০১ ডিসেম্বর ২০২১, ১৬ অগ্রহায়ন ১৪২৮, ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩ হিজরি
`

সেমিফাইনাল সম্ভব : তামিম

-

চোট থেকে ফিরে পুনর্বাসনের অংশ হিসেবে নেপালে ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগ খেলতে গিয়েছিলেন তামিম ইকবাল। কিন্তু দেশে ফেরেন নতুন চোট নিয়ে। আঙুলে ব্যান্ডেজ নিয়ে আপাতত বাসায় সময় কাটছে তার। বাংলাদেশ দল যখন আগামীকাল বিশ্বকাপে মিশনে অংশ নেয়ার প্রহর গুনছে তখন তার সময় কাটবে দেশে বসে টিভির সামনে। তামিমের কথায়, ‘খারাপ তো লাগছেই। আমি তো এটায় অভ্যস্থ নই। সবসময় দলের সাথেই থাকি। কথায় আছে, যা হয় ভালোর জন্যই হয়। আমি নিজে না খেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। কারণও ব্যাখ্যা করেছি। আমার জীবনের প্রায় সিদ্ধান্তই খুব দ্রুত সময়ের মাঝে নিয়েছি। এটিও একটি। আমি সবসময় নিজের মনের কথা শুনি। ভুল হোক বা ঠিক, হৃদয়ের কথা শুনি।’
বিশ্বকাপে দল নিয়ে তামিমের ভাবনা, ‘আমি আশাবাদী ভালো করবে। এই টুর্নামেন্টে হয়তো খেলছি না, কিন্তু আমি তো এই দলেরই অংশ। বাংলাদেশ দল সেমিফাইনালে খেলবে বলে মনে হয়। আর তা হবে দারুণ অর্জন। ক্রিকেটে যে কোনো কিছুই সম্ভব।’
দলকে আত্মবিশ্বাসী বললেন তামিম, ‘দলে বড় শক্তির জায়গা হচ্ছে আত্মবিশ্বাস। জয়ের আত্মবিশ্বাস। স্কিলের দিক থেকে বললে, আমাদের ব্যাটিং গভীরতা। অনেক নিচে পর্যন্ত ব্যাট করি আমরা। ৮ নম্বর পর্যন্ত ভালো ব্যাটসম্যান আমাদের। এটা বড় শক্তি। বোলিং খুব ভালো এবং মূল বোলার যারা, তারা খুব ভালো ফর্মে আছে। মোস্তাফিজ-সাকিব তো ঘরের মাঠের সিরিজগুলোর পর আইপিএলেও ভালো করেছে। মেহেদি, নাসুমরা ভালো ফর্মে আছে। দলটা ব্যালান্সড। এখন পারফর্ম করার ব্যাপার। প্রতি ম্যাচেই অন্তত দু-তিনজনকে ভালো পারফর্ম করতে হবে। সঙ্গে অন্যরা টুকটাক করলেই হবে।’
দলের ঘাটতির জায়গাগুলো পুরনো বললেন তামিম, ‘নতুন কিছু নেই, যা কিছু আছে সব পুরনো। সবসময়ই বলি, ক্রিকেট ৭০ শতাংশই হলো মনস্তাত্ত্বিক খেলা। মন যদি ভালো থাকে, সবাই যদি খুশি থাকে, তা হলে অনেক ঘাটতি পুষিয়ে নেয়া যায়।
চূড়ান্ত পর্বের আগে পার হতে হবে প্রথম পর্ব। আপাতদৃষ্টিতে বিষয়টি মোটেও সহজ নয় বলে মনে করেন তামিম, ‘লোকে যতটা সহজ মনে করে, তার চেয়ে কঠিন। কারণ প্রচণ্ড চাপ থাকে। এটি একটি এমন জায়গা, ভালো করলেও মূল্যায়ন হয় না। কিন্তু খারাপ করলে বড় বিপদ। সবার ভাবা উচিত, এটি আন্তর্জাতিক ম্যাচ ও মূল বিশ্বকাপেরই অংশ। মাঠে নামা মানেই জয়ের নিশ্চয়তা নয়। সবাই ভাবে স্কটল্যান্ড, নেদারল্যান্ডস কিংবা আয়ারল্যান্ড এরা এমন কী। ম্যাচের অবস্থা, কন্ডিশন, এসব ভুলে যায়। আশা করি, দল ভালোভাবেই যাবে পরের রাউন্ডে। ওরা নিয়মিত নয় বলে ওদের সম্পর্কে ধারণা কম থাকে। ভিডিও তো খুব বেশি পাওয়া যায় না। তাই তাদের বিপক্ষে জয় সহজ মনে হলেও তা সবসময় সহজ নয়। ’
অন্য দলগুলো নিয়ে তামিম বলেন, ‘২০১৯ বিশ্বকাপে যেমন বলা গেছে যে ইংল্যান্ড ফেবারিট বা ভারত, এবার বলা কঠিন। ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলটা দুর্দান্ত, ম্যাচ জেতানোর মতো অনেক ক্রিকেটার রয়েছে তাদের। ভারত তো সবসময়ই ফেভারিট। ইংল্যান্ডও আছে। নিউজিল্যান্ডকে কখনোই হিসাবের বাইরে রাখা যায় না। পাকিস্তানের এটা ঘরের মাঠ ছিল এতদিন, ওরাও ফেবারিট। বড় মঞ্চে অস্ট্রেলিয়াকে গুনতে হবে।’



আরো সংবাদ