২০ অক্টোবর ২০২০

৪ বিদেশী খেলবে এক দলে

৪ বিদেশী রেজিস্ট্রেশন; খেলবেও সমান সংখ্যক; ৪ ভেনুতে খেলা, হবে নতুন ভেনু; নতুন চুক্তিতে ২৫ শতাংশ পারিশ্রমিক; বকেয়ার ৪৫ শতাংশ দিয়ে চুক্তি স্বাক্ষর
-

বাফুফের বর্তমানে পেশাদার লিগ কমিটির শেষ সভা ছিল গতকাল। তাতে যে সিদ্ধান্ত তা শেষ পর্যন্ত বহাল থাকলে ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে মাঠে গড়াবে ২০২০-২১ মওসুমের ফুটবল। ফেডারেশন কাপ দিয়েই যাত্রা শুরু হবে করোনার ধাক্কা সামলিয়ে ফুটবল সিজনের। লিগ কমিটির আগের সভায় অধিকাংশ ক্লাবই বিদেশীর বিপক্ষে ছিল। এখন ভিন্ন সুর। দুই ক্লাব ছাড়া বাকি সব ১১ ক্লাবই বিদেশীর পক্ষে। কালকেই এই সভায় এই সিংহভাগ ক্লাবের মতামতেই প্রতিফলন। আসন্ন মওসুমে প্রতি ক্লাব চারজন বিদেশীকে করাতে পারবে রেজিস্ট্রেশন। খেলতে পারবে এই চার জন। এই সংখ্যা গত বারের তুলনায় একজন কম। গত সিজনে পাঁচ বিদেশী ফুটবলারকের রেজিস্ট্রেশন করানো হয়েছিল। মাঠে নামতে পারতো চারজন। জানান লিগ কমিটির চেয়ারম্যান আবদুস সালাম মুর্শেদী।
করোনার সময়েই হবে লিগ। যদি পরিস্থিতির উন্নতি হয় তাহলে ভিন্ন কথা। করোনাকালে ঢাকার বাইরে কোনো হোটেলে থেকে খেলার পক্ষে নয় কোনো ক্লাব। তাই ঢাকার আশপাশের ভেনুতেই হবে খেলা। যাতে দিনে দিনে খেলে ফিরে আসা যায়। এই ভেনুর সংখ্যা চারটি। বলেন সালাম মুর্শেদী। তার মতে, আগামী বছর প্রচুর আন্তর্জাতিক ম্যাচ আছে। তাই আমাদের তাড়াতাড়ি খেলা শেষ করতে হবে। এ দিকে বাফুফে সেক্রেটারি আবু নাঈম সোহাগ তথ্য দেন, ঢাকার নিকটবর্তী ভেনু হলে নতুন একাধিক ভেনুতে খেলা হতে পারে।
আসন্ন ফুটবল মওসুমে সবচেয়ে আলোচিত ছিল খেলোয়াড়দের পারিশ্রমিক। তারা তাদের বকেয়ার পুরো টাকা এবং নতুন চুক্তিতে পুরনো চুক্তির উপর ৬০ শতাংশ পারিশ্রমিক দাবি করেছিল। কিন্তু ক্লাব ক্লাবগুলোর সাথে আলোচনা করে লিগ কমিটির সিদ্ধান্ত, পুরনো চুক্তির ২৫ শতাংশ টাকা দিয়ে এবারের মওসুমে খেলোয়াড়দের নিতে পারবে প্রত্যেক ক্লাব। সে সাথে বকেয়া টাকার ৪৫ শতাংশ হাতে দিয়েই চুক্তি স্বাক্ষর করাতে হবে। তবে যাদের পারিশ্রমিক ১০ লাখের কম তাদের বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্তই নেয়নি লিগ কমিটি।
লিগের আগে কবে দলবদল তা বাফুফের নির্বাচনের দিকে ঠেলে দেয়া হলো। মানে নতুন কমিটি এসে সিদ্ধান্ত নেবে। গতকালের সভায় ছিল না পুলিশ এবং চট্টগ্রাম আবাহনীর কোনো প্রতিনিধি। চট্টগ্রাম আবাহনী তাদের প্রতিনিধি বদল করেছে বলে জানান সালাম মুর্শেদী।

 

 


আরো সংবাদ