০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ২০ অগ্রহায়ন ১৪২৯, ১০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

রুচিবোধের পরিবর্তন

রুচিবোধের পরিবর্তন -

আরবি ‘ঈদ’ শব্দের অর্থ আনন্দ। ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের জন্য দু’টি আনন্দের দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। তার মধ্যে একটি হচ্ছে ‘ঈদুল ফিতর’ এবং অপরটি ‘ঈদুল আজহা’। রমজান মাসের দীর্ঘ এক মাস উপবাস অন্তে প্রথমোক্ত আনন্দের দিনটি উদযাপিত হওয়ায় আমাদের দেশে সাধারণ মানুষের কাছে এ দিনটি রমজানের ঈদ হিসেবেও পরিচিত। অপর দিকে দ্বিতীয় দিনটি পশু কোরবানির মাধ্যমে উদযাপন করার কারণে এটি সাধারণ্যে কোরবানির ঈদ নামে পরিচিত।

ইসলামের পাঁচটি স্তম্ভের একটি হচ্ছে ‘জাকাত’ এবং যাদের জন্য জাকাত ফরজ করা হয়েছে তাদের জন্য কোরবানি দেয়ার বাধ্যবাধকতা রয়েছে। জাকাত বছরের যেকোনো সময় আদায় করা গেলেও ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা রমজান মাসে জাকাত আদায় করে থাকেন এ কারণে যে, ওই মাসে যেকোনো পুণ্য কাজের জন্য অধিক সওয়াব পাওয়ার আশা করা হয়।
আমাদের দেশের বিত্তবানরা কোরবানির পশু জবাই করার পর এর গোশত তিন ভাগে ভাগ করে এক ভাগ নিজেদের আহারের জন্য রাখেন আরেক ভাগ আত্মীয়-স্বজন ও বন্ধু-বান্ধবের মধ্যে বিলি-বণ্টন করেন এবং তৃতীয় ভাগ গরিব-মিসকিনদের মধ্যে বিলি-বণ্টন করেন। আত্মীয়-স্বজন ও বন্ধু-বান্ধবের মধ্যে যে ভাগ বিলি-বণ্টন করা হয় অধিকাংশ ক্ষেত্রে দেখা যায় এটি বিলি-বণ্টনে সীমিত না থেকে বরং বিনিময়ে রূপ নেয়। অর্থাৎ এক আত্মীয় বা এক বন্ধু আরেক আত্মীয় বা বন্ধুকে তার কোরবানি করা গরু, ছাগল, মহিষ, উট, ভেড়া প্রভৃতির গোশত দিলে তিনিও তার কোরবানি করা পশুর সমপরিমাণ বা ক্ষেত্র বিশেষে এর কম বা বেশি গোশত দিয়ে আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করেন।

ছোটবেলায় দেখেছি আত্মীয় বা বন্ধুর বাসায় গোশত পাঠানোর ক্ষেত্রে খবরের কাগজ দিয়ে মুড়িয়ে ক্ষুদ্র মোড়কসমূহ একটি চটের থলিতে ভরা হতো এবং থলি থেকে নির্দিষ্ট বাসায় নির্দিষ্ট মোড়কটি পৌঁছে দেয়া হতো। অধিকাংশ ক্ষেত্রে দেখা যেত নির্দিষ্ট বাসা থেকে আরেকটি ক্ষুদ্র মোড়কের মধ্যে রক্ষিত গোশত খবরের কাগজ দিয়ে মুড়িয়ে আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হতো।

আমাদের দেশে পলিথিনের ব্যাগের প্রচলন শুরু হওয়ার পর থেকে খবরের কাগজ দিয়ে গোশত মোড়ানোর পরিবর্তে পলিথিনের ব্যাগের মধ্যে নির্দিষ্ট পরিমাণ গোশত ভরে গোশত পাঠানো বা বিনিময়ের প্রথা চালু হয়। গোশত পাঠানো যে একটি শিল্প হতে পারে এটি কখনো আমার ধারণায় বা বিবেচনায় আসেনি। কয়েক বছর আগে একটি কোরবানির ঈদে আমার এক বন্ধু আমার বাসায় আয়তক্ষেত্র আকারের একটি ছোট বাঁশের ঝুড়ির মধ্যে গোশত ভরে ঝুড়ির উপরিভাগ স্বচ্ছ সেলোফিন পেপার দিয়ে ঢেকে পাঠান। বন্ধুর এ পদ্ধতি আমার কাছে অভিনব ঠেকে এবং আমার পরিবারের সব সদস্যসহ বন্ধু-বান্ধব ও আত্মীয়-স্বজন যাদের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করেছি এবং আয়তাকার ঝুড়িটি প্রদর্শন করেছি তারা সবাই আমার এ বন্ধুর রুচির প্রশংসা করেছেন।

