১০ ডিসেম্বর ২০২২, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ১৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

কাঁদলেন ফেদেরার, কাঁদালেন অন্যদের

লেভার কাপে শেষবারের মতো অংশ নিতে এসে কান্নায় ভেঙে পড়েন রজার ফেদেরার। এ সময় আবেগ আপ্লুত রাফায়েল নাদালও : ইন্টারনেট -

টেনিস কোর্ট থেকে বিদায় অশ্রুসিক্ত নয়নে। নিজে কাঁদলেন, কাঁদালেন বন্ধু-সতীর্থ-প্রতিপক্ষদেরও। চোখের জল সামলাতে পারেননি টেনিস কোর্টের বড় ‘শত্রু’ রাফায়েল নাদালও। যার কথা বললাম, তিনি হচ্ছেন আধুনিক টেনিসের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় সুইস তারকা রজার ফেদেরার। তবে পেশাদার ক্যারিয়ারের শেষ ম্যাচ জিততে পারেননি ২০ বারের গ্র্যান্ডস­্যাম জয়ী ফেদেরার। হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে টিম ওয়ার্ল্ডের ফ্রান্সেস টিয়াফো এবং জ্যাক সকের বিপক্ষে ৪-৬, ৭-৬ (৭/২), ১১-৯ ব্যবধানে হেরেছেন ফেদেরার-নাদাল।
এই ফলাফলে টিম ইউরোপ ও টিম ওয়ার্ল্ড ২-২ ব্যবধানে সমতায় ছিল। কিন্তু অস্ট্রেলিয়ান অ্যালেক্স ডি মিনায়েরের কাছে অ্যান্ডি মারে দিনের শেষে সিঙ্গেলসে হেরে যাওয়ায় টিম ইউরোপের পরাজয় নিশ্চিত হয়। লেভার কাপে এর আগের চারটি আসরই জিতেছিল টিম ইউরোপ।
লেভার কাপে ডাবলসে গত পরশু ক্যারিয়ারের শেষ ম্যাচে পার্টনার ছিলেন টেনিস মাঠের দীর্ঘ দিনের প্রতিপক্ষ ও বন্ধু রাফায়েল নাদাল। ২০ বারের গ্র্যান্ডস­্যাম বিজয়ী ফেদেরারের ক্যারিয়ার থেমে যায় ইনজুরিতে। গত বছর জুলাইয়ে উইম্বলডনের কোয়ার্টার ফাইনালের পর কোর্টে নামতে পারেননি। হাঁটুর ইনজুরিতে ৪১ বছর বয়সেই বিদায় বলেন টেনিসকে।
ম্যাচ শেষে দর্শকদের অভিবাদনে কেঁদে ফেলেন ফেদেরার। নাদালের চোখেও ছিল জল। এই দুই তারকার প্রথম সাক্ষাৎ ২০০৪ সালে। পরের দুই দশকে একাধিক ম্যাচে খেলেছেন। মোট ৪০ বারের সাক্ষাতে ২৪-১৬-এ এগিয়ে নাদাল।
খেলা শেষে সমর্থকদের হাততালি, চিৎকারে থামতে বাধ্য হলেন সুইস কিংবদন্তি। তিনি বলেন, ‘আমার জন্য এত মানুষ চিৎকার করছে। এ এক অদ্ভুত পাওয়া। সকলে এখানে রয়েছে। খুব ভালো লাগছে। আমার মেয়েরা, ছেলেরা, স্ত্রী, সবাই রয়েছে।’ ‘ও (স্ত্রী মিরকা ফেদেরার) অনেক আগেই আমাকে থামিয়ে দিতে পারত। কিন্তু ও সেটা করেনি। আমাকে খেলার জন্য অনুপ্রেরণা দিয়েছে।’ এরপর আর পারলেন না কথা বলতে। কান্না বাঁধ ভাঙলো। কোনো মতে পরিবারকে ধন্যবাদ জানিয়ে টেনিস যুগের সমাপ্তি টানলেন।
ফেদেরার-নাদাল গত পরশু একে অপরের পাশে থেকে প্রতিপক্ষকে মোকাবেলা করেন। কোর্টে আসার পরই স্টেডিয়ামের ভক্ত-সমর্থকরা শেষবারের মতো দাঁড়িয়ে ফেদেরারকে স্বাগত জানান।
২০০৩ সালে প্রথম গ্র্যান্ডস­্যাম শিরোপা উইম্বলডন জিতেছিলেন ফেদেরার। ১৯ বছরের বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারে আটটি উইম্বলডন শিরোপাসহ সর্বমোট জেতেন ১০৩টি শিরোপা। একাই জয় করেছেন ১৩০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারেরও বেশি প্রাইজমানি।


আরো সংবাদ


premium cement