২০ এপ্রিল ২০২১
`

জেলখানার মতো মনে হয়েছে : মিরাজ

-

নিউজিল্যান্ডে গিয়ে কঠিন পরীক্ষার সাত দিনের পাঁচ দিন কেটে গেছে বাংলাদেশী ক্রিকেটারদের। বাকি দু’টি দিন ভালোভাবে কাটিয়ে জিম ও অনুশীলন করতে মুখিয়ে আছেন তারা। প্রথম পরীক্ষায় সবাই নেগেটিভ হওয়ায় আধা ঘণ্টার ছুটি পেয়ে বের হয়েছিলেন। তখন নাকি মাথা ঘুরিয়েছিল মেহেদী হাসান মিরাজের। অবশ্য কতক্ষণ পর ঠিক হয়ে গেছে। স্বাভাবিক হয়েছেন।
গতকাল বিসিবির পাঠানো ভিডিও বার্তায় অলরাউন্ডার মিরাজ জানান, সবাই নিজের মতো করে সময় কাটানোর পথ বের করে নিয়েছেন। ‘বুঝতেই পারছেন কেমন কাটছে। এই প্রথম হোটেলের ভেতর এ রকম পাঁচটা দিন কাটিয়েছি। প্রথম দিকে সময় কাটছিল না। প্রথম তিন দিন তো কারো সাথে দেখাই হয়নি। ফোনে-ফোনে কথা হয়েছে সবার সাথে, ভিডিও কলে কথা হয়েছে। প্রথম দিকে বোরিং লাগছিল, সময় কাটছিল না। পাঁচ দিন যাওয়ার পর স্বাভাবিকভাবেই আরো দু’দিন পার করতে পারব বলে মনে হচ্ছে।’
প্রথম তিন দিন জেলখানার মতো মনে হয়েছে মিরাজের, ‘প্রথম তিন দিন তো রুমের ভেতরেই ছিলাম। মনে হচ্ছিল জেলখানায় আছি। তারপর আধা ঘণ্টা করে বের হওয়ার সুযোগ পেয়েছি সবাই। শুরুর দিকে মাথা একটু ঘোরাচ্ছিল। তারপর ১০-১৫ মিনিট পর ঠিক হয়ে যায়। পরে রুমে ঢুকে আর বোর লাগেনি।’
আপাতত আধা ঘণ্টার জন্য মুক্ত বাতাসে শ্বাস নেয়াটা বেশ উপভোগ করছেন, তবে জিম, অনুশীলনের জন্য মুখিয়ে আছেন মিরাজরা। ‘সারা দিন রুমে থাকতে তো আর ভালো লাগে না। তিন-চার দিন একইভাবে রুমে কাটানো, এটা আসলে একটু অস্বস্তিকর। যখন আমরা জিম ও মাঠে যেতে পারব, তখন আমাদের ভালো লাগবে।’
দলের সাথে থাকা ডা: দেবাশীষ চৌধুরী জানান, ‘ষষ্ঠ দিন তৃতীয় করোনা টেস্টের পর সব ঠিক থাকলে সপ্তম দিন পাঁচজন করে জিমে যাওয়া যাবে। আর অষ্টম দিনে পাঁচজনের গ্রুপ করে খোলা আকাশের নিচে অনুশীলন করার সুযোগ মিলবে।’



আরো সংবাদ