পরের বছর কোরবানির ঈদের সময় এ বন্ধু আমার বাসায় বাঁশের ঝুড়িতে করে গোশত পাঠিয়েছিলেন কি না এ বিষয়ে আমাকে আমার বাসার কেউ নিশ্চিত করে বলতে পারেনি। উল্লেখ্য যে, ওই বছর কোরবানির ঈদের সময় আমি, আমার স্ত্রী ও আমাদের এক পুত্র পবিত্র হজ পালনের জন্য দেশের বাইরে অবস্থান করছিলাম।

এর পর থেকে প্রতি কোরবানির ঈদের দিন বিকেলে আমার এ বন্ধুটি বিভিন্ন ধরনের বাঁশের ঝুড়িতে করে গোশত পাঠিয়ে তার পূর্বের ঐতিহ্য ও রুচির কথা স্মরণ করিয়ে আসছেন।
আমার বন্ধুটির নাম মাজহারুল হাসান খান। তিনি দেশের একটি খ্যাতিমান বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জনের পর এমবিএ ডিগ্রি অর্জন করেন। বর্তমানে তিনি বিভিন্ন ধরনের ব্যবসার সাথে জড়িত। এর আগে বেশ কিছুকাল তিনি মধ্যপ্রাচ্যের একটি দেশে চাকরিতে নিয়োজিত ছিলেন।

জনাব মাজহারুল হাসান প্রথম যখন বিশেষ ধরনের বাঁশের ঝুড়িতে করে গোশত পাঠান তখন তাকে জিজ্ঞেস করেছিলাম এ অভিনব পদ্ধতি কি আপনার নিজের উদ্ভাবন নাকি অন্য কোথাও থেকে শিখেছেন। উত্তরে তিনি জানালেন, এটি তার নিজের উদ্ভাবন এবং এর মাধ্যমে গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর যে মানুষগুলো এটি তৈরির সাথে জড়িত তাদের তিনি কাজ দিয়ে সহায়তা করেছেন এবং এর পাশাপাশি গোশত পাঠানো পদ্ধতিতে পরিবর্তন এনে এটিকে শৈল্পিক রূপ দেয়ার চেষ্টা করেছেন। এখানে উল্লেখ্য যে, তিনি শুধু বিশেষ পদ্ধতিতে গোশত পাঠিয়ে তার আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করেননি, এর সঙ্গে তিনি একটি বিশেষ ধরনের কার্ড পাঠিয়ে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়ে থাকেন।

যেকোনো দেশের প্রচলিত মুদ্রার বিনিময় হার মুদ্রার সমপরিমাণ হয়ে থাকে। যেমন ১০০ টাকার বিনিময় হার ১০০ টাকার সমপরিমাণ পণ্যের বিনিময় মূল্য। কিন্তু ১০০ টাকা যদি চারটি হাত বদল হয় তখন অর্থনীতির সূত্রমতে এর বিনিময় মূল্য দাঁড়ায় ৪০০ টাকা।
গোশত পাঠানো পদ্ধতিতে শৈল্পিক মাত্রা যোগ করে জনাব মাজহারুল হাসান যে নতুন রুচিবোধের ধারণা দিয়েছেন তাতে যদি আমরা তিনি যে পদ্ধতি উদ্ভাবন করেছেন সে পদ্ধতি বা অন্য কোনো পদ্ধতি উদ্ভাবনের মাধ্যমে অনুসরণ করি তাহলে এর মাধ্যমে আমাদের দেশের দরিদ্র জনগোষ্ঠী ঈদ উৎসবের প্রাক্কালে একটি বিশেষ ধরনের কাজ পাবে, যা তাদের ক্ষণিকের বেকারত্ব ঘুচাবে ও দারিদ্র্য বিমোচনে সহায়ক ভূমিকা রাখবে।

বর্তমান বাজারদর অনুযায়ী আমাদের দেশের বিত্তবানরা বিভিন্ন মূল্যের পশু কোরবানি করে থাকেন। একজন বিত্তবান যিনি পশু কোরবানির পেছনে লক্ষাধিক টাকা ব্যয় করতে পারেন তিনি যদি তার রুচিবোধে পরিবর্তন আনয়নের মাধ্যমে জনাব মাজহারুল হাসান উদ্ভাবিত পন্থায় বা অন্য কোনো অভিনব পন্থায় অতিরিক্ত এক-দুই হাজার টাকা ব্যয় করে আত্মীয়-স্বজন ও বন্ধু-বান্ধবের বাসায় গোশত পাঠান সে ক্ষেত্রে তার রুচিবোধ সবার কাছে প্রশংসিত হবে এবং প্রকারান্তরে এ প্রশংসার বিনিময়ে তিনি যে অর্থনীতির চাকাকে কিছুটা হলেও সচল করেছেন সে কথাটি তার উপলব্ধিতে না এলেও সচেতন যেকোনো নাগরিকের উপলব্ধিতে আসবে।

