১৯ অক্টোবর ২০২১, ৩ কার্তিক ১৪২৮, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিজরি
`

কে হবেন লাল-সবুজদের নাম্বার ৯

-

দরজায় কড়া নাড়ছে আরেকটি সাফ ফুটবল। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার সাত দেশের বিশ্বকাপ খ্যাত এই আসরে বাংলাদেশের একমাত্র সাফল্য ২০০৩ সালে। নিজ মাঠে সেবারই প্রথম এবং সর্বশেষ চ্যাম্পিয়ন হওয়া লাল-সবুজদের। এরপর ক্রমান্বয়ে পেছনে চলে যেতে থাকা। ২০০৫ সালে সর্বশেষ ফাইনালে উপস্থিতি। আর ২০০৯ সালে শেষবারের মতো সেমিফাইনালে খেলার স্বাদ অর্জন। পরের কোনো আসরেই গ্রুপ পর্ব ডিঙ্গনো সম্ভব হয়নি। ২০১৮ এর সাফে সম্ভাবনা জেগেছিল প্রথম দুই ম্যাচে জিতে। তবে সেমিতে খেলার সেই স্বপ্ন ধূলিসাৎ নেপালের বিপক্ষে গোলরক্ষক সোহেলের হাস্যকর ভুলে। পুরনো সব ব্যর্থতা ভুলে ১ অক্টোবর থেকে শুরু হতে যাওয়া সাফ ফুটবলকে ঘিরে ফের ট্রফি জয়ের প্রত্যাশা। জেমি ডে কে বাদ দিয়ে অস্কার ব্রুজনকে কোচের দায়িত্ব দেয়ার নেপথ্যও তাই। এই প্রত্যাশাকে বাস্তবে রূপ দিতে জিততে হবে। জয়ে গোল করার বিকল্প নেই। কিন্তু এই গোলটা কে করবেন বাংলাদেশ দলে।
অনেক বড় আশা নিয়ে এলিটা কিংসলেকে বাংলাদেশ দলের প্রাথমিক স্কোয়াডে রাখা হয়েছে। লিগে তার করা গোলের সংখ্যা তিনটি। এই নাইজেরিয়ান বাংলাদেশের নাগরিকত্ব পেলেও এখন লাল-সবুজ জার্সি গায়ে তুলতে ফিফার অনুমতি পায়নি। যদি ১ অক্টোবর সাফ শুরুর আগে ম্যানেজার্স মিটিং সময়ও এই ছাড় পত্র আসে তাহলে সাফে তাকে খেলানো যাবে। অন্যথায় বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে গোল খরায় ভোগা স্ট্রাইকাররাই হবেন অস্কারের ফরোয়ার্ড লাইনের ভরসা। আজ বাংলাদেশ দলের ২৩ সদস্যের স্কোয়াড ঘোষণা করা হবে।
নাবিব নেওয়াজ জীবনের ইনজুরির পর মতিন মিয়াই বাংলাদেশ দলের মূল স্ট্রাইকার। নাম্বার ৯ পজিশনে খেলছেন তিনিই। ২০২০ এর বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জোড়া গোল করা মতিন এরপর আর গোলের মুখ দেখেননি। না জাতীয় দলের জার্সি গায়ে না নিজ ক্লাব বসুন্ধরা কিংসের হয়ে। অথচ আগের লিগে তার করা গোল ছিল ১২টি। এবার লিগে গোল না করতে পারার জন্য তিনি কম ম্যাচ খেলাকে দায়ী করার পাশাপাশি বলেন, ‘বুঝলাম না এবার কেন গোল পাচ্ছি না।’ ২০১৮ সাফে ভুটানের বিপক্ষে গোল করা মাহাবুবুর রহমান সুফিল নেপালের তিন জাতি ফুটবলের ফাইনালে গোল করেন নেপালের বিপক্ষে। তবে এবারের লিগে গোল মাত্র একটি।
এদের বিকল্প উত্তর বারিধারার স্ট্রাইকার সুমন রেজা। লিগে তার করা গোল ১০টি। সর্বশেষ কিরগিজস্তানের অনূর্ধ্ব-২৩ দলের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচে দু’টি দুর্দান্ত গোল করেছেন। তার সাথে আছেন ঢাকা আবাহনীর জুয়েল রানা। তারও লিগে করা গোলের সংখ্যা ১০টি। ৪-৩-৩ ফরমেশনে আক্রমণাত্মক কৌশলে বিশ্বাসী অস্কার ব্রুজনের একাদশে নাম্বার ৯ এ কি নিয়মিত হতে পারবেন সুমন ও ২০১৯ সালের পর জাতীয় দলে ডাক পাওয়া জুয়েল। আরেক ফরোয়ার্ড চট্টগ্রাম আবাহনীর রাকিব হোসেন এবারের লিগে করেছেন সাত গোল। উইংগার হিসেবেই পরিচয় তার। দেশী ফুটবলারদের মধ্যে এই তিনজনই সবচেয়ে বেশি গোল করেছেন। জুয়েলও নিজ দলের মূল স্ট্রাইকার ছিলেন না।



আরো সংবাদ


সকল

মেয়ের চিকিৎসায় ১০ দিন ধরে ঢাকার হাসপাতালে থেকেও মন্দির ভাঙার আসামি (১২৯০৫)‘বাতিল হলো ঢাকা-চট্টগ্রাম এক্সপ্রেসওয়ে প্রকল্প’ (১২২০৬)প্রধানমন্ত্রী মোদি কি আগামী নির্বাচনে হেরে যাচ্ছেন বলে এখনই টের পেয়েছেন (৯৫৬৯)কাশ্মিরে নতুন করে উত্তেজনা ভারতের তালেবানভীতি থেকে? কেন সেই ভীতি? (৯৪১৪)কাশ্মিরে এক অভিযানে সর্বোচ্চ সংখ্যক ভারতীয় সেনা নিহত (৮০৩৮)৭২-এর সংবিধানে ফিরে যেতেই হবে : তথ্য প্রতিমন্ত্রী (৬৬০০)সঙ্কটের পথে রাজনীতি (৫৯৭৭)গ্রাহকদের উদ্দেশে কারাগার থেকে যা বললেন ইভ্যালির রাসেল (৪৮৯৫)পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবীর সরকারি ছুটি পুনর্নির্ধারণ (৪৮৬২)কিছু ‘বিভ্রান্তিকর খবরের’ পর বাংলাদেশের পদক্ষেপের প্রশংসা করেছে ভারত (৪৮২৯)