১২ জুলাই ২০২০

এশিয়ায় সেরা পাঁচে বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম

-

মধ্য ও দক্ষিণ এশিয়ার সেরা স্টেডিয়ামের তালিকায় উঠে এসেছে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামের নাম। সম্প্রতি এশিয়া মহাদেশের ফুটবল নিয়ন্ত্রক সংস্থা এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশন (এএফসি) তাদের ওয়েবসাইটে কয়েকটি বিখ্যাত স্টেডিয়ামের নাম প্রকাশ করে। সেখানেই উঠে এসেছে ঢাকার এই স্টেডিয়ামের নাম। বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম ছাড়াও এই তালিকায় জায়গা পেয়েছে ভারতের সল্ট লেক স্টেডিয়াম, ইরানের আজাদী স্টেডিয়াম, উজবেকিস্তানের পাখতাকর স্টেডিয়াম এবং তাজিকিস্তানের সেন্ট্রাল রিপাবলিকান স্টেডিয়াম।
মহামারী করোনাভাইরাসে বন্ধ এশিয়ার ফুটবল। তবে মাঠের খেলা বন্ধ থাকলেও ফুটবলকে চাঙ্গা রাখতে নিয়মিত আয়োজন রাখছে এএফসি। তারই অংশ হিসেবে দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়ার সেরা কয়েকটি স্টেডিয়ামের তালিকা প্রকাশ করে সংস্থাটি। সেখানেই উঠে এসেছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে দেশের জাতীয় স্টেডিয়ামটির নাম। অনেক স্মরণীয় ও ঘটনার সাক্ষী এই বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম।
ক্রিকেটকে মাথায় রেখে স্টেডিয়ামের যাত্রা শুরু হলেও পরবর্তীতে ফুটবলের জন্য বরাদ্দ দেয়া হয় স্টেডিয়ামটি। ১৯৭৮ সালে সবচেয়ে বড় আলোচনায় আসে এই স্টেডিয়াম। ওই সময় বিশ্বসেরা বক্সার মোহাম্মদ আলী এই মাঠেই একটি প্রীতি বক্সিং ম্যাচ খেলেছিলেন। এ ছাড়াও ২০০৩, ২০০৯ ও ২০১৮ সালের সাফ গেমস, ২০১০ সালের দক্ষিণ এশিয়ান গেমস আয়োজন করা হয় এখানে। শুধু তা-ই নয়, ২০১১ সালে এই স্টেডিয়ামেই নাইজেরিয়ার সাথে ঐতিহাসিক প্রীতিম্যাচটি খেলেছিল লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনা। এই মাঠেই ২০১১ ক্রিকেট বিশ্বকাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানও হয়েছিল।
বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম সম্পর্কে ওয়েবসাইটে বিবরণ দিয়েছে এএফসি এভাবে, ‘১৯৫৪ সালে ক্রিকেটকে লক্ষ্য করে বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামের যাত্রা। তবে সময়ের সাথে দেশের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভেনু হিসেবে দাঁড়িয়ে যায় স্টেডিয়ামটি। শুরুর পর থেকে বিভিন্ন সময় এই ভেনুটির উন্নতি সাধন করা হয়েছে দেশের ক্রীড়ার উন্নয়নের বিকাশ ঘটাতে। ৩৬ হাজার আসন সমৃদ্ধ এই স্টেডিয়ামটি স্বাগতিক দর্শকদের বিনোদনের সবচেয়ে বড় জায়গা। এখানে বিভিন্ন ক্রীড়া আসর আয়োজন করা হয়েছে, যার মধ্যে ২০০৩ সালের সাফ ফুটবলের আসর দর্শক এবং স্টেডিয়ামটির সবচেয়ে স্মরণীয় গৌরবের মুহূর্ত বলে ধরে নেয়া হয়। যেবার বাংলাদেশ ফুটবল দল ফাইনালে মালদ্বীপকে হারিয়ে শিরোপা নিজের করে নেয়।’
বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম বিশ্বের একমাত্র স্টেডিয়াম যেটিতে দু’টি ভিন্ন দেশের উদ্বোধনী টেস্ট ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছে। দু’টি খেলাতেই প্রতিপক্ষ ছিল ভারত। প্রথম খেলায় ১৯৫৪-৫৫ সালে তৎকালীন অবিভক্ত পাকিস্তান দল ভারতের বিপক্ষে টেস্ট খেলার মাধ্যমে টেস্ট অঙ্গনে যাত্রা শুরু করে। এর ৪৬ বছর পর ২৬ জুন, ২০০০ তারিখে, বাংলাদেশ টেস্ট মর্যাদা পাওয়ার পর প্রথম টেস্ট খেলায় ভারতের মোকাবেলা করে।

 

 


আরো সংবাদ

বেসরকারি ব্যাংকে আতঙ্ক (১৯৬৬৬)যুবলীগ নেত্রীর টর্চার সেল নিয়ে টঙ্গীতে তোলপাড় (৯২২৭)আয়া সোফিয়া নিয়ে এবার খ্রিষ্টানদের উদ্দেশ্যে যা বলল তুরস্ক (৭০৪৮)স্ত্রীর সামনেই আত্মহত্যা করলেন আফগান ফেরত মার্কিন সৈন্য (৬৭৭৯)যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি চীনের হঠাৎ ‘আপস বার্তা’র নেপথ্যে (৬৪১১)বিশ্ব থেকে বিচ্ছিন্নতার আশঙ্কা বাংলাদেশের সামনে? (৫৯৫৩)শিক্ষকের যৌন হয়রানির ভিডিও ভাইরাল, সর্বত্র তোলপাড় (৫৮৭৩)‘আয়া সুফিয়া’কে মসজিদ ঘোষণা এরদোগানের, আজান-তাকবিরে মুখরিত ইস্তাম্বুল (ভিডিও) (৫৮৫৫)স্বামী হত্যার লোমহর্ষক বর্ণনা দিলেন স্ত্রী (৫৪৫৫)দেখুন ৮৬ বছর পর আয়া সোফিয়ায় আজান শুনে যা করল ইস্তাম্বুলবাসী (ভিডিও) (৫২০৮)