১৭ এপ্রিল ২০২১
`

পরিবর্তনের অঙ্গীকারে অনুশীলন শুরু

-

ক্রাইস্টচার্চের লিঙ্কন বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষায়িত মাঠে গতকাল চারটি গ্রুপে ভাগ হয়ে আলাদা সময়ে অনুশীলন করেছেন মুশফিক-তামিমরা। প্রতি গ্রুপে পাঁচজন ক্রিকেটার ও দুইজন করে সাপোর্ট স্টাফ ছিলেন। প্রতি গ্রুপের জন্য বরাদ্দ ছিল ২ ঘণ্টা করে। আগামী সাত দিন এভাবেই চলবে গ্রুপ অনুশীলন পর্ব। এরপর কুইন্সটাউনে পাঁচ দিনের ক্যাম্পে পুরো দল মিলে অনুশীলন চলবে।
গত ২৪ ফেব্রুয়ারি নিউজিল্যান্ডে পা রাখার পর গতকাল প্রথম অনুশীলন করল বাংলাদেশ দল। উচ্ছ্বাস দলের সবারই। মুক্তির আনন্দ বলে কথা। মুখে চওড়া হাসি, উইকেটের পাশে ‘থামস আপ’ দেখিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে মুশফিকুর রহিমের ছবি। সাথে লিখা, ‘৮ দিন কোয়ারেন্টিনের পর দারুণ একটি সেশন হলো’।
ব্যাটিং-বোলিং ঘষামাজা দিয়ে সিরিজের প্রস্তুতি আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়েছে দলের। সফরে এবার দলের লক্ষ্য নিউজিল্যান্ডে জয় খরা কাটানো। কিউইদের বিপক্ষে তাদের দেশে কোনো সংস্করণেই কখনো জিততে পারেনি বাংলাদেশ। দেশ ছাড়ার আগে যে কথা বলে গেছেন ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল, সে লক্ষ্যের কথাই ফের উঠে এলো সাইফের কণ্ঠে। বিসিবির পাঠানো ভিডিও বার্তায় অলরাউন্ডার সাইফ উদ্দিন জানালেন, ‘প্রত্যাশা অবশ্যই থাকবে। ওয়ানডেতে আমরা অনেক ভালো দল। দিনটি যদি আমাদের হয়, সবাই যদি ভালো খেলতে পারি, ফল অবশ্যই আমাদের পক্ষে কথা বলবে। পাশাপাশি টি-২০ আছে।’ জানান, যেহেতু এর আগে আমাদের প্রাপ্তির খাতা একদমই শূন্য, তাই চেষ্টা থাকবে এই সিরিজ থেকে কিছু নিয়ে যেন দেশে ফিরতে পারি। মূলত তেমন অঙ্গীকারেই শুরু করেছি অনুশীলন।
প্রথম দিনের অনুশীলনে বেশি জোর ছিল ফিল্ডিংয়ে। সাইফের বার্তায়, অনুশীলনে সবার আগে আমরা ফিল্ডিং নিয়ে বেশি কাজ করেছি। শর্ট ক্যাচ, হাই ক্যাচ নিয়ে এখানে আবহাওয়া ও বাতাসের সাথে মানিয়ে নেয়ার ব্যাপার আছে। এ জন্যই ক্যাচিং করা। এরপর আমরা ছোট ছোট সেশনে ব্যাটিং-বোলিং করেছি।
যোগ করেন, পরে ফিটনেস নিয়ে কাজ করেছি, যেহেতু গত ৭ দিন ফিটনেসের কাজ খুব বেশি করতে পারিনি। ট্রেনারের নির্দেশনা অনুযায়ী রানিং করেছি। সামনে যতদিন সময় আছে, অনুশীলনে নিজেদের মানিয়ে নেয়ার চেষ্টা করব।
নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশ এখন পর্যন্ত ৯টি টেস্ট, ১৩টি ওয়ানডে ও ৪টি টি-২০ খেলেছে। একটি ম্যাচও জিততে পারেনি। ৯ টেস্টে একটি ড্রও নেই। এবারের নিউজিল্যান্ড সফরে অবশ্য টেস্ট খেলবে না বাংলাদেশ। ওয়ানডেতে বাংলাদেশ টেস্টের চেয়ে অনেকটাই ভালো। সম্প্রতি ঘরের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৩ ম্যাচের সিরিজে ধবলধোলাই করেছিল বাংলাদেশ।
ঘর আর প্রতিপক্ষের মাঠ মিলিয়ে সর্বশেষ ২১টি ওয়ানডেতে ১৩টিতেই জয় পেয়েছেন তামিম-মুশফিকরা। তবে নিউজিল্যান্ডে জিততে হলে সেখানকার কন্ডিশনের সাথে মানিয়ে নিতে হবে আগে। এভাবে কোয়ারেন্টিন মেনে নিউজিল্যান্ডে আসার অভিজ্ঞতা আমাদের জন্য। একজন ক্রীড়াবিদ হিসেবে আমরা সব সময়ই সব ধরনের পরিস্থিতিতে নিজেদের মানিয়ে নিতে চেষ্টা করি। শুরুটা কঠিন মনে হয়েছে। এখন মনে হচ্ছে পরীক্ষায় উতরে গেছি।

 



আরো সংবাদ