২৮ জুলাই ২০২১
`

বিশ্বকাপ আয়োজন করতে চায় বাংলাদেশ

-

অনেক প্রতীক্ষার পর শেষ হলো বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভা। অনেকগুলো ইস্যুতেই গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছিল এই সভা। অবশেষে সুরাহা হলো অনেক এজেন্ডা। ২০২৫ ও ২০২৯ সালে মোট আটদল নিয়ে মিনি বিশ্বকাপ খ্যাত চ্যাম্পিয়নস ট্রফি আয়োজন করবে আইসিসি। এককভাবে যে কোনো একটি টুর্নামেন্ট আয়োজন করার জন্য বিড করবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। এ ছাড়া ২০২৭ ও ২০৩১ সালে রয়েছে দু’টি ওয়ানডে বিশ্বকাপ। যৌথভাবে ওয়ানডে বিশ্বকাপ আয়োজক হওয়ার জন্য বিড করবে বাংলাদেশ। গতকাল বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান পাপন বোর্ড সভা শেষে গণমাধ্যমে এ কথা বলেন।
ওয়ানডে বিশ্বকাপ আয়োজন করতে হলে অন্তত ১০টি ও টি-২০ বিশ্বকাপ আয়োজন করতে হলে থাকতে হবে ৮টি ভেনু। এই চাহিদা পূরণের সামর্থ্য নেই বিসিবির। এ কারণেই মূলত যৌথভাবে টুর্নামেন্টের স্বাগতিক হতে চায় তারা।
২০১১ সালের বিশ্বকাপে ভারত ও শ্রীলঙ্কার সাথে আয়োজক হিসেবে ছিল বাংলাদেশ। এর পর ২০১৪ সালের টি-২০ বিশ্বকাপেরও একক আয়োজক ছিল। উপমহাদেশে হওয়া ১৯৮৭, ১৯৯৬ ও ২০১১ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপের কোনোটিই এখন পর্যন্ত এককভাবে আয়োজিত হয়নি। ১৯৮৭ বিশ্বকাপ পাকিস্তানকে সাথে নিয়ে ভারত, ১৯৯৬ বিশ্বকাপ ভারত, পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কাÑ এই তিন দেশ মিলেই আয়োজন করেছিল। আর ২০১১ বিশ্বকাপে ভারত ও শ্রীলঙ্কার সাথে বাংলাদেশেও হয়েছে বিশ্বকাপের অনেকগুলো ম্যাচ।
বঙ্গবন্ধুর নামে ডিপিএল বলে বন্ধ হয়নি
সাকিবের লাথি ইস্যুতে নানা মতামত উঠে এসেছে। আম্পায়ারদের নিয়েও হয়েছে আলোচনা। বোর্ডসভায় এটিও উঠেছে। পাপন জানান, ‘আম্পাররা যখন এতই খারাপ বা তাদের নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। তাহলে প্রিমিয়ার লিগ চালিয়ে লাভ কি। বন্ধ করে দিতে চেয়েছিলাম। কিন্তু যখন দেখলাম এটি বঙ্গবন্ধুর নামে টুর্নামেন্ট তাই বন্ধ করিনি।’
তিনি যোগ করেন, তদন্ত কমিটির কাছে কোনো ক্লাব, কোনো অধিনায়ক কিংবা কেউ আম্পায়ার নিয়ে কোনো অভিযোগ করেননি। তাহলে কিভাবে শাস্তি হবে। আমাদের আরো একটু ভেবেচিন্তে এগুনো উচিত।
চুক্তিতে সাকিব
সাকিব আল হাসানের বিতর্কিত কর্মকাণ্ড নিয়ে মাঠের বাইরে তুমুল আলোচনা-সমালোচনার ঝড় বইলেও মাঠের ক্রিকেটে তার অবস্থানের কোনো ব্যত্যয় ঘটেনি। নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ক্রিকেটে ফিরেছেন গত বছর অক্টোবরে। চলতি বছর জুনে বিসিবির চুক্তিতে প্রবেশ করলেন। এ ছাড়া নতুন কিছু খেলোয়াড়ও যুক্ত হয়েছেন চুক্তিতে।
নির্বাচক প্যানেল
বাংলাদেশের জাতীয় দলের খেলোয়াড় নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন অনেক। বিশেষত মিনহাজুল আবেদিন নান্নুর নেতৃত্বাধীন নির্বাচক প্যানেল নিয়ে সমালোচনা রয়েছে। তবে মেয়াদ শেষ হলেও আগামী টি-২০ বিশ্বকাপ পর্যন্ত জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচকই থাকছেন নান্নু। সভাশেষে বিসিবি সভাপতি জানিয়েছেন, মেয়াদ শেষ হওয়ার পর আগামী টি-২০ বিশ্বকাপ পর্যন্ত বর্তমান নির্বাচক প্যানেলের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে। জাতীয় দলের নির্বাচক কমিটিতে মিনহাজুল আবেদিনের নেতৃত্বে রয়েছেন হাবিবুল বাশার সুমন ও আব্দুর রাজ্জাক।
বিদেশী কোচ ও জিম্বাবুয়ে সফর
জিম্বাবুয়ে সফর এবং জাতীয় দলের ব্যাটি কোচ এবং স্পিন বোলিং কোচ নিয়োগ নিয়েও আলোচনা হয়েছে এই সভায়। জিম্বাবুয়ে নিয়ে পাপন বলেন, ‘এখনো জিম্বাবুয়ে আমাদেরকে মানা করেনি। তাদের দেশে করোনা পরিস্থিতি বেড়ে যাওয়ায় তারা যথাযথ ব্যবস্থা নিয়েছে। সাময়িক হয়তো বন্ধ আছে, পরে ঠিক হয়ে যাবে।’ কোচ নিয়ে পাপন জানান, ‘কোচ একটি চলমান প্রক্রিয়া। আলাপ আলোচনা চলছে।’
২৬০ কোটি টাকার বাজেট
বিসিবি যে শক্তিশালী বোর্ড তা আবারো প্রমাণিত হলো। এক বৈঠকেই আগামী অর্থবছরের জন্য নিজেদের বাজেট পাস করে নিলো বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। আগামী অর্থবছরে বিসিবির জন্য বাজেট পাস করা হলো ২৬০ কোটি টাকার।



আরো সংবাদ