০৩ আগস্ট ২০২১
`

তুর্কিদের হারিয়ে ইতালির শুভসূচনা

-

প্রথমার্ধে তুরস্কের রক্ষণভাগ ভাঙতেই পারেনি ইতালি। আক্রমণের সব পসরা তুর্কি ডিফেন্ডারদের সামনে মুখথুবড়ে পড়েছে। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে সে প্রতিরোধটা অনায়াসে ভাঙল রবার্তো মানচিনির শিষ্যরা। অক্ষত জাল অক্ষত রেখে, তুর্কি জালে জড়ালো গুনে গুনে তিন গোল। পরশু ৩-০ গোলের এই জয়ে ইউরো ২০২০ এ শুভসূচনা করল ১৯৬৮ সালের শিরোপাজয়ীরা। মেরিহ দেমিরালের আত্মঘাতী গোলে এগিয়ে যাওয়ার পরে সিরো ইমোবিল ও লরেনজো ইনসাইনি একবার করে অতিথিদের জালে বল পাঠান। কাল অন্যম্যাচে ১-১ গোলে ড্র করেছে সুইজারল্যান্ড ও ওয়েলস। ৪৯ মিনিটে এমবোলো গোলে সুইজারল্যান্ড এগিয়ে যাওয়ার পর ৭৪ মিনিটে কিইফার মুরের গোলে সমতা।
নিজেদের মাঠ স্তাদিও অলিম্পিকোয় শুরুটা বেশ ভালোই হয়েছিল ইতালির। তবে মাঝমাঠের দখলটা প্রতিপক্ষ বিপদসীমা পর্যন্ত নিয়ে যেতে বেশ কাঠখড়ই পোড়াতে হয়েছে ইনসাইনিদের। প্রথমার্ধে তাই দলটা বলার মতো ত্রাস সৃষ্টি করতে পেরেছে ৩৩ মিনিটে। ক্রস থেকে ভেসে আসা বলে দারুণ এক হেড করেছিলেন জর্জিও কিয়েলিনি। কিন্তু তার হেডা কর্নারের বিনিময়ে রুখে দেন তুর্কি গোলরক্ষক উগুরকান চেকির। ফলে গোলহীনভাবে প্রথমার্ধ শেষ করে দুই দলই।
তুর্কিদের লাল দেয়ালে ফাটল ধরল দ্বিতীয়ার্ধে। ৫৩ মিনিটে যখন ডমেনিকো বেরার্দির ক্রসটা বিপদমুক্ত করতে চাইলেন তুর্কি ডিফেন্ডার মেরিহ দেমিরাল। বিপদমুক্ত তো করতে পারলেনই না, উল্টো জড়িয়ে দিলেন নিজেদের জালেই। ৬৬ মিনিটে লিওনার্দো স্পিনাজোলার শট ঠেকিয়ে দেন গোল তুর্কি গোলক্ষক। সিরো ইমোবিলের ফিরতি চেষ্টায় তা গোলে পরিণত হয় (১-০)। ৭৯ মিনিটে ইনসাইনে তুরস্কের কফিনে ঠুকলেন শেষ পেরেকটা। বক্সের বাইরে থেকে ইমোবিলে বলটা বাড়ান ফাঁকায় দাঁড়ানো ইতালি ফরোয়ার্ডকে। সেখান থেকে ইনসিনিয়ের ট্রেডমার্ক কার্লারে বলটা জড়ায় জালে (৩-০)। গোল রক্ষকের ভুল পাস থেকে এই গোলের উৎস। সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে পরের ম্যাচ ইতালির।

 



আরো সংবাদ