আমাদের দেশের এক বিরাট জনগোষ্ঠী বেকারত্বের অভিশাপে অভিশপ্ত। এর জন্য এই হতদরিদ্র জনগোষ্ঠী দায়ী নয়। দায়ী আমরা যারা বিত্তবান তারা এবং যারা দেশের নীতিনির্ধারণীসহ প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে রাষ্ট্র পরিচালনায় নিয়োজিত। পৃথিবীর সর্বত্র সময় ও যুগের পরিবর্তনের সাথে সাথে মানুষের চাহিদা ও রুচিরও পরিবর্তন ঘটে। আর সে দৃষ্টিকোণ থেকেই ভোগ্যপণ্য প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানগুলো পণ্যের গুণগত মানের উৎকর্ষ সাধন ও মোড়কের পরিবর্তন ও পরিবর্ধনের মাধ্যমে পণ্যকে ভোক্তার কাছে অধিকতর আকর্ষণীয় করে তোলার চেষ্টা করে। এর মাধ্যমে শিল্প উদ্যোক্তারা সুফলও পেয়ে থাকেন। আমাদের ক্ষুদ্র আয়তনের এ দেশটি পৃথিবীর সবচেয়ে জনবহুল দেশ এবং দারিদ্র্যসীমার নিচে বাস করছে এমন জনগোষ্ঠীর সংখ্যা এ দেশের মোট জনসংখ্যার ৪০ ভাগের অধিক। এ বিপুল জনগোষ্ঠীর দারিদ্র্য বিমোচন সরকারের একার পক্ষে সম্ভব নয়। জনাব মাজহারুল হাসান তার রুচিবোধের পরিবর্তনের মাধ্যমে তার অবচেতন মনে দারিদ্র্য বিমোচনে যে ভূমিকা রেখেছেন দেশের অন্য বিত্তবানরা যদি একই পদ্ধতিতে অথবা ভিন্নতর নব উদ্ভাবিত অন্য কোনো পদ্ধতিতে শৈল্পিক মাত্রা যোগ করে কোরবানির গোশত পাঠান বা বিনিময় প্রথা চালু করেন তাহলে তা আমাদের বিপুল জনগোষ্ঠীর দারিদ্র্য বিমোচনের ক্ষেত্রে একটি নতুন ধারার জন্ম দেবে।

আশা করি, দেশের বিত্তবানরা তাদের রুচিবোধে নিজস্ব উদ্ভাবিত পন্থায় পরিবর্তন আনয়নের মাধ্যমে বন্ধু-বান্ধব ও আত্মীয়-স্বজনকে চমক দেয়ার পাশাপাশি দেশের দরিদ্র জনগোষ্ঠীর জন্য কল্যাণকর ও মঙ্গলজনক কিছু করার জন্য ব্রতী হবেন।

লেখক : সাবেক জজ, সংবিধান, রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক বিশ্লেষক
E-mail: iktederahmed@yahoo.com


আরো সংবাদ


premium cement
মুন্সীগঞ্জে বিএনপির নেতাকর্মীদের বাড়িতে বাড়িতে অভিযান, ১৩ জন গ্রেফতার এমবাপ্পের জোড়া গোলে কোয়ার্টার ফাইনালে ফ্রান্স লবিস্টের কথায় বিএনপি ১০ ডিসেম্বর সমাবেশের সিদ্ধান্ত নিয়েছে : পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সমাবেশের আগে বিএনপি নেতাকর্মীরা জড়ো হতে পারবে না : ডিবিপ্রধান বিএনপি নেতা ইশরাকের গাড়ি ভাঙচুর বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবল কোম্পানির ৪৬ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ অনুমোদন গণসমাবেশ সফলে ঢাকা বারে আইনজীবীদের মধ্যে লিফলেট বিতরণ মুন্সী মেহেরউল্লাহ ছিলেন ব্রিটিশ বাংলার শ্রেষ্ঠ ইসলাম প্রচারক গুজবে কান দেবেন না তিন ব্যাংকের ঋণ কেলেঙ্কারি অনুসন্ধানের নির্দেশ হাইকোর্টের ভারতকে হারিয়ে অবিশ্বাস্য জয় টাইগারদের

সকল