০২ জুন ২০২০

পাঁচ উইকেটের আফসোস

-

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৫ উইকেট নেয়ার সুযোগ ছিল অফ স্পিনার নাঈম হাসান ও পেসার আবু জায়েদ রাহীর। ছোট্ট ক্যারিয়ারে একবারই ৫ উইকেট নিয়েছেন নাঈম। ২০১৮ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে অভিষেক টেস্টেই ৫ উইকেট নিয়েছিলেন তিনি। গতকাল জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে আরেকবার সুযোগ ছিল ৫ উইকেট নেয়ার; কিন্তু হয়নি।
এ ক্ষেত্রে আবু জায়েদের আক্ষেপটা হয়তো একটু বেশি। ক্যারিয়ারের নবম টেস্ট খেলছেন। নামের পাশে নেই কোনো পাঁচ উইকেট। দুই উইকেট নিয়ে প্রথম দিন শেষ করা জায়েদ গতকাল দ্বিতীয় দিন সকালের সেশনেই আরো দু’টি উইকেট নিয়ে পাঁচ উইকেটের সম্ভাবনা জাগিয়েছিলেন। সকাল থেকেই জিম্বাবুয়ের নিচের সারির ব্যাটসম্যানদের ভুগিয়েছেন জায়েদ। শুরু থেকেই ভালো সুইং পাওয়া জায়েদকে মনে হয়েছে পাঁচ উইকেট পাওয়াটা সময়ের ব্যাপার। মনে হয়েছিল খরা কাটবে দীর্ঘ সাত বছরের।
টেস্টে বাংলাদেশের কোনো পেসার সর্বশেষ এক ইনিংসে ন্যূনতম পাঁচ উইকেট পেয়েছিলেন ২০১৩ সালে। সেটিও এই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে হারারে টেস্টে। বোলার ছিলেন রবিউল ইসলাম। দীর্ঘ এই খরা আজ কাটাতে পারতেন জায়েদ। তবে শেষ উইকেটে ৫১ বল খেলে জায়েদ-নাঈমকে ভালোই প্রতিরোধ করেছেন চাকাভা-নুয়াচি জুটি। শেষ পর্যন্ত তাইজুল এসে ভেঙেছেন শেষ জুটি।
আগের দিন ৩৬ ওভার বল করা নাঈম গতকাল সকালে বল করেছেন মাত্র দুই ওভার। জায়েদের সাথে তাইজুল ইসলাম অন্য প্রান্ত থেকে বোলিং শুরু করেন। জিম্বাবুয়ের বাকি চার উইকেট ভাগ করে নেন এ দু’জন। তাইজুলের জন্য কপাল খুলেনি জায়েদ ও নাঈমের।

 


আরো সংবাদ