ৯০ শতাংশ পুড়ে গিয়েছে। এই ঘটনায় অভিযুক্তদের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে মানিকচক থানার পুলিশ। জিনিউজ।


আরো সংবাদ