০৫ এপ্রিল ২০২০

নিজের দেশেই বিদেশী ঘোষিত হলেন বিএসএফ অফিসার মিজান

মিজানুর রহমান - ছবি : সংগ্রহ

সেনাবাহিনীর কর্মকর্তার পর এবার এক পুলিশ কর্মকর্তাকে বিদেশি তকমা দেয়া হলো ভারতের আসাম রাজ্যে। আসামে জাতীয় নাগরিকপঞ্জির হিসেবে বিদেশির তকমা পেলেন বিএসএফ-এর এক সাব-ইন্সপেক্টর ও তার স্ত্রী। আসামের জোড়হাটের উদয়পুর-মিকিরপাট্টির বাসিন্দা মিজানুর রহমান ও তার স্ত্রীকে গত বছর ডিসেম্বরে প্রকাশিত এনআরসি তালিকা অনুযায়ী বিদেশি ঘোষণা করা হয়।

আসামের জোরহাট জেলার উদয়পুরের বাসিন্দা মিজানুর রহমান। বর্তমানে বিএসএফের ১৪৪ নম্বর ব্যাটালিয়নে পাঞ্জাবে কর্মরত মিজানুর রহমান গত সপ্তাহে কর্মক্ষেত্র থেকে আসামে ফিরে এই বিষয়টি জানতে পারেন।

মিজানুর রহমান জানিয়েছেন যে তার ও তার স্ত্রীর ভারতীয় নাগরিকত্ব নিয়ে কোনো সন্দেহের অবকাশ নেই। তিনি বলেন, ‘আমরা বাংলাদেশী বা পাকিস্তানি নই। আমরা ভারতীয়, আসামেই জন্ম। ১৯২৩-এ আমাদের জমির রেকর্ড আছে। কিন্তু বর্ডার পুলিশ আমাদের নাগরিকত্ব নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছে।’
প্রথামিকভাবে মিজানুর ও তার স্ত্রীকে ডি ভোটার হিসেবে চিহ্নিত করা হয়। পরে তাদের পাঠানো হয় জোরহাটে এনআরসি ট্রাইবুন্যালে। সেখানে তাদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে ট্রাইবুন্যাল। বিষয়টি জানতে পেরে ছুটি নিয়ে তড়িঘড়ি ঘরে ফেরেন মিজানুর। এনআরসি ট্রাইবুন্যালের বিরুদ্ধে গৌহাটি আদালতে গেছেন মিজানুর।

সংবাদমাধ্যমকে মিজানুর জানিয়েছেন, ১৯২৩ সালের জমির দলিল রয়েছে আমাদের কাছে। তার পরও একজন ভারতীয়কে অবৈধ বলে ঘোষণা দেয়া হচ্ছে। ট্রাইবুন্যালের কোনো নোটিশ আমারা পাইনি। পঞ্চায়েত প্রধানও আমাদের কিছু বলেনি।
সূত্র : যুগশঙ্খ


আরো সংবাদ

করোনাকে চ্যালেঞ্জ দিয়ে ধরা খেলেন জার্মান মেয়র যে ১৮টি দেশে এখনো করোনাভাইরাস যায়নি ’সুস্থ হয়ে উঠুক বিশ্ব’‍ জার্মানি ও নেদারল্যান্ডসের ১০০ মসজিদে আজান ডানপন্থী কেয়ার স্টারমার ব্রিটেনের লেবার পার্টির নতুন প্রধান করোনাভাইরাসে সন্দেহে নারায়ণগঞ্জে আরেকজনের মৃত্যু, এলাকা লকডাউন মালিকদের অসতর্কতায় পোশাক শিল্পে করোনার আতঙ্ক বাড়ছে ভাইরাসের মধ্যে অর্থনৈতিক সম্ভাবনা প্রতিভা মেধা ও মূল্যবোধ এইচএসসি পরীক্ষার রুটিন প্রকাশে অনিশ্চয়তা, টেনশনে শিক্ষার্থীরা ১১ এপ্রিল পর্যন্ত পোশাক কারখানা বন্ধ রাখুন : বিজিএমইএ ১১ এপ্রিল পর্যন্ত গার্মেন্ট বন্ধ রাখার অনুরোধ রুবানা হকের

সকল