২২ জানুয়ারি ২০২১
`

ফিরতে পেরে ভালো লাগছে মুমিনুলের

-

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস লকডাউন দেশের ক্রিকেটারদের জন্য আশীর্বাদ হয়ে এসেছে বলে মনে করেন বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হক। কোভিড-১৯ এর কারণে খেলোয়াড়রা খেলার প্রযুক্তিগত ও মানসিক দিক নিয়ে কাজ করার সুযোগ পেয়েছেন বলে জানান তিনি। তার মতে, যখন কোনো খেলোয়াড় খেলা নিয়ে অনেক বেশি ব্যস্ত থাকেন, তখন তার পক্ষে ব্যক্তিগতভাবে এ বিষয়গুলো নিয়ে কাজ করা কঠিন হয়ে পড়ে।
বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের আয়োজিত ব্যক্তিগত অনুশীলনে গতকাল যোগ দেন মুমিনুল। মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুশীলন শেষে মুমিনুল বলেন, ‘লকডাউনের সময় আমরা ক্রিকেট নিয়ে চিন্তা-ভাবনা করার সময় পেয়েছি। যেহেতু আমাদের ক্রিকেট খেলা ছিল না, ফিটনেস নিয়ে কিছু কাজ ছিল, মনস্তাত্বিক দিক নিয়ে কিছু কাজ ছিল, প্রযুক্তিগত ও কৌশলগত দিক নিয়ে ভার্চুয়ালি কোচের সাথে কিছু কাজ ছিল। নিজেদের দক্ষতার উন্নতির জন্য অনেকেই কোচদের সাথে আলোচনা করেছেন। আমি মনে করি, প্রত্যক খেলোয়াড়ই বিভিন্নভাবে বিভিন্ন ইস্যুতে আলোচনা করেছে। দীর্ঘমেয়াদে আমরা উপকৃত হতে পারব বলে আশা করছি, যখন আমরা ক্রিকেটে ব্যস্ত হয়ে পড়ব, তখন আমরা এসব বিষয় নিয়ে আলোচনা করার সুযোগ পাবো না। তাই এটি খুবই ভালো ছিল।’ তবে যাই হোক না কেন, মুমিনুল জানান, মাঠের খেলা খুব মিস করেছেন এবং আবারো নিজের পরিচিত জায়গায় ফিরে আসতে পেরে খুশি হয়েছেন। তিনি বলেন, ‘আবারো ক্রিকেটে ফিরতে পেরে সত্যিই খুব ভালো লাগছে। লকডাউনের পর আজই আমার প্রথম দিন, তাই সবকিছুই নতুন বলে মনে হচ্ছে। সব কিছুর সাথে মানিয়ে নিতে তিন-চার দিন সময় লাগবে।’
মুমিনুলের সাথে মিরপুর স্টেডিয়ামে সকল স্বাস্থ্য বিধি মেনে মুশফিকুর রহীম, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদসহ সাতজন খেলোয়াড় গতকাল ব্যক্তিগত অনুশীলনে যোগ দিয়েছেন। ঢাকা ছাড়াও, শনিবার থেকে আরো চারটি ভেনুতে ১২ জন ক্রিকেটার অনুশীলন শুরু করেছেন। আপাতত, ছয় দিনের অনুশীলনের সূচি প্রকাশ করেছে বিসিবি। এরপরে আরো ক্রিকেটার অনুশীলনে যোগ দিলে এটি নতুন করে তৈরি করা হবে।

 



আরো সংবাদ