১৯ অক্টোবর ২০২১, ৩ কার্তিক ১৪২৮, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিজরি
`

সাবিনার হ্যাটট্রিকে ঐতিহাসিক জয়

বাংলাদেশ ৫ (সাবিনা ৪, তহুরা): ০ হংকং
-

এই মহিলা জাতীয় ফুটবল দলকে লম্বা সময় ধরে অনুশীলনে রাখা। নেপালে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে চার্টার্ড বিমানে পাঠানো। সেখানে দুই ম্যাচে ভালো করলেও মূল আসর মহিলা এশিয়ান কাপের বাছাই পর্বে দুই ম্যাচে ১০ গোল হজম। জর্দান এবং ইরানের বিপক্ষে পাঁচটি করে গোলে হারের পর সমালোচনার মুখেই পড়েন সাবিনা খাতুনরা। এত দিন ধরে জাতীয় দলের ক্যাম্পে থেকেও কেন ভুলের খেসারতে এভাবে হালি হালি গোল হজম করা। অবশ্য এই দুই ম্যাচে করা ভুলগুলো থেকেই শিক্ষা নিয়ে সে অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়েছে বাংলাদেশ দল। তাই গতকাল প্রীতি ম্যাচে অধিনায়ক সাবিনা খাতুনের হ্যাটট্রিকে হংকংয়ের বিপক্ষে ৫-০ গোলের ঐতিহাসিক জয়। সিনিয়র ফুটবলে এই প্রথম হংকংকে হারানো। সাথে প্রথমবারের মতো কোনো জাতীয় দলের বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচে জয় পাওয়া। উজবেকিস্তানের তাশখন্দের জার অ্যাকাডেমি ট্রেনিং গ্রাউন্ডে অনুষ্ঠিত ম্যাচটিতে গোলাম রব্বানী ছোটনের দলের গোল উৎসবের শুরুটা হয়েছিল তহুরা খাতুনের মাধ্যমেই। এরপর হ্যাটট্রিকসহ চার গোল সাবিনার।
পাঁচ গোল হজম করেছে বলে হংকংকে খাটো করার কোনো সুযোগ নেই। ফিফা র্যাংকিংয়ে লাল-সবুজ মেয়েদের চেয়ে অনেক এগিয়ে পূর্ব এশিয়ার এই দেশটি। ৭৬ এর অবস্থান তাদের। জর্দান (৬৩) ও ইরানের (৭২) চেয়ে সামান্য পিছিয়ে। যেখানে বাংলাদেশের র্যাংকিং ১৩৭। অবশ্য এই দলটির বিপক্ষে এত বড় জয় পাওয়ার পরও র্যাংকিংয়ে উন্নতি হচ্ছে না বাংলাদেশের। কারণ ম্যাচটি ফিফা উইন্ডোতে হয়নি। এতেই আফসোস বাফুফের মহিলা উইংয়ের চেয়ারম্যান ও ফিফার কাউন্সিল মেম্বার মাহফুজা আক্তার কিরনের। জানান, ‘বড় লোকসান হয়ে গেল ম্যাচটি ফিফা উইন্ডোতে না হওয়ায়।’
১৮ মিনিটে তহুরার ৪২তম আন্তর্জাতিক গোলে উল্লাস শুরু বাংলাদেশ দলের। ৪৩ মিনিটে স্কোর দ্বিগুণ করেন সাবিনা খাতুন। এরপর ৫৩, ৫৭ মিনিটে আরো দুই গোল করে পূরণ করেন নিজের হ্যাটট্রিক। ৮৫ মিনিটে নিজের চতুর্থ গোল আদায় বসুন্ধরা কিংসের এই স্ট্রাইকারের। তার এর আগের হ্যাটট্রিকটি ছিল ২০১৬ সালের সাফে আফগানিস্তানের বিপক্ষে।
সব মিলিয়ে নেপাল ও উজবেকিস্তানে পাঁচ ম্যাচের শেষটি জয় নিয়েই ফিরতে পেরেছে বাংলাদেশ। বাকি চার ম্যাচের একটিতে ড্র। ম্যাচ শেষে উজবেকিস্তান থেকে কোচ ছোটন জানান, আমাদের ইয়াং টিমকে যত বেশি সুযোগ দেয়া যাবে ততই তারা উন্নতি করবে। পরাজয়ে হতাশ হওয়া যাবে না। ফুটবলাররা ইরান ও জর্দানের বিপক্ষে করা ভুল থেকে শিক্ষা নিয়ে দেশের জন্য কিছু করার জন্য এই ম্যাচ খেলেছে। কোচ তথ্য দেন, এই ম্যাচে ছোট শামসুন্নাহার, তহুরা ও সানজিদাকে একাদশে খেলানো হয়।

 



আরো সংবাদ


সকল

মেয়ের চিকিৎসায় ১০ দিন ধরে ঢাকার হাসপাতালে থেকেও মন্দির ভাঙার আসামি (১২৯০৫)‘বাতিল হলো ঢাকা-চট্টগ্রাম এক্সপ্রেসওয়ে প্রকল্প’ (১২২০৬)প্রধানমন্ত্রী মোদি কি আগামী নির্বাচনে হেরে যাচ্ছেন বলে এখনই টের পেয়েছেন (৯৫৬৯)কাশ্মিরে নতুন করে উত্তেজনা ভারতের তালেবানভীতি থেকে? কেন সেই ভীতি? (৯৪১৪)কাশ্মিরে এক অভিযানে সর্বোচ্চ সংখ্যক ভারতীয় সেনা নিহত (৮০৩৮)৭২-এর সংবিধানে ফিরে যেতেই হবে : তথ্য প্রতিমন্ত্রী (৬৬০০)সঙ্কটের পথে রাজনীতি (৫৯৭৭)গ্রাহকদের উদ্দেশে কারাগার থেকে যা বললেন ইভ্যালির রাসেল (৪৮৯৫)পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবীর সরকারি ছুটি পুনর্নির্ধারণ (৪৮৬২)কিছু ‘বিভ্রান্তিকর খবরের’ পর বাংলাদেশের পদক্ষেপের প্রশংসা করেছে ভারত (৪৮২৯)