০৫ এপ্রিল ২০২০

টেস্ট দলের ব্যাখ্যা দিলেন নান্নু দুই নতুন মুখ

-

শেষ দশ টেস্টে একটি মাত্র ফিফটিই সম্বল। পাকিস্তানের বিপে সর্বশেষ টেস্টে মাহমুদুল্লাহ প্রথম ইনিংসে ২৫ রান করার পর দ্বিতীয় ইনিংসে আউট হয়েছেন শূন্য রানে। এর আগে ভারতের বিপে দুই টেস্টের চার ইনিংসে তিনি করেছেন মোট ৭০ রান। তাই স্কোয়াড ঘোষণার আগেই গুঞ্জন উঠেছিল, বাজে ফর্মের কারণে বাদ পড়বেন তিনি। অবশেষে গুঞ্জনই সত্যি হয়েছে। জিম্বাবুয়ের বিপে রাখা হয়নি মাহমুদুল্লাহ রিয়াদকে। তবে বিসিবির প থেকে জানানো হয়েছে, বাজে ফর্ম নয়; বরং তাকে বিশ্রাম দেয়া হয়েছে।
বিসিবির প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু জানান, ‘মাহমুদুল্লাহ সিনিয়র ক্রিকেটার, ওর বিশ্রামের দরকার আছে। আমরা আগে থেকে ঠিক করেছি যে, ওকে এই সিরিজে দল থেকে বাদ রাখব, যেহেতু জিম্বাবুয়ের বিপে আমরা হোম সিরিজ খেলছি, এখানে আমরা নতুন কিছু ক্রিকেটারকে দেখতে চাচ্ছিলাম। কিছু ক্রিকেটারকে আমরা পাকিস্তান সফরেও নিয়েছি।’
বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগের (বিসিএল) চলমান আসরে এখন পর্যন্ত তিন রাউন্ড খেলেছেন মোস্তাফিজ। তার দখলে রয়েছে ৭টি উইকেট। অথচ অফ ফর্মের কারণে দীর্ঘদিন ধরে জাতীয় দলের বাইরে ছিলেন মোস্তাফিজুর রহমান। ভারতের বিপে স্কোয়াডে থাকলেও ছিলেন সাইড বেঞ্চে। পাকিস্তানের বিপে প্রথম টেস্ট থেকেও বাদ পড়েছিলেন এ পেসার।
এবার জিম্বাবুয়ের বিপে স্কোয়াডে রাখা হয়েছে। কারণ হিসেবে বিসিবির প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন জানান, প্রধান কোচ রাসেল ডোমিঙ্গোর পরামর্শ ও সাম্প্রতিক বিসিএলে তার পারফরম্যান্সে মুগ্ধ টিম ম্যানেজমেন্ট, ‘কোচ এটা চিন্তা করেছিল, কিন্তু এখন আমরা চিন্তা করছি বিসিএলেও যেভাবে ফিরে এসেছে এটা দুর্দান্ত। এখন চিন্তা করছি অবশ্যই তাকে লাল বলে বিবেচনা করা যায়। এটা আজকে (গতকাল) সকালেই কোচের সাথে আমার কথা হয়েছে তখনই আমরা অন্তর্ভুক্ত করেছি।’
রুবেলের ব্যাপারে নির্বাচকদের মনোভাব, ‘সে এখন থেকে সাদা বলে মনোযোগ দিক।’ টেস্ট ক্রিকেটে তার রেকর্ড খুব খারাপ থাকার পরও রাওয়ালপিন্ডি টেস্টে কেন তাকে নেয়া হলো, সে ব্যাপারে মিনহাজুল বলেন, ‘তাসকিন চোটে থাকায় রুবেলকে নেয়া হয়েছিল ব্যাকআপ পেসার হিসেবে। আল আমিন চোটে পড়ায় পাকিস্তানে খেলানো হয় রুবেলকে। আর টিম ম্যানেজমেন্ট থেকে রুবেলকে বলা হয়েছে সাদা বলের ক্রিকেটে মনোযোগ দেয়ার জন্য।’
সবশেষ ২০১৭ সালের অক্টোবরে দণি আফ্রিকায় খেলেছেন তাসকিন। এরপর আড়াই বছরেও আর টেস্ট দলে ফেরা হয়নি তার। জাতীয় দলের জার্সিতে ৫ টেস্টে ১০ ইনিংসে ৭ উইকেট শিকারি এই ডান হাতি পেসারকে নতুন করে জিম্বাবুয়ের বিপে সুযোগ দেয়া হয়েছে। সম্প্রতি বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগে (বিসিএল) উত্তরাঞ্চলের হয়ে দুর্দান্ত বোলিং করেছেন তাসকিন। দুই ম্যাচে শিকার করেছেন ১০ উইকেট। ৭ ফেব্রুয়ারি সিলেটে ৫৪ রান খরচায় নেন ৫ উইকেট।
দলে নতুন মুখ দুইজন। তারা হলেন ব্যাটসম্যান ইয়াসির আলী ও পেসার হাসান মাহমুদ। ঘরোয়া ক্রিকেটে দু’জনই দারুণ পারফরম্যান্স করেছেন। অভিষেক হলে সেটা ধরে রাখতে পারেন কি না দেখার বিষয়। তাদের বিষয়ে নান্নু বলেন, ‘আমরা মনে করি হাসান মাহমুদ ও ইয়াসির আলী খুবই প্রতিভাবান ও সম্ভাবনাময় খেলোয়াড়। তারা আমাদের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার অংশ।’
সবশেষে নান্নু বলেন, ‘এটা দুঃখজনক যে কয়েকজন খেলোয়াড় দলে জায়গা পায়নি। তবে ব্যালান্সড একটি দল নিশ্চিত করতে ধারাবাহিকতার ওপর জোর দিয়েছি আমরা। আমি বিশ্বাস করি, আমরা বর্তমান পরিস্থিতিতে সেরা সম্ভাব্য টেস্ট দলটিই নির্বাচন করেছি। যেখানে অভিজ্ঞ ও প্রতিভাবান ক্রিকেটারদের দারুণ একটি সম্মিলন ঘটেছে।’

 


আরো সংবাদ