১৩ মে ২০২১
`

অপেক্ষা এখন চূড়ান্ত স্কোয়াডের

-

শ্রীলঙ্কায় লাল দলের ব্যাটিং অনুশীলনটা ভালো হলেও প্রত্যাশা পূরণ করতে পারেনি সবুজ দল। জয়-পরাজয় মুখ্য নয়। শ্রীলঙ্কার ঝাঁজালো রোদে টেস্ট সিরিজ শুরুর আগে নিজেদের একটু ঝালিয়ে নেয়া, কন্ডিশনের সাথে ধাতস্থ হওয়াই ছিল মূল লক্ষ্য। তা ছাড়া ব্যক্তিগত পর্যায়ে ভালো করে চূড়ান্ত স্কোয়াডে জায়গা পোক্ত করারও একটা ব্যাপার ছিল। এবার অপেক্ষা মূল দলে জায়গা পাওয়ার।
গত ফেব্রুয়ারিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে দুই ম্যাচে হারের পর দেশের বাইরে দুই দিনের গা গরমের ম্যাচ প্রস্তুতি জং ছাড়ানোর উপলক্ষ। প্রথম দিন গত শনিবার তামিম ইকবালের লাল দলের ব্যাটিং দেখে সন্তুষ্ট হয়েছেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু। টপ অর্ডারে তামিম, সাইফ হাসান, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুশফিকুর রহীমের ব্যাটিংয়ে খুশি হয়েছেন। অধিনায়ক তামিম (৬৩), সাইফ হাসান (৫২), শান্ত (৫৩), মুশফিক (৬৬) আর কিপার নুরুল হাসান সোহান (৪৮), মিরাজ (২৪*) সবাই রান করায় প্রথম দিন শেষে তামিমের লাল দলের রান হয়েছিল ৩১৪। জবাবে গতকাল দ্বিতীয় দিনে ৭১ ওভারে ২২৫ রানে অলআউট হয়ে যায় মুমিনুলের সবুজ দল। ফলে ৮৯ রানে জয় পায় তামিমের লাল দল।
পাল্টা ব্যাটিংয়ে নেমে লিটন দাস, সাদমান ইসলাম, অধিনায়ক মুমিনুল, মোহাম্মদ মিঠুন, ইয়াসির আলী রাব্বিদের নিয়ে গড়া সবুজ দল অবশ্য লাল দলের মতো রানের নহর বইয়ে দিতে পারেনি। নিগোম্বোর কাতুনায়াকের চিলাও মারিয়ান্স ক্রিকেট ক্লাব মাঠে দুই দিনের প্রস্তুতি ম্যাচের শেষ দিনে পাল্টা ব্যাটিংয়ে নামে সবুজ দল। ওপেনিংয়ে নেমে লিটন ২৭ রান করে স্বেচ্ছায় সাজঘরে ফিরেন। পরে সাতে ব্যাটিং নেমে করেছেন ৬৩। আরেক ওপেনার সাদমান ১৯ ও ইয়াসির আলী ১৫ রান করে আউট হন। অধিনায়ক মুমিনুল ফিরেছেন রানের খাতা না খুলেই! অবশ্য পরে আবার ব্যাটিংয়ে নেমে করেছেন ৪৭ রান। লাল দলে বোলারদের মধ্যে সফল ছিলেন অফস্পিনার মিরাজ। ৪১ রান খরচায় নেন ৪ উইকেট। পেসার আবু জায়েদ রাহী আর বাঁ-হাতি স্পিনার তাইজুল একটি করে উইকেট নেন।
বাংলাদেশ দল ভাগ হয়েই প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছে। ২১ জনের স্কোয়াড হওয়ায় একজন খেলোয়াড়ের কমতি ছিল। ওই জায়গা পূরণ করেছেন সাপোর্টিং স্টাফের এক সদস্য।
সংক্ষিপ্ত স্কোর
লাল দল : ৩১৪/১ (তামিম ৬৩, সাইফ ৫২, শান্ত ৫৩, মুশফিক ৬৬, সোহান ৪৮, মিরাজ ২৪*, তাইজুল ২)।
সবুজ দল : ২২৫ অলআউট, ৭১ ওভারে (লিটন ৬৩ , মুমিনুল ৪৭ , মিঠুন ২৮, শরিফুল ২০*, মিরাজ ৩/৪১, রাহী ১/২৮, তাইজুল ১/৩০)।



আরো সংবাদ