২০ এপ্রিল ২০২১
`

বড় জয়ে শক্ত বাধা অতিক্রম বসুন্ধরার

আবাহনী ( বেলফোর্ড) ১:৪ ( বেচেরা ২, খালেদ, জোনাথন)বসুন্ধরা কিংস
-

ঢাকা আবাহনী-বসুন্ধরা কিংস ম্যাচ মানেই বাংলাদেশের ফুটবলে নতুন শক্তির জয়। লিগ, ফেডারেশন কাপ এবং স্বাধীনতা কাপ মিলে দুই দলের ৬ বার সাক্ষাৎ। এতে পাঁচ বারেই বিজয়ের হাসি বসুন্ধরা কিংসের। যার সর্বশেষটি হলো গতকাল। বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের গুরুত্বর্পূণ এই ম্যাচে জয়ের বিকল্প ছিল না আকাশী নীল শিবিরের। জিতলে তারা শিরোপার রেসে গরম নিঃশ্বাস ফেলতে পারতো বসুন্ধরা কিংসের ওপর। অথচ হলো পুরোপুরি উল্টো। তাদেরকে ৪-১ গোলে উড়িয়ে লিগ চ্যাম্পিয়নশিপ ধরে রাখার ক্ষেত্রে আরো এগিয়ে গেল অস্কার ব্রুজনের দল। অন্যদিকে লিগে প্রথম হারে বলতে গেলে শিরোপার রেস থেকে এক প্রকার ছিটকেই গেল মারিও লেমসের দল। আগের চারটি ড্র আর গতকালের পরাজয়ের ফলে আবাহনীর পয়েন্ট ১১ খেলায় ২২। অন্য দিকে জয়ে প্রথম পর্ব শেষ করা বসুন্ধরার সংগ্রহ ১২ খেলায় ৩৪।
ঘুরে দাঁড়ানোর জন্য আবাহনী প্রথম থেকেই চড়াও হয়ে খেলতে থাকে। কিন্তু বসুন্ধরার রক্ষণভাগে ফাটল ধরাতে পারেনি। উল্টো ১৮ মিনিটে ৬ বারের লিগ চ্যাম্পিয়নদের পিছিয়ে পড়া। ব্রাজিলিয়ান রবসন রবিনহোর বাম পায়ের শট পোস্টে প্রতিহত হলে ফিরতি বলে আর্জেন্টাইন রাউল বেচেরা সারেন আনুষ্ঠানিকতা। আবাহনীর ম্যাচে ফেরার চেষ্টার ইতি ঘটে ২৫ মিনিটে। রবিনহোর কর্নারে ইরানি খালেদ শাফেইর ফ্লিক বোকা বানায় আবাহনীর ডিফেন্স লাইনকে। গোলরক্ষক সোহেল বল ঠেকালেও সহকারী রেফারি শাহ আলমের সঙ্কেত, বল গোল লাইন অতিক্রম করেছে।
প্রথমার্ধের ইনজুরি টাইমে আবাহনীর সমতার সুযোগ নষ্ট হয় হাইতির বেলফোর্ডের ব্যাক হেড পোস্টে লাগায়। এরপর ৫১ মিনিটে প্রতিপক্ষকে ছিটকে ফেলে বসুন্ধরা। বেচেরার পাসে জোনাথন ফার্নান্দেজের শটে পরাস্ত আবাহনীর শেষ প্রহরী। ৭৬ মিনিটে এই প্রথম আবাহনীর জালে চতুর্থবারের মতো বল পাঠানো তাদের। জোনাথনের ক্রসে বেচেরার বুলেট গতির হেডে অসহায় সোহেল। লিগে ১১টি গোল করেছেন তিনি। লিগের বর্তমান রানার্সআপরা ৮১ মিনিটে ব্যবধান কমায় বেলফোর্ডের পেনাল্টি শটে। রিমন তাকে বক্সে ফাউল করলে রেফারি বিটু রাজ বড়–য়া নির্দেশ দেন স্পটকিকের। ৮৮ মিনিটে বেলফোর্ডের শট পোস্টে লাগায় দ্বিতীয় গোল পাননি তিনি। এ নিয়ে তৃতীয় বারের মতো আবাহনীর জালে ৩ বা ততোধিক বার বল পাঠালো বসুন্ধরা।
ম্যাচ শেষে হারের জন্য আবাহনীর কোচ লেমস নিজেদের করা ভুলকেই সামনে আনলেন। জানান, ‘বসুন্ধরার মতো বড় দলের বিপক্ষে এভাবে ছোট ছোট ভুলে গোল খেলে আপনাকে হারতেই হবে। ’ আবাহনীর চেয়ে ১২ পয়েন্টে এগিয়েও নিজেদের এখনই চ্যাম্পিয়ন ভাবছেন না ব্রুজন। তার মতে, আমাদের আরো ৭-৮টি ম্যাচ জিততে হবে। এ জন্য চলমান পারফরম্যান্স ধরে রাখতে হবে।



আরো সংবাদ