০১ এপ্রিল ২০২০

বাফুফে নির্বাচনে নতুন মেরুকরণ ঁ সরে দাঁড়ানোর কারণ জানালেন তরফদার ঁ ফের প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা সালাউদ্দিনের

-

গত কয়েক বছর বিভিন্ন জেলায় চষে বেড়িয়েছেন। জেলার ফুটবলে পৃষ্ঠপোষকতা করেছেন। ঢাকার বিভিন্ন ক্লাবও আর্থিক সহায়তা পেয়েছে। কোনো দলের জার্সির স্পন্সর। বিভিন্ন ক্লাবকে কম্পিউটার দিয়েছেন। এ সবই ছিল তরফদার রুহুল আমিনের আগামী বাফুফে নির্বাচনে সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা এবং জয়ের জন্য প্রচারণা। এই মিশনে বহু টাকা ব্যয় করেছেন তিনি। অথচ গতপরশু হঠাৎ সিদ্ধান্তে পরিবর্তন তরফদারের। বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিনকে ফোনে তরফদার জানান, ‘আমি বাফুফের সভাপতি পদে নির্বাচন করছি না।’ গতকাল এই মত পরিবর্তনের কারণ আনুষ্ঠানিকভাবে জানালের তিনি। সংবাদ সম্মেলন করে তরফদার বলেন, ‘ফুটবলের নির্বাচন নিয়ে যে কাদা ছোঁড়াছুড়ি চলছে, যে অস্বস্তিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে এর অবসানের জন্যই অপাতত সভাপতি পদে নির্বাচন না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। তবে সভাপতি পদে নির্বাচন না করলেও অন্য পদ গুলোতে আমার প্যানেল দেবো।’ এ দিকে গতকাল সংবাদ সম্মেলনে কাজী সালাউদ্দিন জানান, আমি আগামী নির্বাচনে সভাপতি পদে ফের দাঁড়াব। আরো উল্লেখ করেন, জয়ের ব্যাপারে দৃঢ় বিশ্বাস আছে বলেই সভাপতি পদে নির্বাচন করছি।
নানা গুঞ্জন চলছে তরফদারের সরে দাঁড়ানো নিয়ে। কেউ বলছেন চাপে পড়ে অবস্থানের পরিবর্তন। কারো কারো মতে তার অন্যতম শক্তি চট্টগ্রামের আ জ ম নাসির চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে এবারে মনোনয়ন পাননি আওয়ামী লীগ থেকে, এসব কারণেই তরফাদার এপ্রিলের বাফুফে নির্বাচনে সভাপতি পদে জয়ের আশা দেখছেন না। তাই সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা। তবে এ দুই কারণের কথা অস্বীকার করে তরফদার বলেন, কোনো চাপে নয়। আমার সভাপতি পদে নির্বাচন না করাটা ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত। আর চট্টগ্রামের ওটা রাজিৈনতক ইস্যু, অন্য দিকে এটা ক্রীড়াঙ্গনের ইস্যু। ওটার সাথে এর কোনো সম্পর্ক নেই।
বাফুফেতে নির্বাচন না করলেও ফুটবলের সাথে ভালোভাবেই সম্পৃক্ত থাকার উল্লেখ করে বলেন, আমাদের দু’টি ক্লাব। চট্টগ্রাম আবাহনী এবং সাইফ স্পোর্টিং। সাথে সাইফ স্পোর্টিংয়ের অ্যাকাডেমিও আছে। সুতরাং ফুটবলের সাথে অবশ্যই থাকব। জানান, আমরা ফুটবলের উন্নয়ন চাই।
নিজে সভাপতি পদে নির্বাচন না করলেও সালাউদ্দিনের বিরুদ্ধে অন্য কেউ দাঁড়ালে তাকে সমর্থন দেয়া প্রসঙ্গে বলেন, ‘সেটা সময়ই বলে দেবে।’ তরফদার জানান, সালাউদ্দিন ভাই গত নির্বাচনের সময় বলেছিলেন, ওটাই তার শেষ নির্বাচন । সে মোতাবেকই আমরা কাউন্সিলরদের কাছে ভোট চেয়েছে।
এ দিকে কাজী সালাউদ্দিন জানান, ‘আমিতো কখনই বলিনি আগামীতে নির্বাচন করব না। বলেছি করতেও পারি , নাও করকে পারি। তবে এখন বলছি আগামী নির্বাচনে আমি সভাপতি পদে দাঁড়াব।’ এরপরেই তরফদারকে ধন্যবাদ দেন সাফ সভাপতি। ‘ আমি তরফদারকে ধন্যবাদ দিচ্ছি আমার ওপর আস্থা রাখার জন্য। উনার সাথে আমার ব্যক্তিগত কোনো দ্বন্দ্ব নেই। ফুটবল উন্নয়নে কাজ করতে চাইলে করবে। ফুটবল উন্নয়নে সবাইকে এক সাথে কাজ করতে হবে। খেলেয়াড়, মিডিয়া, সমর্থক, ক্লাব সকলকে।
তরফদার আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বাফুফের সহ সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ মহি ঘোষণা দেন তিনি আগামী নির্বচানে সালাউদ্দিনের প্যালেনে থেকে নির্বাচন করবেন না। তার এই ঘোষণার জবাবে বাফুফে সভাপতি বলেন, কাকে প্যানেলে রাখবো কি রাখব না তা আমি সিদ্ধান্ত নেবো। আরো জানান, আগামীতে সভাপতি পদে নির্বাচন হলে কেউ বাফুফের শৃঙ্খলা ভাঙলে তাকে ছাড় দেয়া হবে না। কেউ নিয়মের বাইরে যেতে পারবে না।
বাফুফে সভাপতি নিশ্চিত করেন, ৩০ এপ্রিলের আগেই বাফুফেতে নির্বাচন হবে।


আরো সংবাদ

মানবিক বিবেচনায় সাঈদীর মুক্তি চান মিরসরাই পীর ঝালকাঠিতে জ্বর-ডায়রিয়ায় শিশুর মৃত্যু, ৬ পরিবার কোয়ারেন্টাইনে কর্মহীন বিএনপির ঘরে ঘরেও খাদ্য সামগ্রী পৌঁছিয়ে দিন : এমপি মোহন মৃত ব্যক্তির দেহে ৪ ঘন্টা পর্যন্ত করোনাভাইরাস থাকতে পারে নিজেদের চিকিৎসার সব অর্থ বিলিয়ে দিলেন দম্পতি ইতালিতে আতঙ্কের এক মাস ব্রিটেনে আটকা পড়া বাংলাদেশীদের হাই কমিশনের সাথে যোগাযোগ করার পরামর্শ কারফিউ অমান্য করে চুল কাটাতে চাওয়ায় আটক সৌদি নাগরিক মুসলিমদেরকে দোষারোপের জন্য দিল্লির মসজিদকে ব্যবহার করা হচ্ছে : ক্রুদ্ধ ওমর আবদুল্লাহ আবেগে কেঁদে ফেললেন আবুধাবির ক্রাউন প্রিন্স কোভিড -১৯ আক্রান্ত নারীর যমজ সন্তান : নাম রাখা হলো করোনা ও ভাইরাস

সকল