০৮ মে ২০২১
`

১১ রেকর্ডেও নেই স্বর্ণের আশা

-

সদ্যসমাপ্ত বাংলাদেশ গেমসে ছিল রেকর্ডের ছড়াছড়ি। ৬০ রেকর্ডের মধ্যে সর্বাধিক ৩৪টি হয়েছে ভারোত্তোলনে। ১১টি রেকর্ড হয়েছে সাঁতারে। এই রেকর্ড গড়ে সাঁতারুরা নিজ নিজ বাহিনীতে প্রশংসায় ভাসছেন। পেয়েছেন বা পাবেন পুরস্কারও। তবে এত রেকর্ড গড়েও এস এস গেমসে স্বর্ণ পুনরুদ্ধারের মতো অবস্থানে নেই কোনো সাঁতারু। এই টাইমিং দিয়ে বড়জোর রৌপ্য এবং ব্রোঞ্জ জেতা যাবে। এমন মন্তব্য বাংলাদেশ সুইমিং ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক এম বি সাইফ মোল্লা এবং যুগ্ম সম্পাদক আমিরুল ইসলামের। অবশ্য ফেডারেশন আগামী এস এ গেমসকে সামনে রেখে ঈদের পরই দীর্ঘমেয়াদি ক্যাম্পে আয়োজন করতে যাচ্ছে। যেখানে ৪০ জন্য সাঁতারুকে ট্রেনিং দেয়া হবে। এরপর যদি আরো উন্নতি হয় টাইমিংয়ে।
এত রেকর্ডের মধ্যে পুরুষদের ৫০ মিটার ফ্রি-স্টাইল, ১০০ মিটার বাটারফ্লাই এবং মহিলাদের ১০০ মিটার বাটারফ্লাইয়ে এস এ গেমসে পদক জেতার মতো টাইমিং। তবে তা স্বর্ণজয়ের মতো টাইমিং নয়। ৫০ মিটার ফ্রি-স্টাইলে আসিফ রেজা ২৩ সেকেন্ডের একটু বেশি সময় নিয়ে রেকর্ড গড়েন। মহিলাদের ১০০ মিটার বাটারফ্লাইয়ে সোনিয়া আক্তার টুম্পা ১ মিনিট ৭ সেকেন্ডে এবং পুরুষদের ১০০ মিটার বাটারফ্লাইয়ে মাহমুন্নবী নাহিদ ৫৬ সেকেন্ডে সাঁতার শেষ করে নতুন রেকর্ড গড়েছেন। এই তিন ইভেন্টে পরের এস এ গেমসে ভালো ফাইট করতে পারবেন সাঁতারুররা। তবে তা রৌপ্য বা ব্রোঞ্জ পদকের জন্য। জানান কোচ ও সংগঠক আমিরুল ইসলাম।
কেন বাংলাদেশী সাঁতারুরা স্বর্ণের জন্য ফাইট করতে পারেব না। ফেডারেশন সেক্রেটারি দিলেন এর উত্তর। ‘এস এ গেসসে ভারত, নেপাল এবং শ্রীলঙ্কা তাদের প্রবাসী সাঁতারুদের খেলায়। এরা বিদেশের মাটিতে উন্নত প্রশিক্ষণে বড় হয়। এর পর গেমসে দেশের প্রতিনিধিত্ব করে। তাই তাদের দখলেই যায় স্বর্ণ।’ এম বি সাইফ যোগ করেন, ‘আমরা এমন প্রবাসী সাঁতারু খুঁজছি। তবে তেমন পাচ্ছি না।’ ইংল্যান্ড প্রবাসী জুনাইনা আহমেদ এ ক্ষেত্রে আশার আলো। তবে এবার তিনি বাংলাদেশ গেমসে নিজেকে সেভাবে তুলে ধরতে পারেননি। সাইফের জবাব, ইংল্যান্ডেতো কারোনার জন্য লকডাউন চলছে। তাই তার পক্ষে সেভাবে অনুশীলন করা হয়নি।
তবে চরম হতাশ করেছেন আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির অধীনে ফ্রান্সে দুই বছর ধরে অনুশীলন করা আরিফুল ইসলাম। তিনি তার সেরা টাইমিংয়ের ধারে কাছেও যেতে পারেননি এবারের বাংলাদেশ গেমসের ৫০, ১০০ ও ২০০ মিটার ব্রেস্ট স্ট্রোকে। এতে বিরক্ত ফেডারেশন সেক্রেটারি অবশ্য আরো ভালো টাইমিং করার জন্য উদ্ধুদ্ধ করছেন তাকে। উল্লেখ্য, ২০১৯ কাঠমান্ডু এস এ গেমসে আরিফের কাছে স্বর্ণ প্রত্যাশা করা হলেও তিনি রৌপ্য পদকের বেশি কিছু দিতে পারেননি। এই গেমসে মহিলাদের ইভেন্টে সর্বশেষ ২০১৬ এর শিলং-গৌহাটি দুই স্বর্ণ জয় করেন মাহফুজা খাতুর শিলা। আর পুরুষদের বিভাগে শাহজাহান আলী রনি ২০০৬ সালে কলম্বোতে সর্বশেষ স্বর্ণ পান। রনি এবং শিলা এখন স্বামী-স্ত্রী ।
এখন ফেডারেশন চেয়ে আছে দীর্ঘমেয়াদি ক্যাম্পের দিকে। ম্যাক্স এবং সাইফ পাওয়ার টেকের পৃষ্ঠপোষকতায় এই ক্যাম্পে বাংলাদেশ গেমসে ভালো করা এবং সেরা সাঁতারুর খোঁজে প্রোগ্রাম থেকে ২০ জনসহ মোট ৪০ জনকে দেয়া হবে প্রশিক্ষণ। প্রথমে দেশী কোচরা প্রশিক্ষণ দিলেও পরে আনা হবে বিদেশী কোচ। জানান সেক্রেটারি।



আরো সংবাদ